এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রধানমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের পর শুভেন্দুর আচরণ নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে, এর মধ্যেই শুভেন্দুকে আক্রমণ রাজ্যের অন্যতম হেভিওয়েট মন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের পর শুভেন্দুর আচরণ নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে, এর মধ্যেই শুভেন্দুকে আক্রমণ রাজ্যের অন্যতম হেভিওয়েট মন্ত্রীর



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – গত সোমবার শুভেন্দু অধিকারীকে দেখা গিয়েছিল তড়িঘড়ি কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের ডাকে দিল্লি দৌড়াতে। সেখানেই তিনি পরপর বৈঠক চালিয়ে যাচ্ছিলেন। এমনকি রাজ্যে 356 ধারা জারি করা নিয়েও তিনি ইতিবাচক ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। কিন্তু আজকে হঠাৎ ছন্দপতন। আজ প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকে যোগ দেওয়ার কথা ছিল রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর। শোনা যাচ্ছে, যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে যোগ দিতে ঢুকতে দেখা গেলেও শুভেন্দুকে বেরোনোর পর কিন্তু আগের মেজাজে পাওয়া যাচ্ছেনা, আর এই নিয়েই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে তীব্র গুঞ্জন। তার মধ্যেই এবার শুভেন্দুকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

তবে সংবাদমাধ্যমের সামনে অবশ্য শুভেন্দু অধিকারী বিশেষ কিছুই বলেননি। কিন্তু তাই বলে বাংলার শাসক দলের নেতারা শুভেন্দু অধিকারীকে ছেড়ে দেননি। সেক্ষেত্রে রাজ্যের অন্যতম মন্ত্রী তথা তৃণমূল হেভিওয়েট ফিরহাদ হাকিম এবার শুভেন্দু অধিকারীকে একহাত নিলেন বলে জানা গেছে। প্রসঙ্গত, আজকে শুভেন্দু অধিকারীকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠকে যোগ দিতে দেখা যায়। 45 মিনিট বৈঠক চলার পর শুভেন্দু অধিকারী বেরিয়ে আসেন। কিন্তু সংবাদ সূত্রে জানা যাচ্ছে, শুভেন্দু অধিকারী বেরিয়ে আসার পর তাঁকে সেভাবে আত্মবিশ্বাসী লাগেনি। তবে শুভেন্দু সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, তিনি পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক পরিস্থিতি, আইনগত বিষয়, উন্নয়ন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেছেন।

তবে শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছেন, রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গেই তিনি কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করবেন। প্রসঙ্গত, শুভেন্দু অধিকারীর দিল্লি যাওয়া নিয়ে ইতিমধ্যেই গেরুয়া শিবিরে শুরু হয়েছে অন্তর্কলহ। এমনকি, রাজ্যের বিরোধী দলনেতার দিল্লি যাওয়া নিয়ে ইতিমধ্যেই রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়ে দিয়েছেন তিনি এ ব্যাপারে কিছু জানেন না। আর তাই নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে উঠেছে। অন্যদিকে শুভেন্দু অধিকারীকে রাজ্যের অন্যতম মন্ত্রী তীব্র আক্রমণ করেছেন এদিন। তিনি স্পষ্ট ভাষায় জানিয়েছেন, তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গিয়ে শুভেন্দু অধিকারী ফেঁসে গিয়েছেন। সে ক্ষেত্রে নিজেকে বাঁচাতে এবং নিজের পদ বাঁচাতে তিনি বারংবার দিল্লি দৌড়াচ্ছেন বলে দাবী ফিরহাদ হাকিমের।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত মনে করা হচ্ছে, এক্ষেত্রে ফিরহাদ হাকিম নারদ তদন্ত মামলার অন্যতম অভিযুক্ত শুভেন্দু অধিকারীকে খোঁচা দিয়েছেন ভালোই। পাশাপাশি  ফিরহাদ হাকিমের বক্তব্য হল গেরুয়া শিবির বর্তমানে বুঝতে পেরেছে শুভেন্দু অধিকারীকে দলে নিলেই শুধু হবেনা, রাজ্যের ক্ষমতা দখল করতে গেলে মানুষ পাশে পাওয়া অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। এক্ষেত্রে তিনি বাম জমানায় তৃণমূলের ক্ষমতায় আসার উদাহরণ দিয়েছেন এবং সেখানে উল্লেখ করেছেন তিনি, মানুষকে পাশে নিয়েই কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাম শক্তিকে উৎখাত করেছিল এ রাজ্য থেকে। পাশাপাশি ফিরহাদ হাকিম আজকে বিস্ফোরক ভাবে বলেছেন, শুভেন্দু অধিকারী এই মুহূর্তে যেসব মন্তব্য করছেন তা গেরুয়া শিবিরের পছন্দের কথা।

এক্ষেত্রে রাজ্যে 356 ধারা প্রয়োগ এবং আইন ব্যবস্থার সমালোচনার দিকেই ইঙ্গিত করছেন ফিরহাদ হাকিম বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে। একইসাথে ফিরহাদ হাকিম দলবদলু নেতাদের জন্যও বার্তা দিয়েছেন। তাঁর মতে যারা বিজেপিতে গিয়ে এখন তৃণমূলে ফেরার কথা ভাবছেন যারা, সেক্ষেত্রে বলা যেতে পারে তাঁদের মোহভঙ্গ হয়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত ফিরহাদ হাকিমের এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে শুভেন্দু অধিকারীর পাল্টা কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। অন্যদিকে, রাজনৈতিক মহলে কিন্তু আজকে শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকে আসলে কি হয়েছে তা নিয়ে কৌতুহল তুঙ্গে উঠেছে। তবে এ ব্যাপারে শুভেন্দু অধিকারী কোনো আলোকপাত করেন কিনা সেটাই দেখার।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!