এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > ‘উন্নয়নের থেকেও বড় রাজ্যে শান্তি বজায় রাখা’ সাংসদ দেব

‘উন্নয়নের থেকেও বড় রাজ্যে শান্তি বজায় রাখা’ সাংসদ দেব



রাজ্যের দোরগোড়ায় কড়া নাড়ছে পুরসভা নির্বাচন। এই মুহূর্তে পুরো নির্বাচনে কোমর বেঁধে রাজনৈতিক মঞ্চে অবতরণ করেছে রাজ্যের যুযুধান রাজনৈতিক শিবিরগুলি। ইতিমধ্যে প্রস্তুতি হিসেবে বিভিন্ন রকম পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে। অন্যদিকে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলও পিছিয়ে নেই। তারাও নির্বাচনের জমি তৈরি করতে রাজনৈতিক ময়দানে নেমে পড়েছে। এই মুহূর্তে রাজ্যের পুরনির্বাচন জেতার জন্য শাসক-বিরোধী উভয় দলই জোরদার প্রস্তুতি শুরু করেছে। আর এর মধ্যেই একগুচ্ছ কর্মসূচি নিয়ে ঘাটালে হাজির হলেন দলীয় সাংসদ দীপক অধিকারী তথা দেব। সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার একাধিক কর্মসূচিতে যোগ দিতে ঘাটালে এলেন তারকা সংসদ দীপক অধিকারী।

এদিন দেব ঘাটাল শহরের কুশপাতা এলাকায় নিজের কার্যালয়ে একটি সাংবাদিক সম্মেলন করেন এবং সেখানে তিনি দিল্লির সাম্প্রদায়িক হিংসা নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, এই মুহূর্তে দেশের যা অবস্থা সেখানে ভীষণভাবে প্রয়োজন শান্তি। তাই উন্নয়নের থেকেও বড় এই মুহূর্তে রাজ্যের প্রত্যেকটি এলাকায় শান্তি বজায় রাখা। অন্যদিকে তিনি আরো বলেছেন, ‘নির্বাচন আর অশান্তি এখন সমার্থক হয়ে গিয়েছে। তাই নির্বাচন এলেই মনের মধ্যে যেন একটা আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। নির্বাচনে কে জিতবে, কে হারবে সেটা পরের বিষয়। আমি প্রার্থনা করি, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বা কোনও রাজনৈতিক ইস্যুতে কোথাও যেন কোনও অশান্তি না হয়।’

এদিন দেব ঘাটাল উন্নয়ন প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান নিয়ে ধারাবাহিকভাবে কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি দিয়ে আসছি। এবার আমি ঘাটাল-পাঁশকুড়া সড়কের মানোন্নয়ন এবং সম্প্রসারণের বিষয়ে দিদির(মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) সঙ্গে কথা বলব। ঘাটাল শহরের একটি বাইপাস করা যায় কি না, সেই বিষয়টিও জোর দিয়ে দেখা হবে।’ সূত্রের খবর, সাংসদ দীপক অধিকারী ইতিমধ্যে তদবির করে ঘাটাল ব্লকের ঝুমি নদীর ওপর একটি 12 কোটি টাকার ব্রিজ এবং ঘাটাল শহরে শিলাবতী নদীর উপর প্রায় 6 কোটি টাকা ব্যয় 12 ও 13 নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যে সংযোগকারী একটি ফুটব্রিজ তৈরীর অনুমোদন নিয়ে এসেছেন।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এ প্রসঙ্গে দেব এদিন জানিয়েছেন, উক্ত ব্রিজগুলি তৈরির জন্য রাজ্য অর্থ দপ্তর সাহায্য করবেন। শীঘ্রই এই ব্রিজদুটি তৈরির কাজ শুরু হবে বলে জানা গেছে। অন্যদিকে এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে দেব ইঙ্গিত দিয়েছেন, ইতিমধ্যে পাঁশকুড়া থেকে ঘাটাল হয়ে চন্দ্রকোনা রোড পর্যন্ত একটি রেল লাইন তৈরির ব্যাপারে। এ প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন ‘কোথায় কোথায় স্টেশন হবে, রেলমন্ত্রক তা চিহ্নিত করেছে বলে জানা গিয়েছে।’ সূত্রের খবর, দেব শুধুমাত্র এদিন ঘাটাল শহরে সাংবাদিক সম্মেলন করতে আসেননি। তিনি অন্য বেশ কয়েকটি দলীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য এসেছিলেন।

যার মধ্যে দাসপুর মিলন মঞ্চে মহকুমা শাসকের উদ্যোগে তপশিলি জাতি ও উপজাতিদের মধ্যে জাতিগত শংসাপত্র বিলির একটি অনুষ্ঠান ছিল। যে অনুষ্ঠানে দেবকে দেখার জন্য ভিড় উপচে পড়ে। সূত্রের খবর, দাসপুর ১ ব্লকে এদিন 163 জন তপশিলি উপজাতিদের হাতে এই শংসাপত্র তুলে দেওয়া হয়। অন্যদিকে জানা গেছে, দেবের সাংসদ কোটায় ঘাটাল ব্লকের কনকপুরে প্রায় 45 লক্ষ টাকা ব্যয়ে একটি সেতু তৈরি হবে বলে ঠিক হয়েছে। এদিন দীপক অধিকারী এই সেতুটির শিলান্যাস করেছেন বলে জানা গেছে।

এদিন দেব তার স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিমায় ঘাটালের রেল, সড়ক, সেতু সহ সার্বিক উন্নয়নের নানা খুঁটিনাটি নিয়ে আলোচনা করেন। অন্যদিকে, ঘাটাল শহরে সাংসদ দীপক অধিকারীর অনুষ্ঠানে তৃণমূল দলের বিধায়ক এবং পুরপ্রধান অনুপস্থিত ছিলেন। এই ঘটনায় তুমুল শোরগোল শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। রাজনৈতিক মহলের আশঙ্কা, এবার হয়তো ঘাটালেও মাথাচাড়া দিয়েছে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ছায়া। তবে সূত্রের খবর, ঘাটালের তৃণমূল সাংসদ ও বিধায়ক এর এই বিভাজন নতুন নয়। এর আগেও বিভিন্ন ঘটনায় বিরোধ সামনে এসেছে। আপাতত ঘাটাল শহরে একগুচ্ছ উন্নয়নের স্বপ্ন দেখিয়ে গেলেন অভিনেতা ও সাংসদ দেব।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!