এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রশাসক পদে বসার পর বিস্ফোরক অভিযোগ উঠলো মেয়রের বিরুদ্ধে ! ক্ষোভে ফুঁসছে ঘাসফুল শিবির

প্রশাসক পদে বসার পর বিস্ফোরক অভিযোগ উঠলো মেয়রের বিরুদ্ধে ! ক্ষোভে ফুঁসছে ঘাসফুল শিবির



সম্প্রতি মেয়াদোত্তীর্ণ শিলিগুড়ি পৌরসভায় প্রশাসক বোর্ড গঠন করেছে রাজ্য সরকার। যেখানে প্রশাসক করা হয়েছে শিলিগুড়ি পৌরসভার প্রাক্তন মেয়র অশোক ভট্টাচার্যকে। অশোকবাবু বাম নেতা হলেও, তাকে সেই পৌরসভার প্রশাসক করে রাজধর্ম পালন করেছে রাজ্য সরকার। রাজ্য সরকারের এই প্রস্তাবে অশোকবাবু রাজি হয়ে যাওয়ায় এবং শিলিগুড়ি পৌরসভার প্রশাসক হওয়ায় কিছুটা হলেও চাপে পড়ে তার দল সিপিএম।

যেখানে কলকাতা পৌরসভা ফিরহাদ হাকিমকে প্রশাসক করা হলে, তার চরম বিরোধিতা করে সিপিএম, সেখানে কেন অশোকবাবু এই পদ দখল করলেন এবং এতে কেন্দ্র করে জনমানসে সিপিএম সম্পর্কে ভুল বার্তা যাবে বলে দলের অন্দরে দাবি তুলতে শুরু করেন অনেকেই। তবে তিনি দায়িত্ব ছেড়ে পালাবেন না। তাই তিনি এই দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন বলে জানিয়ে দেন অশোক রঞ্জন ভট্টাচার্য। এদিকে অশোকবাবুকে রাজ্য সরকার এই ধরনের পদ দেওয়ায় তার সাথে তৃণমূলের সমঝোতা শুরু হয়েছে বলে অভিযোগ করে বিজেপির অনেকে।

এমনকি তৃণমূলের শিলিগুড়ি পৌরসভার প্রাক্তন বিরোধী দলনেতা রঞ্জন সরকারের সঙ্গে অশোক ভট্টাচার্যের সৌজন্য সাক্ষাৎ হতেও দেখা যায়। যার পরে সেই জল্পনা আরও তীব্র হয়। কিন্তু এবার প্রশাসক হওয়ার পরেই তৃণমূলকে পাত্তা না দেওয়ার অভিযোগ উঠল সেই অশোক ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে। যেখানে এবার তৃণমূলের পক্ষ থেকে সেই অশোক ভট্টাচার্যকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করা হচ্ছে। যার ফলে তৈরি হয়েছে শাসক-বিরোধী রাজনৈতিক তরজা। ভয়ঙ্কর দুর্যোগ নিয়ে প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়ার পর থেকেই বৈঠক করে চলেছেন সেই অশোক রঞ্জন ভট্টাচার্য। বোর্ডের সদস্যদের নিয়ে বৈঠক করতে দেখা যায় তাকে। তবে সেই বৈঠকে কেন তাদের ডাকা হল না, তা নিয়ে এবার পৌরসভার প্রশাসকের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

এদিন এই প্রসঙ্গে অশোক রঞ্জন ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে সরব হয়ে দার্জিলিং জেলার তৃণমূলের সভাপতি তথা শিলিগুড়ি পৌরসভার প্রাক্তন বিরোধী দলনেতা রঞ্জন সরকার বলেন, “পৌরসভার প্রশাসক বোর্ড গঠনের আগে থেকেই প্রশাসককে সর্বতোভাবে সহযোগিতা করার কথা ঘোষণা করেছি। নিজে থেকে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলে এসেছি। কিন্তু গদিতে বসার পর থেকেই অশোকবাবু রাজনীতি শুরু করে দিয়েছেন। ওনার বোঝা উচিত, এটা নির্বাচিত নয়, এটা রাজ্য সরকারের মনোনীত বোর্ড। সরকারের ক্ষমতা ভোগ করার পাশাপাশি রাজনীতি করবেন, এটা আমরা মেনে নেব না।” আর দুর্যোগ নিয়ে প্রশাসক বোর্ডের সদস্যদের সঙ্গে অশোক রঞ্জন ভট্টাচার্য বৈঠক করলেও, কেন সেখানে বাইরের কাউকে ডাকা হল না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তৃণমূলের রঞ্জন সরকার।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তিনি বলেন, “সুপার সাইক্লোনের পূর্বাভাস থাকলেও চেয়ারম্যানের কোন হুঁশ ছিল না। সোমবার উপযাচক হয়ে তার সঙ্গে দেখা করে আমরা বিপর্যয় মোকাবিলা নিয়ে বৈঠক ডাকার প্রস্তাব দিই। এদিন বৈঠক করবেন বলেও জানিয়েছিলেন। কিন্তু বৈঠকে আমাদের ডাকলেন না। চেয়ারে বসে উনি যথারীতি রাজনীতি শুরু করে দিয়েছেন। আমরা এটা আর হতে দেব না।” এদিকে রঞ্জনবাবু অশোক রঞ্জন ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তুললেও, তাকে গুরুত্ব দিতে নারাজ শিলিগুড়ি পৌরসভার প্রশাসক অশোক ভট্টাচার্য‌।

তিনি বলেন, “বিপর্যয় মোকাবিলা করতে জরুরি ভিত্তিতে ওই বৈঠক ডাকা হয়েছে। ওনারা এখন বোর্ডের সদস্য নন। তাই এই মুহূর্তে বোর্ডের সদস্য ছাড়া কাউকে বৈঠকে ডাকতে পারি না। তাই বিরোধীদের ডাকা হয়নি।” রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন, দুর্যোগ নিয়ে শাসক-বিরোধী তরজা সত্যি দুর্ভাগ্যজনক। তবে সরকারের তরফে প্রশাসক টদ পাওয়ার পর অশোক ভট্টাচার্য সকলকে নিয়ে চলবেন বলে মনে করা হয়েছিল।

এমনকি সরকারের পক্ষ থেকে যেহেতু তিনি প্রশাসক পদ পাচ্ছেন, সেহেতু তিনি তৃণমূলকেও গুরুত্ব দিয়ে চলতে পারেন বলে দাবি করেছিল সমালোচক মহলের একাংশ। তবে এবার প্রশাসক পদে বসার সাথে সাথেই তার বিরুদ্ধে যেভাবে রাজনীতি করার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের পক্ষ থেকে, তা নিঃসন্দেহে শিলিগুড়ি পৌরসভায় তৃণমূল বনাম সিপিএমের যুদ্ধকে প্রকাশ্যে নিয়ে এল বলেই মত রাজনৈতিক মহলের।

এখনো পর্যন্ত এই নিয়ে তৃণমূল নেত্রীর কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি তবে রাজনৈতিকমহলের ধারণা তিনি অবশ্যই এই নিয়ে ক্ষুব্ধ হবেন কেননা তিনি যেমন সৌজন্য দেখিয়ে রাজধর্ম পালন করেছিলেন অশোকবাবুকে প্রশাসক পদে বসিয়ে ঠিক তেমনিই তাঁর কাছ থেকেও আসা করেছিলেন যে তিনিই কোনো রাজনীতি না করে রাজধর্ম পালন করবেন। কিন্তু তা হলো না ফলে এই নিয়ে খুব বাড়াটাই স্বাভাবিক।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!