এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > প্রবল হাওয়া সত্ত্বেও হয়েছে ভরাডুবি! ফলপ্রকাশের পর থেকেই তালাবন্ধ বিজেপির পার্টি অফিস

প্রবল হাওয়া সত্ত্বেও হয়েছে ভরাডুবি! ফলপ্রকাশের পর থেকেই তালাবন্ধ বিজেপির পার্টি অফিস



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিধানসভা নির্বাচনে বেশ কিছু স্থানে বিজেপির জয় লাভের যথেষ্ট রকম সম্ভাবনা ছিল। বিজেপির পক্ষে যথেষ্ট হাওয়াও ছিল, কিন্তু এর পরেও বহু কেন্দ্রে পরাজিত হয়েছে বিজেপি। এমনই একটি কেন্দ্র হল কাটোয়া বিধানসভা কেন্দ্রটি। এই কেন্দ্রে বিজেপির জয়ের সম্ভাবনা থেকেও, শেষপর্যন্ত তা হয়নি। তৃণমূলের বক্তব্য, বিজেপি নেতারা মনে করেছিলেন, তাঁরা এবার রাজ্যে ক্ষমতায় আসতে চলেছেন। কিন্তু নির্বাচন হতেই বিজেপির প্রকৃত সাংগঠনিক চেহারা প্রকাশ্যে এসে পড়েছে। নির্বাচনের সময় সর্বদা লোক সমাগম হয়েছে কাটোয়া শহরে বিজেপির পার্টি অফিসে। কিন্তু ফল প্রকাশের পর থেকেই তালাবদ্ধ অবস্থায় পড়ে আছে বিজেপির এই পার্টি অফিস। লোকজনের অভাবে শূন্যতা বিরাজ করছে সেখানে। যা নিয়ে উঠতে শুরু করেছে নানা প্রশ্ন।

কাটোয়া শহরের পুরসভার জলের ট্যাংকের পেছনে বিজেপির নগর পার্টি অফিস। নির্বাচনের সময়ে এই পার্টি অফিসে সব সময় অসংখ্য নেতাকর্মীকে দেখা যেত। সকাল-সন্ধ্যা দরজা খোলা থাকতো এই পার্টি অফিসের। সাধারণ কর্মীরা যেমন আসতেন, তেমনই আসতেন প্রার্থীরাও। কৈলাস বিজয়বর্গীয়, মুকুল রায়ের মতো নেতারাও এখানে এসেছেন। এই পার্টি অফিসে রান্নাবান্নার ব্যবস্থা পর্যন্ত ছিল। এখানেই আহার করতেন কর্মীরা। এখন এই পার্টি অফিস মানুষজনের অভাবে কার্যত শুন্য। নির্বাচনে পরাজয়ের পর দলের অনেকেই কাজে আসছেন না। পার্টি অফিসেও আসতে দেখা যাচ্ছে না কাউকে। সর্বদা তালাবদ্ধ অবস্থায় পড়ে আছে এই পার্টি অফিস।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

নির্বাচনের ফল প্রকাশের দিনেও এই পার্টি অফিসে বহু মানুষকে দেখা গিয়েছিল। তবে পরাজয় আসার পর সেদিন সন্ধ্যা বেলায় এই পার্টি অফিস বন্ধ হয়ে যায়। তারপর থেকেই পার্টি অফিস বন্ধ অবস্থায় পড়ে আছে। সম্প্রতি ভোট-পরবর্তী অশান্তির পরিস্থিতি রাজ্যের নানা স্থানে সৃষ্টি হয়েছে। বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে যে, বেছে বেছে বিজেপি কর্মীদের মারধর, বাড়িঘর, দোকানপাট ভাঙচুর ও হেনস্থা করা হচ্ছে। বিজেপির যেসব কর্মীরা আক্রান্ত হয়েছেন, তার রিপোর্ট চেয়েছে জেলা নেতৃত্ব। এ বিষয় নিয়ে বিজেপির নেতা কর্মীদের মধ্যে বৈঠক করা হয়েছিল। কতজন বিজেপি কর্মী আক্রান্ত হয়েছেন, কতজন ঘর ছেড়ে অন্যত্র রয়েছেন, এ বিষয় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তবে, পার্টি অফিসে বৈঠক করা হয়নি। কোনো অজ্ঞাত কারণে বৈঠক অন্যত্র করা হয়েছিল।

দীর্ঘদিন ধরেই পার্টি অফিস বন্ধ থাকে প্রসঙ্গে কাটোয়ার সাংগঠনিক জেলা বিজেপির সহ-সভাপতি অনিল দত্ত জানালেন, নির্বাচনের পর কর্মীদের ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে যে বৈঠক বসে ছিল, তা এই পার্টি অফিসে হয়নি। অগ্রদ্বীপের কাছাকাছি অন্য এক জায়গায় বৈঠক বসেছিল। সকলকে পার্টি অফিসে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি, কার্যক্রম শুরু করারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। অন্যদিকে, এ প্রসঙ্গে কাটোয়ার বিজেপি নগর সভাপতি অনুপ বোস জানালেন যে, এই পার্টি অফিস বন্ধ থাকার বিষয়টি কোন গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার নয়। এখন দলের তেমন কার্যক্রম নেই। এ কারণেই কর্মীরা তেমন একটা আসছেন না। তবে খুব তাড়াতাড়ি আবার পার্টি অফিসে যেতে চলেছেন তাঁরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!