এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপির মুকুল রায়ের পর এবার তৃণমূলের দিদিকে বলো ‘মান্যতা’ দিল প্রিয় বন্ধু মিডিয়াকে!

বিজেপির মুকুল রায়ের পর এবার তৃণমূলের দিদিকে বলো ‘মান্যতা’ দিল প্রিয় বন্ধু মিডিয়াকে!



২০১৭ সালের ৫ ই জুন রেজিস্টার্ড মিডিয়া হিসাবে পথ চলা শুরু করার পর থেকে অনেক ঝড়-ঝঞ্ঝার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে প্রিয় বন্ধু মিডিয়াকে। কিন্তু, শত অসুবিধা ও চাপের কাছে কোনোদিনই মাথা নোয়াই নি আপনাদের প্রিয় মিডিয়া পোর্টাল। দাঁতে দাঁত চেপে সেই কঠিন লড়াইয়ের সময়ে আপনাদের উৎসাহ ও ভরসাই ছিল আমাদের পাথেয়। আর সেই কঠিন লড়াইয়ের মধ্যে দিয়ে যেতে যেতে এবার ধীরে ধীরে মিলতে শুরু করেছে স্বীকৃতি।

কিছুদিন আগেই আমরা লোকসভা নির্বাচনের পরবর্তীতে এই মুহূর্তে বাংলায় ভোট হলে রাজনৈতিক চিত্র ঠিক কিরকম হতে পারে – সেই নিয়ে আমাদের ওপিনিয়ন পোল আপনাদের সামনে নিয়ে এসেছিলাম। সেই সমীক্ষা অনুযায়ী, এই মূহুর্তে নির্বাচন হলে বাংলায় বিজেপি ১৬৬ টি, তৃণমূল কংগ্রেস ১১৬ টি ও কংগ্রেস ১২ টি আসন পেতে পারে বলে আমরা জানিয়েছিলাম। আর এই ঘটনার কিছুদিন পরেই বিজেপি নেতা মুকুল রায় কেন্দ্রীয় নেতৃত্ত্বের কাছে একটি রিপোর্ট জমা দেন।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, সেই রিপোর্টে মুকুলবাবু কেন্দ্রীয় নেতৃত্ত্বের কাছে লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি যে ১২১ টি আসনে এগিয়েছিল ও যে ৪৪ টি আসনে অল্প ব্যবধানে পিছিয়ে ছিল – সেই ১৬৫ টি আসনে ‘জোর’ দেওয়ার কথা জানান। অর্থাৎ, মুকুলবাবুর রিপোর্ট বলছে বিজেপির সাম্ভাব্য প্রাথমিক টার্গেট ১৬৫, আর আমাদের সমীক্ষা বলছে বিজেপির সাম্ভাব্য প্রাপ্ত আসন সংখ্যা ১৬৬। ফলে, মুকুলবাবুর মত একজন প্রাজ্ঞ ও প্রথিতযশা রাজনীতিবিদের নিজস্ব রিপোর্ট কার্যত ‘মান্যতা’ দিয়েছিল আমাদের মত অতি ক্ষুদ্র সংস্থার আন্তরিক প্রচেষ্টাকে।

আর এবার প্রিয় বন্ধু মিডিয়াকে ‘মান্যতা’ দিল এই মুহূর্তে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের সব থেকে বড় রাজনৈতিক কর্মসূচি – ‘দিদিকে বলো’। আজ ‘দিদিকে বলো’র ‘অফিসিয়াল’ ফেসবুক পেজে কর্মসূচির পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে একটি পোস্ট করা হয়। সেখানে, চারটি মাত্র সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরের কোলাজ ব্যবহার করা হয়েছে। প্রিন্ট মিডিয়ার ক্ষেত্রে ‘আনন্দবাজার পত্রিকা’, ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার ক্ষেত্রে ‘জি ২৪ ঘন্টা’, হিন্দি মিডিয়ার ক্ষেত্রে ‘দৈনিক জাগরণের’ পাশাপাশি পোর্টাল মিডিয়ার ক্ষেত্রে একমাত্র ‘প্রিয় বন্ধু বাংলা’কে বেছে নেওয়া হয়েছে।

স্বাভাবিকভাবেই অল্প কিছুদিনের ব্যবধানে রাজ্যের শাসকদল ও প্রধান বিরোধীদলের কাছ থেকে এই ধরনের ‘মান্যতা’ পেয়ে আমরা উৎসাহিত। আমরা বারেবারেই দাবি করে এসেছি, কোনো রাজনৈতিক রঙ না দেখে মানুষের কাছে সত্যিটা তুলে আনতেই আমরা শুধুমাত্র দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। আর তাই, সেই কঠিন সফরের মাঝে, যুযুধান হেভিওয়েট রাজনৈতিক শিবিরের এই ধরনের ‘মান্যতা’ আমাদের আগামীদিনে কাজ করতে আরও উৎসাহ যোগাবে এবং আমরা আমাদের পাঠকদের জন্য সত্য ও সঠিক খবর তুলে ধরতে আরও দৃঢ়প্রতিজ্ঞ হব।

এই সেই ‘দিদিকে বলো’র পোস্টার – যা প্রকাশিত হয়েছে ‘অফিসিয়াল’ ফেসবুক পেজে।
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!