এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > সভাপতি পদ নিয়ে বড়সড় কোন্দল, অস্বস্তিতে জাতীয় দল

সভাপতি পদ নিয়ে বড়সড় কোন্দল, অস্বস্তিতে জাতীয় দল



 

এককালে পশ্চিমবঙ্গে কংগ্রেসের অবস্থা ভাল হলেও, বর্তমানে তারা সাইনবোর্ডে পরিণত হয়েছে। রাজ্যের শাসক দলের ক্ষমতায় তৃণমূল কংগ্রেস চলে আসার সাথে সাথেই 2016 সালে কংগ্রেস বিরোধী দলের মর্যাদা পেয়েছিল ঠিকই, কিন্তু যতদিন গিয়েছে ততই ভারতীয় জনতা পার্টির উত্থানে সেই কংগ্রেস পড়ে গিয়েছে শেষের সারিতে। আর বর্তমানে তাদের এতটাই দুর্দশা যে, রাজনৈতিক অস্তিত্ব জানান দিতে বামেদের সঙ্গে জোট করতে হচ্ছে হাত শিবিরকে।

আর এই পরিস্থিতিতে একদিকে সাংগঠনিক দুর্বলতা আর অন্যদিকে কংগ্রেসের অভ্যন্তরীণ গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে চলে এল। যা প্রদেশ কংগ্রেসকে রীতিমতো অস্বস্থিতে ফেলছে বলেই মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের। সূত্রের খবর, এবার কংগ্রেস প্রভাবিত শ্রমিক সংগঠন আইএনটিইউসির আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি পদে বদলি নিয়ে তীব্র কোন্দল শুরু হয়ে গেল।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, গত রবিবার শিলিগুড়িতে কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের রাজ্য সভাপতি কামরুজ্জামান কামার আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি পদে বদল আনেন। যেখানে আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতির পদ থেকে প্রণব বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরিয়ে নিয়ে আসা হয় বিবেকানন্দ বসুকে। আর রাজ্য সভাপতি এই ধরনের ঘোষণা করার পরই এই ব্যাপারে সরব হন প্রাক্তন সভাপতি প্রণব বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন তিনি বলেন, “আমি এই বিষয়ে কিছু জানি না। প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বকে এড়িয়ে এভাবে কোনো জেলা শ্রমিক সংগঠনের সভাপতিকে সরানোর নিয়ম নেই। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র আমাকে সংগঠনের জেলা সভাপতি হিসেবে কাজ চালিয়ে যেতে বলেছেন। তাই আমি এখনও আলিপুরদুয়ার জেলা কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি পদে আছি।”

একইভাবে প্রণব বন্দ্যোপাধ্যায় যার অনুগামী, সেই প্রাক্তন কংগ্রেস বিধায়ক দেবপ্রসাদ রায় বলেন, “সোমেনবাবু আমাকে জানিয়েছেন, প্রণববাবু এখনও আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি পদে আছেন।” তবে রাজ্য সভাপতির তরফ থেকে নাম ঘোষণা হওয়া বিবেকানন্দ বসু কি বলছেন!

এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “রাজ্য সভাপতি ছাড়া কারও এক্তিয়ার নেই, জেলা সভাপতির নাম ঘোষণা করার। সংগঠনের রাজ্য সভাপতি যে নিয়োগপত্র আমাকে দিয়েছেন, তার কাগজও আমার কাছে রয়েছে।” আর এই গোটা ঘটনায় আলিপুরদুয়ার জেলায় কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের অন্দরে যে তীব্র গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্যে চলে এল, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত বিশ্লেষকরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!