এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > পুরনির্বাচনের মুখে গোষ্ঠীদ্বন্দকে ঘিরে প্রবল অস্বস্তির মুখে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল

পুরনির্বাচনের মুখে গোষ্ঠীদ্বন্দকে ঘিরে প্রবল অস্বস্তির মুখে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল



সামনেই রাজ্যের পুরসভার নির্বাচন, আর তারপরেই রাজ্যের সামনে আসছে গুরুত্বপূর্ণ বিধানসভা নির্বাচন। এই নির্বাচনগুলিকে লক্ষ্য রেখেই ইতিমধ্যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল পুরোপুরি বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু তা সত্বেও বারেবারেই বিভিন্ন জায়গায় প্রকাশ্যে এসে পড়ছে দলীয় গোষ্ঠীকোন্দল এর ঘটনা। লোকসভা নির্বাচনের পর দলের শৃঙ্খলা আনা অত্যন্ত জরুরী তা অনুধাবন করেই দলনেত্রী জেলায় জেলায় দলীয় কোন্দল বন্ধ করার করা নির্দেশ দেন। তবে অবস্থার যে বিশেষ কিছু হেরফের হয়নি তা এদিন দক্ষিণ 24 পরগণা বাসন্তীর ঘটনায় আবার প্রকাশ পেল।

দক্ষিণ 24 পরগনার বাসন্তী এলাকায় তৃণমূলের আদি ও যুব তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব সর্বজনবিদিত। এর আগেও এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেছিলেন স্বয়ং তৃণমূল সুপ্রীমো কিন্তু তা সত্বেও অবস্থার বিশেষ কিছুই রকমফের ঘটেনি দক্ষিণ 24 পরগনা বাসন্তী এলাকায়। আদি ও যুব তৃণমূল গোষ্ঠীকোন্দল হাতাহাতিতে এসে পৌঁছায় এদিন। অভিযোগ ওঠে, তৃণমূলের যুবগোষ্ঠীকে কেন্দ্র করে আদি তৃণমূল গোষ্ঠীরা বোমাবাজি করেছে। শুধু তাই নয়, যুব তৃণমূল গোষ্ঠীর বেশ কয়েকজনকে মারধর করা হয়েছে বলেও জানা গেছে। সূত্রের খবর, এই ঘটনায় 4 যুব তৃণমূল কর্মী মারাত্মক আহত হয়েছেন। পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে বলে খবর।

দক্ষিণ 24 পরগণা বাসন্তীর এই গোষ্ঠীকোন্দল নতুন নয়। এর আগেও বহুবার তাঁরা অশান্তি ও সংঘর্ষে জড়িয়েছে। তবে এবারের ঘটনাটি পৌঁছে গেছে বাড়াবাড়ি পর্যায়ে। সূত্রের খবর, গত বৃহস্পতিবার রাতে বাসন্তীর পিয়ারী মোর এলাকা দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন যুব তৃণমূল গোষ্ঠীর 4 সদস্য। যাদের মধ্যে ছিলেন মোশারফ পিয়াদা, আব্দুল সালাম মোল্লা, রেডাউল মন্ডল, আমান সরকার। সূত্রের খবর, তাঁরা যখন বিহারী মোড় এলাকা পার করছিলেন, সে সময় তাঁদের রাস্তা আটকায় আদি তৃণমূল গোষ্ঠীর বেশকিছু সদস্য। শুরু হয় বাকবিতণ্ডা। আর কিছুক্ষণের মধ্যেই এই বাকবিতণ্ডা পৌঁছে যায় হাতাহাতিতে ও বোমাবাজিতে। জানা গেছে, যুব তৃণমূল কর্মীদের ওপর ঐ রাতে ব্যাপক বোমাবাজি করা হয় এবং তাঁদের রাস্তায় ফেলে ধারালো অস্ত্র ও লাঠি দিয়ে পেটানো হয়।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

ঘটনায় গুরুতর আহত হন ওই চার যুব তৃণমূল কর্মী। রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁরা লুটিয়ে পড়েন রাস্তায়। যদিও এই সংঘর্ষের খবর পেয়ে সাথে সাথেই এলাকায় পৌঁছান বাসন্তী থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। আহত 4 যুব তৃণমূল কর্মীকে পুলিশ উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন। তবে এই চারজনের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁকে চিত্তরঞ্জন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে বলে জানা গেছে। অন্যদিকে এই ঘটনায় তৃণমূলের অন্দরে শুরু হয়েছে প্রবল গুঞ্জন। আহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, দোষীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করে কড়া শাস্তি দিতে হবে।

বারংবার এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা হলেও, তা কিছুতেই বাধ মানছে না বলেই মনে করা হচ্ছে। উপরন্তু এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে ঘিরে শাসক দল তৃণমূল চরম অস্বস্তিতে এই মুহূর্তে। শাসকদলের অন্দরের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নিয়ে বিরোধীদলের প্রবল কটাক্ষের শিকার হচ্ছেন তাঁরা। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, আগামী দিনে রাজ্যে আসতে চলেছে দুটি উল্লেখযোগ্য নির্বাচন। ঠিক এই সময় যদি শাসক দলের অন্দরে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ব্যাপক মাত্রায় মাথাচাড়া দেয়, তাহলে তার সুযোগ অবশ্যই কাজে লাগাবে বিরোধী দলগুলি। সুতরাং দলের অন্দরে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে সামলাতে তৃণমূল সুপ্রিমো আগামী দিনে বিশেষ কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন কি না, সেদিকে লক্ষ্য রাখছে রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!