এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > দুর্গাপুজোয় ৫০ হাজার অনুদানের নামে ক্যাডার ডেভেলপমেন্ট ফান্ড তৈরি করলেন মমতা! বিস্ফোরক দিলীপ

দুর্গাপুজোয় ৫০ হাজার অনুদানের নামে ক্যাডার ডেভেলপমেন্ট ফান্ড তৈরি করলেন মমতা! বিস্ফোরক দিলীপ



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – গতকাল বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে রাজ্যের পুজো কমিটি গুলির সঙ্গে একটি বিশেষ বৈঠকের আয়োজন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এই বৈঠকে এ বছরের দূর্গা পূজা কমিটি গুলির জন্য বিশেষ ঘোষণা করতে দেখা যায় মুখ্যমন্ত্রীকে। এই বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী এবছরের পুজোর আয়োজক কমিটি গুলির জন্য ৫০ হাজার টাকা অনুদান ছাড়াও একাধিক সুবিধার কথা ঘোষণা করেছেন।

করোনা সংক্রমনের কারণে আর্থিক অভাব-অনটনের শিকার হওয়া পুজো কমিটিগুলিকে বিশেষভাবে সাহায্য করতে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন রাজ্যজুড়ে করোনা পরিস্থিতির কারণে পুজো উদ্যোক্তা কমিটির অধিকাংশই কোন স্পন্সর পাননি। আবার বিজ্ঞাপন দিয়ে রোজগারের ব্যবস্থাও তেমন ফলদায়ক নয়। একারণেই তাদের আর্থিক সাহায্যদানের পরিকল্পনা রাজ্য সরকারের।মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী, পুজো কমিটিগুলিকে ৫০ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়ার পাশাপাশি, পুজো কমিটি গুলির জন্য বেশ কিছু ক্ষেত্রে কর মুকুবের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। যার মধ্যে আছে পুর কর, দমকল কর ইত্যাদি। আবার সিইএসসি ও রাজ্য বিদ্যুত্‍ পর্ষদ এবারে পুজোর উদ্যোক্তাদের বিদ্যুৎ বিলের ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ ছাড়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

ইতিপূর্বে গত ২০১৮ সালে রাজ্যের পুজো কমিটিকে ১০০০০ টাকা করে অর্থসাহায্য দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। গতবছর ২০১৯ সালের এর পরিমান বৃদ্ধি করে ২৫ হাজার টাকা অর্থ সাহায্যের ব্যবস্থা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। আর এবছরে তা বাড়িয়ে করা হলো ৫০০০০। কিন্তু করোনা সংক্রমনের কারণে রাজ্য সরকারের রাজস্ব আদায়ের পরিমান যখন উল্লেখযোগ্য ভাবে হ্রাস পেয়েছে। রাজ্যের অর্থনীতি যখন ধুঁকছে, সেই আবহে পূজা কমিটিগুলিকে এই অর্থদান কতটা যুক্তিযুক্ত? তা নিয়ে সরব বিরোধী মহল।

করোনা সংক্রমণ কালে পুজোকমিটিকে অর্থ দানের এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি বিরূপ মন্তব্য করলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এ প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, “কোথা থেকে এই টাকা আসবে? এতো রাজ্যের উন্নয়নের টাকাই খয়রাতি করা হচ্ছে”। তাঁর কথায়, ‘এই টাকা কারা পাবে তাও একটা ব্যাপার। যেমন সবুজ সাথীর ক্ষেত্রে হয়েছে। এও এক বড় দুর্নীতি হতে চলেছে। তৃণমূলের পেটোয়া ক্লাবগুলোই টাকা পাবে। মানে ক্যাডার ডেভেলপমেন্ট ফান্ড তৈরি করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।”

অন্যদিকে বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহাও এ বিষয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন। এ বিষয়ে তাঁর বক্তব্য, ”কোনও দিন এই সরকারের পুজো নিয়ে ইতিবাচক দিক দেখিনি। মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য শুনে মনে হল বিজেপির ভয়ে তিনি কাঁটা হয়ে রয়েছেন। তাই প্রতিশ্রুতির বন্যা।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!