এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুলিশকে গালিগালাজ-মারধর করে গ্রেপ্তার হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার আত্মীয়

পুলিশকে গালিগালাজ-মারধর করে গ্রেপ্তার হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার আত্মীয়



“আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে যদি কেউ কোনো বেআইনি কাজ করেন, তাহলে সে যে দলেরই হোক না কেন তাকে গ্রেপ্তার করতে হবে”- ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাজ্যের সমস্ত জেলার প্রশাসনিক বৈঠকগুলি থেকে পুলিশ প্রশাসনের উদ্দেশ্যে এমনই বার্তা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রশাসনিক প্রধানের সেই বার্তাই কাজের মধ্যে দিয়ে প্রমান করে দেখালেন হাওড়ার গোলাবাড়ি থানার পুলিশ। জানা গেছে, গত রবিবার হাওড়ার জি টি রোড ও অবনী দত্ত রোডের সংযোগস্থলে বিশেষ এক চেকিংয়ের ব্যাবস্থা করেছিল পুলিশ।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সেই সময়ই সোনি নামে এক ব্যাক্তি সেই এলাকায় বাইক চালিয়ে গেলে পুলিশ তার গাড়ী আটকে বৈধ কাগজপত্র দেখতে চায়। তখনই নিজেকে হাওড়া কর্পোরেশনের 15 নং ওয়ার্ডেল কাউন্সিলর লক্ষী সাহানির ভাগ্নে বলে নিজেকে পরিচয় দিয়ে পূলিশকে চরম গালিগালাজ করে অভিযুক্ত যুবক। এখানেই শেষ নয়, পুলিশের পক্ষ থেকে সোনি নামের ওই যুবককে গোলাবাড়ি থানায় নিয়ে গেলে অমিত দাস নামের এক এসআইকে সেই কাউন্সিলরের ভাগ্নে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। অবশ্য রাজনৈতিক রক্তচক্ষুর কাছে নতিস্বীকার না করে হাওড়া কর্পোরেশনের কাউন্সিলরের ভাগ্নেকে গ্রেপ্তার করে গোলাবাড়ি থানার পুলিশ। এই ঘটনায় পুলিশ রাজধর্মই পালন করেছে বলে মনে করছে প্রশাসনিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!