এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > পশ্চিমবঙ্গের ঘোষিত রেলপ্রকল্পগুলি আজও থমকে, তৎকালীন রেলমন্ত্রীরা আজ দলে ভাগ

পশ্চিমবঙ্গের ঘোষিত রেলপ্রকল্পগুলি আজও থমকে, তৎকালীন রেলমন্ত্রীরা আজ দলে ভাগ



রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও তার দুই তৎকালীন দলীয় সতীর্থ দীনেশ ত্রিবেদী এবং মুকুল রায় রেলমন্ত্রী পদে ছিলেন, সেসময় রেল বাজেটে এ রাজ্যের জন্য প্রকল্প ঘোষণা হলেও এখনো পর্যন্ত বেশিরভাগ প্রকল্পের ভবিষ্যত বাংলায় অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। অনেক প্রকল্পের দেখা নেই পশ্চিমবঙ্গে। অনেক প্রকল্প বন্ধ হয়ে গেছে। আর সেই নিয়ে এবার রেল বাজেটের আগে বিরোধীরা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের দিকে টীকা টিপ্পনী ছুঁড়ে দিয়ে তীব্র কটাক্ষ শুরু করেছে। নরেন্দ্র মোদী জমানায় রেল প্রকল্প রূপায়ণের জন্য রাজ্য সরকারের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে কোম্পানি তৈরীর প্রস্তাব পাঠিয়েছিলেন রেলমন্ত্রী, কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী এব্যাপারে কোন সাড়া দেননি এখনো পর্যন্ত।

উল্লেখ্য, 2012 সালে রেল বাজেট পেশ করার পরেই রেলমন্ত্রী দীনেশ ত্রিবেদীর বদলে আসন গ্রহণ করেছিলেন তৎকালীন তৃণমূল সাংসদ মুকুল রায়। প্রসঙ্গত, 2012-13 সালে রেল বাজেট পেশ করে রেলমন্ত্রী দীনেশ ত্রিবেদী রেল ভাড়া বাড়ানোর প্রস্তাব রেখেছিলেন। কিন্তু তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেসময় এই ভাড়া বাড়ানোর প্রস্তাব তৎক্ষণাৎ নাকচ করে দেন এবং রাষ্ট্রপতির কাছে পুরনো রেলমন্ত্রী পরিবর্তন করে নতুন রেলমন্ত্রী আনার প্রস্তাব জানান।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তৎকালীন রেলমন্ত্রী দীনেশ ত্রিবেদী 2012-13 সালের রেল বাজেটে প্রস্তাব দেন রেল ভাড়া বাড়ানোর। কারণ তিনি দাবি করেছিলেন, সেই সময়ে রেলের আর্থিক পরিস্থিতির কারণে রীতিমত আইসিইউতে পৌঁছে গেছে রেল। সেখান থেকে বের করার জন্য রেলের ভাড়া বাড়ানো ছাড়া আর কোনো রাস্তা ছিল না। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই প্রস্তাব জানার পরেই সরাসরি তাঁর আপত্তি সর্বসমক্ষে জানিয়ে দেন। এই ঘটনাটি যে সময় হয়েছিল, সে সময় কেন্দ্রে ছিল ইউপিএ সরকার এবং তৃণমূল ছিল ইউপি এর শরিক দল।কিন্তু কার্যক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে তৎকালীন রেলমন্ত্রী জা বলেছিলেন সেসময় আজ তাই ফলেছে। রেলের অবস্থা এতটাই সংকটজনক যে মোদী সরকার রেলকে বেসরকারীকরণের দিকে নিয়ে চলেছেন।

এখনো পর্যন্ত তৃণমূল নেতৃত্ব কৌশলে ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পটি রাজ্যের অংশ হিসেবে বরং রেল মন্ত্রকের হাতে তুলে দিতে পেরেছিলেন। এজন্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভাও বিশেষ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। তবে উল্লেখযোগ্য, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রেলমন্ত্রী থাকাকালীন ঘোষণা হয়েছিল তারকেশ্বর বিষ্ণুপুর সাড়ে 9 মিটার দীর্ঘ রেল লাইন পাতার কাজ নিয়ে। যা এখনো পর্যন্ত সম্পূর্ণ হয়নি। জানা গেছে এই কাজটি সম্পূর্ণ অর্থাভাবের জন্যই থমকে রয়েছে। আপাতত রেল নিয়ে সম্পূর্ণ পরিস্থিতির ওপর নজর রেখেছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞগণ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!