এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কন্যাশ্রীর রাজ্যই নারী-নির্যাতনে দেশের শীর্ষে, তীব্র আন্দোলনের পথে বিজেপি মহিলা মোর্চা

কন্যাশ্রীর রাজ্যই নারী-নির্যাতনে দেশের শীর্ষে, তীব্র আন্দোলনের পথে বিজেপি মহিলা মোর্চা



পশ্চিমবঙ্গকে বিশ্বমানচিত্রে এক ঐতিহাসিক জায়গা দিয়েছে কন্যাশ্রী।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কন্যাশ্রী প্রকল্পের সফলতায় যখন মুখ্যমন্ত্রীর জয়জয়কার করছে তৃণমূল শিবির। তখন আবারও পশ্চিমবঙ্গ এক নম্বরে, কিন্তু এবার তা মহিলাদের উপর পারিবারিক অত্যাচারের নিরিখে। অ্যসিড হামলা এবং তাতে আক্রান্তের সংখ্যার ভিত্তিতেও বাংলা শীর্ষ স্থানে। দেশে নারী ও শিশু পাচারে এ রাজ্য দেশের অন্যান্য প্রদেশকে টপকে গিয়েছে।ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর (এনসিআরবি) সাম্প্রতিক এই পরিসংখ্যানকে হাতিয়ার করেই এই অভিযোগ করলেন বিজেপির মহিলা মোর্চার সর্বভারতীয় সভানেত্রী বিজয়া রোহাতকর। বুধবার রাজ্য মহিলা মোর্চার রাজ্যে কমিটির বৈঠকে যোগ দিতে এসেছিলেন বিজয়াদেবী। বৈঠক শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে এনসিআরবি’র তথ্যকেই তৃণমূল বিরোধিতায় প্রধান হাতিয়ার করলেন তিনি।বাংলার প্রথম মুখ্যমন্ত্রীর জামানায় মহিলা সুরক্ষার এই হাল নিয়ে মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সনের কটাক্ষ করে বলেছেন,”এনআরবি-র এই পরিসংখ্যানই প্রমান করে দিচ্ছে যে ,বাংলার মহিলার সুরক্ষিত নয়।পরিবর্তনের জমানায় বঙ্গ ললনাদের সুরক্ষা শিকেই উঠেছে।” বিজয়াদেবীর খোঁচা,”রাজ্যে নারী নির্যাতনের ঘটনায় প্রশাসনিক প্রধান হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যে উদ্বেগ এবং সংবেদনশীল হওয়ার কথা,তা তাঁর কাজে প্রতিফলিত হচ্ছে না।” মা-মাটি- মানুষের সরকার মহিলাদের প্রতি সংবেদনশীল নয় বলেও অভিযোগ করেন বিজয়াদেবী। এই বিষয়ে বিজেপির মহিলা ব্রিগেডকে এক গুচ্ছ কর্মসূচি দিয়ে গেলেন সংগঠনের এই সর্বভারতীয় নেত্রী। বিজেপি সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি বোলপুরে ধর্ষিত ও মৃত মহিলার পরিবারের পাশে দাঁড়াতে ২১ থেকে ৩১ ডিসেম্বর রাজ্যজুড়ে প্রতিবাদ কর্মসূচি নিতে চলেছে তারা। ২৭জানুয়ারি থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রাজ্যে নারীদের নিরাপত্তার দাবিতে জেলাওয়ারি বিক্ষোভ-প্রতিবাদ মিছিল করে হবে।পাশাপাশি ৮মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে রাজ্যের সবচেয়ে উপেক্ষিত এলাকা জঙ্গলমহলের মহিলাদের স্বার্থে পথে নামবে বিজেপির মহিলা বাহিনী। পাশাপাশি আগামী ২০ জানুয়ারি র মধ্যে রাজ্যের ১,১০৪টি মন্ডলের সবকটিতে কমিটি গঠন প্রক্রিয়া শেষ করা হবে বলেও জানান তিনি। অন্যদিকে ,রাজ্য বিজেপি মহিলা শাখার প্রধান লকেট চট্টপাধ্যায় আসন্ন পঞ্চায়েত ভোটকে সামনে রেখে দলকে গোছাতে চাইছেন। লকেটদেবীর দাবি, পঞ্চায়েত ভোটে ৫০ শতাংশ আসন মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত। আমরা প্রতিটি আসনে যোগ্য প্রার্থী দেব।গত ছ’বছরে শাসকদলের প্রচুর হুমকি-ধমকি শুনেছি।এবারের ভোটে অন্য বিজেপিকে দেখা যাবে ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!