এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > প্রচারে বিধিভঙ্গের অভিযোগ মমতার বিরুদ্ধে, 48 ঘণ্টার মধ্যে জবাব তলব!

প্রচারে বিধিভঙ্গের অভিযোগ মমতার বিরুদ্ধে, 48 ঘণ্টার মধ্যে জবাব তলব!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিজেপির পক্ষ থেকে এতদিন দাবি করা হয়েছিল, কোনো মুখ্যমন্ত্রী এরকম ভাষায় কথা বলতে পারেন না। নির্বাচনী লড়াইয়ে নির্বাচনী লড়াইয়ের মত হলেও, কেন প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে রাক্ষস খোক্ষস বা হোদল কুতকুতের মত শব্দ দিয়ে আক্রমণ করা হচ্ছে! তা নিয়ে প্রশ্ন করতে দেখা গিয়েছিল ভারতীয় জনতা পার্টির নেতা নেত্রীদের। এছাড়াও নির্বাচনী প্রচারের ময়দানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একাধিক বক্তব্য নিয়ে তৈরি হয়েছিল বিতর্ক। যার ফলে কমিশনের কাছে বিজেপির পক্ষ থেকে একাধিক অভিযোগ জানানো হয়েছিল।

কিন্তু এর পরিপ্রেক্ষিতে কমিশনের পক্ষ থেকে তেমন কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। কিন্তু এবার বড়সড় অস্বস্তিতে পড়লেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যেখানে ভোটের প্রচারে ধর্মের ভিত্তিতে প্রচার করার অভিযোগ উঠল তার বিরুদ্ধে। আর তার পরিপ্রেক্ষিতেই বিজেপির অভিযোগের জেরে 48 ঘণ্টার মধ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বক্তব্যের ব্যাখ্যা দেওয়ার পরামর্শ দিল নির্বাচন কমিশন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত 3 এপ্রিল তারকেশ্বরের জনসভায় উপস্থিত হয়ে একটি ধর্মীয় বার্তা দেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যেখানে তিনি বলেন, “সংখ্যালঘু ভাই-বোনেদের কাছে হাতজোড় করে একটা কথা বলব, ওই শয়তান ছেলেটা বিজেপির টাকা নিয়ে বেরিয়েছে। ও সাম্প্রদায়িকতার কথা বলে। বিজেপি টাকা নিয়ে বেরিয়েছে, যাতে সংখ্যালঘু ভোট ভাগ হয়ে যায়। মনে রাখবেন, বিজেপি আসলে দুর্ভোগ আপনাদের বেশি। এটা মাথায় রাখবেন।”

স্বাভাবিক ভাবেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই বক্তব্য দেওয়ার পরেই তার বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। আর এর পরিপ্রেক্ষিতেই এবার বিজেপির পক্ষ থেকে কমিশনে অভিযোগ করার পরেই তৃণমূল নেত্রীকে নোটিশ পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে সেই নোটিশে জানানো হয়েছে, জনপ্রতিনিধি আইনের 123 (3) ৩ (এ) (৪) এ ধারা এবং নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই নোটিশ পাওয়ার 48 ঘণ্টার মধ্যে তাকে ব্যাখ্যা দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। তবে এই নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে যদি তৃণমূল নেত্রী তার জবাব না দেন, তাহলে তার বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে নির্বাচন কমিশন


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সরাসরি তৃণমূল নেত্রীকে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে নোটিশ পাঠিয়ে দেওয়ায় যথেষ্ট অস্বস্তিতে পড়ে গেল ঘাসফুল শিবির। কেননা বিভিন্ন জায়গায় জনসভা করে একমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের স্বপক্ষে আওয়াজ তোলার চেষ্টা করছেন অন্যান্য নেতা-নেত্রীরা, নিজেদের মতো করে সভা-সমিতিতে অংশগ্রহণ করলেও, সকলেই তাকিয়ে রয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিকে। কেননা 2011 হোক বা 2016 সাল, যে কোনো নির্বাচনে তাকে দেখেই মানুষ ভোটবাক্সে তৃণমূলকে সমর্থন করেছে।

সেক্ষেত্রে এবার যখন বিজেপির প্রভাব বাড়ছে, তখন তৃণমূল নেত্রী আরও বেশি করে বিভিন্ন জনসভায় উপস্থিত হয়ে মানুষকে সমর্থন করার আবেদন জানাচ্ছেন। আর এই পরিস্থিতিতে যেভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কমিশনে অভিযোগ জানিয়ে তৃণমূল নেত্রীকে অস্বস্তিতে ফেলে দিল বিজেপি, তাতে গোটা পরিস্থিতি নিয়ে গুঞ্জন বাড়তে শুরু করেছে রাজনৈতিক মহলে। এখন দেখার বিষয়, কমিশনের পক্ষ থেকে নোটিশ পাওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই ব্যাপারে কি উত্তর দেন!

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!