এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > পুজোর আগে অমিত শাহ বাংলায় আসছেন শুধু জল মাপতে? গোপন প্ল্যান নিয়ে জল্পনা !

পুজোর আগে অমিত শাহ বাংলায় আসছেন শুধু জল মাপতে? গোপন প্ল্যান নিয়ে জল্পনা !



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – শারদ উৎসবের পরেই বাংলার বিধানসভা নির্বাচনের দামামা বেজে যাবে। তাই বিন্দুমাত্র সময় নষ্ট না করে এখন থেকেই তৃণমূলের ঘুম উড়িয়ে দিতে নানা পরিকল্পনা করছে ভারতীয় জনতা পার্টি। তাই এবার বিন্দুমাত্র দেরি না করে পুজোর আগেই দুদিনের বঙ্গ সফরে আসার কথা রয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের। অন্যদিকে মহা ষষ্ঠীর দিন রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে ভার্চুয়াল ভাষণ দিতে পারেন প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী।

অর্থাৎ নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহকে মুখ করেই যে বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে ভালো ফল করতে চাইছে ভারতীয় জনতা পার্টি, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। বস্তুত, তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, স্বজনপোষন, আইন শৃংখলার অবনতি সহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে। বিজেপির পক্ষ থেকে সম্প্রতি বিজেপির পক্ষ থেকে নবান্ন অভিযান কর্মসূচি করা হয়েছে। নির্বাচনের সময় যতই এগিয়ে আসবে, ততই বিজেপি এই ধরনের আরও কর্মসূচি নিয়ে তৃণমূল সরকারের ঘুম উড়িয়ে দেবে।

তবে শুধু আন্দোলন করলেই যে হবে না, তা ভালোই বুঝতে পেরেছে বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব। আর তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে গ্রহণযোগ্য মুখ হিসেবে নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহকে চাইছে বঙ্গ বিজেপি। আর তাই দুর্গা পুজোর আগে অমিত শাহকে এনে এবং প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বার্তার মধ্যে দিয়ে গেরুয়া ঝড় তুলতে চাইছে বঙ্গ বিজেপি। তবে এখনও পর্যন্ত সেভাবে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে বাংলার দিকে নজর দিতে দেখা যাচ্ছে না বলে দাবি করছেন একাংশ।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অনেকে বলছেন, সামনেই বিহার বিধানসভার নির্বাচন রয়েছে। তাই নরেন্দ্র মোদি থেকে অমিত শাহ সকলেই সেই দিকে বেশি করে নজর দিচ্ছেন। আর বিহার বিধানসভা নির্বাচনের পরেই তাদের প্রধান লক্ষ্য থাকবে বাংলার দিকে। আর অমিত শাহ থেকে শুরু করে নরেন্দ্র মোদি বাংলার সংগঠনের দিকে নজর দিলে তারা যে তৃণমূলকে অস্বস্তিতে ফেলতে অনেক কিছুই করা শুরু করবেন, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন তৃতীয়বারের জন্য রাজ্যের ক্ষমতায় আসতে ইতিমধ্যেই বিজেপিকে পাল্টা চাপে রেখেছো তৃণমূল কংগ্রেস প্রশান্ত কিশোরের উদ্যোগে বিরোধীদলের জনপ্রতিনিধিদের ভাঙিয়ে আনার কাজ শুরু করে দেওয়া হয়েছে। তবে অমিত শাহ এবং নরেন্দ্র মোদী যদি বাংলার সংগঠনের দিকে নজর দিতে শুরু করেন, তাহলে তারা তৃণমূলের ঘর ভাঙতে উদ্যোগী হবেন বলেই আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

শুধু তাই নয়, বিধানসভা নির্বাচনের প্রার্থী নির্বাচন থেকে শুরু করে দলের অন্দরে গোষ্ঠী কোন্দল, সমস্ত কিছু বন্ধ করবার জন্য জোর দেবে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। স্বাভাবিকভাবেই শারদোৎসব মিটে যাওয়ার সাথে সাথেই যে নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ বাংলার সংগঠনের প্রতি নজর দিতে উদ্যোগী হবেন, তা বলাই যায়। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ বাংলার সংগঠনের গুরুত্ব দিতে শুরু করলে তৃণমূল কতটা চাপে পড়ে, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!