এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রাহু যোগের পঞ্চবাণে অতিষ্ঠ জনজীবন! “বিষে” ভরা 2020-এর ভারতবাসীর পাঁচ “মহাবিপদ” একনজরে

রাহু যোগের পঞ্চবাণে অতিষ্ঠ জনজীবন! “বিষে” ভরা 2020-এর ভারতবাসীর পাঁচ “মহাবিপদ” একনজরে



দুই হাজার কুড়ি সালটা ভারতবর্ষের পক্ষে মোটেই ভাল যাচ্ছে না। কথায় আছে, বিষে-বিষে বিষক্ষয়। কিন্তু 2000 কুড়িতে দুটো বিশ থাকলেও সেই বিষের পরিমাণ যেন আরও বেড়েই চলেছে। মূলত 5 দুর্যোগে বর্তমানে কাবু ভারতবর্ষ। বর্তমানে করোনা ভাইরাস গোটা দেশকে বিপর্যস্ত করে দিয়েছে। সঙ্গে রয়েছে প্রাকৃতিক দুর্যোগ, লাদাখ সীমান্তে চিনা ড্রাগণদের চোখরাঙানি, পশ্চিম ও মধ্যভারত জুড়ে পঙ্গপালের দাপট এবং উত্তরাখণ্ডে দাবানল। আর এই পাঁচটি বিষয়ে সামলাতে এখন কার্যত হিমশিম খেতে হচ্ছে ভারতবর্ষকে।

ভয়াবহ পাঁচ দুর্যোগ চলে আসায় অনেকেই বলছেন, ভারতবর্ষের উপর রাহুর নজর পড়ে গিয়েছে। আর কিভাবে এই অবস্থা থেকে উন্নতির দিকে এগিয়ে যাবে দেশ, তা জানেন না কেউই। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ভারতবর্ষে প্রথম কেরলে করোনা ভাইরাসের আবির্ভাব ঘটেছিল। আর তারপর থেকেই যতদিন গড়িয়েছে, ততই দেশের বিভিন্ন রাজ্যে এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে। ভাইরাসকে আটকাতে আগেভাগে লকডাউন করলেও অবস্থার উন্নতি হয়নি।

প্রতিদিন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। আর এই পরিস্থিতিতে দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্র বন্ধ রেখে কত দিন লকডাউন চালানো যাবে এবং তার ফলে ভবিষ্যতে অর্থনৈতিক পরিস্থিতি অনেকটাই ভেঙে পড়বে, সেই ব্যাপারে আশঙ্কা করছেন সকলে। আর করোনা ভাইরাসকে সামাল দেওয়ার মাঝেই হঠাৎ করে বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া প্রবল ঘূর্ণিঝড় পশ্চিমবঙ্গে এবং ওড়িশার ওপর আছড়ে পড়ে। যার ফলে এই ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয় পশ্চিমবঙ্গের।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, বাংলায় এখনও পর্যন্ত এই ঘূর্ণিঝড়ের ফলে মৃত্যু হয়েছে 86 জন মানুষের। তবে এই যন্ত্রণাকে সহ্য করে নিয়েও যখন ভারত এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখছিল, ঠিক তখনই পশ্চিম এবং মধ্য ভারতের পাঁচ রাজ্যে হানা দেয় পঙ্গপালের দল। যেখানে রাজস্থান, পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ এবং মধ্যপ্রদেশের আকাশে পতঙ্গ তাদের দাপট দেখাতে শুরু করলে, শস্যের ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

যার ফলে কৃষি প্রধান রাজ্যগুলোতে শস্যভান্ডার নষ্ট হয়ে যেতে পারে এবং ভবিষ্যতে খাদ্যের অভাব দেখা দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এদিকে উত্তরাখণ্ডে বর্তমানে একের পর এক বনভূমি দাবানলের আগুনে জ্বলতে শুরু করেছে। সবুজ বাঁচানোর চেষ্টা করলেও, দাবানলের আগুনে তা কার্যত পুড়ে ছারখার হয়ে যাচ্ছে। ফলে প্রকৃতি যদি ধ্বংস হয়ে যায়, তাহলে অবশিষ্ট আর কিছুই থাকবে না বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আর এর মাঝেও ভারত যে সীমান্ত গত দিক থেকে খুব একটা সুরক্ষিত, তাও বলা যাবে না‌। কেননা বর্তমানে চীনের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক খুব একটা ভালো নেই। সীমান্তগত দিক থেকে চীনের নাগরিক সীমান্তে চীন সেনার সংখ্যা বাড়াতে শুরু করেছে। ফলে এই ব্যাপারে ভারত এবং চীনের মধ্যে একটা বিরাট যুদ্ধের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আর এই সমস্ত প্রবণতা দেখে বর্তমানে ভারতের উপর যে 5 রাহু নিঃশ্বাস ফেলছে, তা বড়ই চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। সব মিলিয়ে এখন পঞ্চবাণে অতিষ্ঠ দুই হাজার কুড়ি সাল ভারতকে যেভাবে বিষে বিষাক্ত করে তুলেছে, তাতে এই বিষ হজম করে নিয়ে দেশ কতটা সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারে, তার দিকেই নজর সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!