এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রধানমন্ত্রীর সফর ঘিরে আজ রাজ্য উত্তাল, চিন্তার ভাঁজ বাংলার প্রশাসনের কপালে

প্রধানমন্ত্রীর সফর ঘিরে আজ রাজ্য উত্তাল, চিন্তার ভাঁজ বাংলার প্রশাসনের কপালে



দ্বিতীয় দফায় প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর আজ শনিবার দ্বিতীয় বার কলকাতায় আসছেন নরেন্দ্র মোদী। নাগরিকত্ব বিল পাস হওয়ার পর এটাই তাঁর প্রথম বাংলা সফর। এই সফরকে কেন্দ্র করে তুমুল বিক্ষোভের আশঙ্কা রয়েছে কলকাতায়। উল্লেখ্য, গত কালই গেজেট বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নাগরিকত্ব আইন কার্যকর করার কথা ঘোষণা করেছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। দেশজুড়ে এমনিতেই নাগরিকত্ব আইন নিয়ে তুমুল আন্দোলন ছড়িয়ে পড়েছে, আর সেই আন্দোলনকে এককথায় নাকচ করে দিয়ে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রক যথেষ্ট অনড় মনোভাব দেখাচ্ছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। ঠিক এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাজ্য সফরে আসছেন যা যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ।

এমনিতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কলকাতা সফর ঘিরে বিক্ষোভের আশঙ্কা আছে। এই ইঙ্গিত আগেই প্রশাসন দিয়েছে। তবে বিক্ষোভের কোন প্রভাব যাতে প্রধানমন্ত্রীর ওপর না পড়ে সে ব্যাপারে নিশ্চিত করতে বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর সফরসূচিতে। ইতিমধ্যে জানা গেছে প্রধানমন্ত্রী তার সড়কপথে রাজ্যে আগমন যতটা সম্ভব বাতিল করেছেন। তিনি আকাশপথে রাজ্যে আসছেন। বিরোধীদের বক্তব্য, তিনি বিক্ষোভ এড়াতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে রাজনৈতিক মহলের একাংশের দাবি, এভাবে এলেও তিনি রাজ্যে বিক্ষোভের আঁচ কতটা কাটাতে পারবেন, তা নিয়ে সন্দেহ আছে। ইতিমধ্যে জানা গেছে, বাম ও কংগ্রেস দল মোদিকে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান দিতে উদ্যত। সেই সঙ্গে বেশ কিছু নাগরিক মঞ্চও প্রধানমন্ত্রী মোদিকে প্রত্যাখ্যান করবেন ‘গো ব্যাক’ স্লোগানের মাধ্যমে।

সূত্রের খবর, শনিবারের দুপুরে কলকাতা বিমানবন্দরে পা রাখছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এয়ারপোর্ট থেকেই তিনি সোজা রাজভবনের উদ্দেশ্যে রওনা হবেন। সেখানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একসাথে একটি বৈঠকে বসবেন। এরপর তিনি বিবাদীবাগ যাবেন। সেখানে প্রধানমন্ত্রীর বেশ কিছু উদ্বোধন কর্মসূচী আছে বলে জানা গেছে। এরপর তিনি মিলেনিয়াম পার্কে যাবেন গঙ্গার ধারে, সেখান থেকে হাওড়া ব্রিজের লাইট অ্যান্ড সাউন্ড সৌন্দর্যায়ন প্রকল্পটি উদ্বোধন করবেন। মোদির এরাজ্যের কর্মসূচিগুলি মাথায় রেখেই দুপুরেই ধর্মতলায় জমায়েতের ডাক দিয়েছে বামফ্রন্ট।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে, ধর্মতলাতেই অন্য একটি সংগঠন জমিয়ত-এ-উলেমা-এ-হিন্দ মোদির বিরুদ্ধে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে। অন্যদিকে প্রদেশ কংগ্রেসের ছাত্র ও যুব সংগঠন ওয়াজ বিভিন্ন জায়গায় তাঁদের বিক্ষোভ কর্মসূচি রেখেছে সিএএ এর বিরুদ্ধে। সূত্রের দাবি, প্রধানমন্ত্রীর যে কর্মসূচি রয়েছে সারাদিনে, তাতে বেশিরভাগ সময়ই তাঁর সাথে থাকবেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। তবে তৃণমূলের পক্ষ থেকে আলাদা করে কোনো বিক্ষোভ কর্মসূচি এদিন নেই। কিন্তু তৃণমূল ছাত্র পরিষদ যথারীতি রানী রাসমণি অ্যাভিনিউতে অবস্থান-বিক্ষোভ চালাবে বলে জানা গেছে।

ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রীকে বিক্ষোভ দেখানো নিয়ে বাম সংগঠনগুলো নিজেদের শাখা সংগঠন গুলিকে যথেষ্ট সতর্ক করেছে। তাঁদের দাবি, প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ আটকাতে আজ রাজ্য প্রশাসন যথেষ্ট প্রতিরোধ করতে পারে। তবে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে শুধু রাজনৈতিক দল না, সাধারণ নাগরিকদের বেশ কিছু সংগঠন নাগরিকত্ব আইন এর বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীকে বিক্ষোভ দেখাবে বলে ঠিক হয়ে রয়েছে। এখনো অব্দি নিঃসন্দেহে এতগুলি বিক্ষোভ কর্মসূচি প্রধানমন্ত্রী মোদির বিরুদ্ধে যেখানে রয়েছে, সেখানে এরাজ্যের প্রশাসন যথেষ্ট চিন্তিত প্রধানমন্ত্রীর সফরসূচি নিয়ে।

নাগরিকপঞ্জি এবং সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে ইতিমধ্যে পশ্চিমবঙ্গ সহ সারাদেশে উত্তপ্ত। তার মধ্যেই গণতন্ত্র দিবসে লালকেল্লার সামনের কুচকাওয়াজের অনুষ্ঠান থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের ট্যাবলো। গত বছরের প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজে পশ্চিমবঙ্গকে রাখা হলেও এবছরের বাংলার প্রস্তাব খারিজ করে দিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কমিটি। যা নিয়ে কেন্দ্র ও রাজ্যের মধ্যে সংঘাতের মাঝেই এদিন কলকাতায় প্রধানমন্ত্রী মোদীর আগমন যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। অন্যদিকে, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, রাজ্যে সামনেই পুরভোট এবং সামনের বছর বিধানসভা নির্বাচন। কাজেই এই পরিস্থিতিতে নরেন্দ্র মোদী যদি এসে এরাজ্যে জনসভা করেন, তাহলে তৃণমূল স্তর পর্যন্ত বিজেপি কর্মীরা উজ্জীবিত হবেন বলে আশা রাখেন রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। আপাতত সম্পূর্ণ পরিস্থিতির ওপর নজর রাখতে চলেছে রাজনৈতিক বিশ্লেষকগণ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!