এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বিপুল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল কেন্দ্রীয় সংস্থা

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বিপুল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল কেন্দ্রীয় সংস্থা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স দলের সভাপতি ফারুক আব্দুল্লার বিপুল সম্পত্তির বাজেয়াপ্ত করল কেন্দ্রীয় সংস্থা ইডি। জম্মু-কাশ্মীর ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের আর্থিক দুর্নীতির মামলার তদন্ত ভার রয়েছে কেন্দ্রীয় সংস্থা ইডির হাতে। জম্মু-কাশ্মীর ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের আর্থিক দুর্নীতির মামলায় অভিযুক্ত হয়েছেন ন্যাশনাল কনফারেন্স এর সভাপতি ফারুক আব্দুল্লা। আবার গত ২০১৮ সালে জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আব্দুল্লা সহ ৪ জন অভিযুক্তর নামে ইডি চার্জশিট দাখিল করেছিল।

ইডির আধিকারিকেরা অভিযোগ করেছেন যে, জম্মু-কাশ্মীরে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি থাকবার সময় নিজের ক্ষমতার অপব্যবহার করে আর্থিক দুর্নীতি ও নিয়োগ সংক্রান্ত বিরাট দুর্নীতি করেছেন ন্যাশনাল কনফারেন্স এর সভাপতি ফারুক আব্দুল্লা। এছাড়া, তাঁর এই সংস্থা সূত্রে ২৫ কোটি টাকার লেনদেনকে অবৈধ বলে ঘোষণা করেছে ইডি। কারণ, এই লেনদেনের কোন বৈধ নথি এখনো পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। যদিও তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আব্দুল্লা।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সম্প্রতি, কেন্দ্রীয় সংস্থা ইডি ফারুক আব্দুল্লার চারটি জমি, তিনটি বাসভবন, একটি বাণিজ্যিক সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে নিলো। এই সমস্ত সম্পত্তির মূল্য প্রায় ১১.৮৬ কোটি টাকা। তবে বর্তমানের বাজার মূল্যের নিরিখে বিচারে এর মূল্য হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৬০ থেকে ৭০ কোটি টাকা। এভাবে বিপুল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার পর চরম বিপাকে পড়েছেন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আব্দুল্লা। প্রসঙ্গত, গত বছর কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিল করে দেবার পর পর দীর্ঘ সময় ধরে গৃহবন্দী ছিলেন ফারুক আব্দুল্লা, মেহবুবা মুফতি সহ কাশ্মীরের বেশকিছু রাজ্য নেতা-নেত্রী। এই ঘটনাকে তাঁরা তাঁদের প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি হিংসা বলে অভিযোগ করেছিলেন।

গৃহবন্দি অবস্থা থেকে মুক্তির পর এবার তাঁর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার ঘটনাকে আবার প্রতিহিংসা বলে মন্তব্য করলেন ফারুক আব্দুল্লার পুত্র ওমর আব্দুল্লা। ওমর দাবি করেছেন যে, ইডি তাঁদের যে সম্পত্তিগুলি সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করেছে, সেই সব সম্পত্তিগুলি তাঁরা উত্তরাধিকার সূত্রে পেয়েছিলেন। এ প্রসঙ্গে একটি টুইট করে ওমর আব্দুল্লা জানিয়েছেন যে, যে সম্পত্তিগুলি ইডি বাজেয়াপ্ত করেছে, তার বেশিরভাগটাই হলো ১৯৭০ সালের সম্পত্তি। এই সম্পত্তির মধ্যে থাকা শেষ বাড়িটি তৈরি হয়েছিল ২০০৩ সালে। অন্যদিকে, ফারুক আব্দুল্লা দাবি করেছেন যে, জম্মু-কাশ্মীর ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের আর্থিক দুর্নীতির মামলার সঙ্গে তাঁর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার কোন সম্পর্কই থাকতে পারে না। তিনি দাবি করেছেন যে, কেন্দ্রীয় সংস্থা ইডি তদন্তর প্রথমেই ব্যর্থ হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!