এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > অভিনেত্রী শ্রাবন্তীকে একের পর এক অশ্লীল ম্যাসেজে উত্যক্ত করে বিদেশে পুলিশের জালে যুবক!

অভিনেত্রী শ্রাবন্তীকে একের পর এক অশ্লীল ম্যাসেজে উত্যক্ত করে বিদেশে পুলিশের জালে যুবক!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট- কিছুদিন আগেই শ্রাবন্তীর বর্তমান বিয়েটি ভেঙে যেতে চলেছে বলে টলিপাড়ায় গুঞ্জন শোনা গিয়েছিল। আর তাতে নাকি সম্মতি দিয়েছিলেন তাঁর বর্তমান স্বামীও। দেখেতে গেলে অভিনেত্রী শ্রাবন্তীর এটি তৃতীয় বিবাহ। প্রায় এক বছর ধরে সম্পর্কে থাকার পরই নাকি শ্রাবন্তী আর রোশন বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

তবে সম্প্রতি সেইসব ভালোবাসার কোনো মূহুর্তেরই প্রমান এখন আর শ্রাবন্তী বা রোশনের করো প্রোফাইলে নেই বলেই জানা গেছে। এক সংবাদ মাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, আলাদা থাকার কথা নাকি অভিনেত্রীর স্বামী রোশন স্বীকারও করে নিয়েছেন। যদিও শ্রাবন্তী নাকি তৃতীয় বিয়ে বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা করছেন বলেই জানা গেছে।

তবে এর আগে সোশাল মিডিয়ায় অশালীন আচরণের মুখে পড়তে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। যেখানে তিনি সেই কথা বাংলাদেশ হাই কমিশনকে জানাতে বাধ্য হয়েছিলেন। আর সম্প্রতি সেই বিষয়ে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা গেছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি নম্বর থেকে অনেকদিন থেকেই তাঁর নম্বরে অশ্লীল মেসেজ আসছিল বলেই অভিযোগ করেন তিনি।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

শুধু তাই নিয়ে, হোয়াটস অ্যাপ ছাড়াও ফোন করে ভারতকে গালিগালাজ করে অনেক কথা বলা হচ্ছিল। বহুদিন ধরে এমনটা চলতে থাকলেও প্রথমে সবার মতই তিনি বিষয়টাকে পাত্তা দেননি। তাই সেগুলিকে ব্লক করেই রেখেছিলেন বলে জানা যায়। তবে এরপরও এর থেকে রেহাই পাননি শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়।

ব্লক করা ছাড়াও বিভিন্ন অন্য নম্বর থেকে মেসেজ আসা শুরু হয়। আর এরপরই রীতিমতো বিরক্ত হয়ে তিনি বাংলাদেশ হাইকমিশনের দ্বারস্থ হয়েছেন বলে জানিয়েছেন। জানা গিয়েছে, ধৃতের নাম মাহাবুর রহমান। তিনি বাংলাদেশের খুলনার বাসিন্দা। বৃহ্স্পতিবার দুপুরে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। এরপর তাকে আদালতে তোলা হয়।

খুলনার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে পাঁচদিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা গেছে। বস্তুত, একজনের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিলেই বাকিরাও চুপ হতে বাধ্য হবে। আর তাই তিনি এমন পদক্ষেপ নিয়েছেন বলেই জানিয়েছিলেন অভিনেত্রী। আর সম্প্রতি সেই অন্যায়েরই সুবিচার পেলেন তিনি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!