এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > রাজীবের ইস্তফার পরেই বেসুরো হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়ক! দলবদলের জল্পনা তুঙ্গে

রাজীবের ইস্তফার পরেই বেসুরো হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়ক! দলবদলের জল্পনা তুঙ্গে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – মেদিনীপুরের পর এবার হাওড়া জেলা নিয়ে তৃনমূলের সমস্যা দিনকে দিন বাড়তে শুরু করেছে। হঠাৎ করেই আজ মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনিতেই তার বিভিন্ন মন্তব্যকে কেন্দ্র করে এতদিন জল্পনা চলছিল। আর আজ মন্ত্রীসভা থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর তার রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা আরও মাথাচাড়া দিতে শুরু করেছে।

কিছুদিন আগেই এই হাওড়া জেলার এক বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া দলের বিরুদ্ধে বেশ কিছু মন্তব্য করেছিলেন। আর রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় মন্ত্রীসভা থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর ফের বিস্ফোরক মন্তব্য করতে শুরু করলেন বালির তৃণমূল বিধায়ক। যাকে কেন্দ্র করে গুঞ্জন তৈরি হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আজ সকালে সোশ্যাল মিডিয়ায় মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ করার কথা জানিয়ে দেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তারপরেই শোরগোল পড়ে যায় গোটা রাজ্যজুড়ে। মুখে না বললেও এই ঘটনার জন্য যে যথেষ্ট অস্বস্তিতে তৃণমূল নেতৃত্ব, তা বলাই যায়। আর এই পরিস্থিতিতে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে মুখ খুলতে দেখা যায় সেই জেলার তৃণমূল বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়াকে।

এদিন তিনি বলেন, “যোগ্য লোকেদের বিরক্ত করে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, লক্ষ্মীরতন শুক্লার মতো ব্যক্তিরা চলে যাচ্ছেন। আর তার জন্য জেলার কিছু নেতা দায়ী। এদের জায়গায় হয়ত নতুন বিধায়ক আসবেন। কিন্তু এতদিন ধরে কাজ করে এরা যে জায়গাটা তৈরি করেছিল, সেটা নতুন কারও তৈরি করতে সময় লাগবে।”

স্বাভাবিকভাবেই তৃণমূল বিধায়কের এই ধরনের মন্তব্যকে কেন্দ্র করে নতুন সমীকরণ তৈরি হয়েছে রাজ্য জুড়ে। হঠাৎ করে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বা লক্ষ্মীরতন শুক্লার মত ব্যক্তিত্বের মন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা নিয়ে জেলার নেতাদের ঘাড়ে কেন দায় চাপালেন এই তৃণমূল বিধায়ক! তাহলে কি জেলার কোনো নেতার জন্য একের পর এক মন্ত্রী ইস্তফা দিতে শুরু করেছেন এখন তা নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন।অনেকে বলছেন, হাওড়া জেলা জুড়ে যা শুরু হয়েছে, তাতে এটা নিশ্চিত যে, এই জেলায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চরম পর্যায়ে রয়েছে। আর তাই মন্ত্রীপদ থেকে ইস্তফা এবং একের পর এক বিধায়কের বেসুরো মন্তব্য অস্বস্তি বাড়াচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেসের।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই প্রথম নয়। এর আগেও যখন লক্ষ্মীরতন শুক্লা জেলা সভাপতি এবং মন্ত্রীপদ থেকে পদত্যাগ করেছিলেন, তখন সরব হয়েছিলেন বৈশালী ডালমিয়া। যেখানে ভিতরে ভিতরে উইপোকার মত অনেকে তৃণমূলের ক্ষতি করছে বলে বিস্ফোরক মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছিল তাকে। আর তারপর থেকেই তার রাজনৈতিক ভবিষ্যত নিয়ে তৈরি হয়েছিল জল্পনা। আর এবার সেই হাওড়া জেলার ডোমজুড়ের বিধায়ক রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর আবার জেলার একাংশ নেতৃত্বদের বিরুদ্ধে সরব হলেন এই তৃণমূল বিধায়ক।

স্বাভাবিকভাবেই এখন প্রশ্ন তৈরি হতে শুরু করেছে, তাহলে কি এই তৃণমূল বিধায়ক এবার বড় কোনো পদক্ষেপ নিতে চলেছেন! যেভাবে একের পর এক মন্ত্রী ইস্তফা দিচ্ছেন এবং তার জন্য দলের একাংশকে দায়ী করছেন বৈশালীদেবী, তাতে তিনি যে দলের প্রতি যথেষ্ঠ ক্ষুব্ধ, তা পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে বলেই মত একাংশের। সব মিলিয়ে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ইস্তফার পর বৈশালী ডালমিয়ার এই ধরনের বেসুরো মন্তব্য গোটা পরিস্থিতিকে কোথায় নিয়ে গিয়ে দাঁড় করায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!