এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বড় খবর: পদ থেকে ইস্তফা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী, নতুন মুখমন্ত্রীর অপেক্ষায় রাজ্য! জানুন বিস্তারে

বড় খবর: পদ থেকে ইস্তফা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী, নতুন মুখমন্ত্রীর অপেক্ষায় রাজ্য! জানুন বিস্তারে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সদ্যই বিহার বিধানসভা নির্বাচনের সমাপ্তি ঘটেছে। ফলাফল প্রকাশ্যে আসার পর দেখা গিয়েছে, ব্যাপক আকারে জয়লাভ করেছে এনডিএ শিবির। যদিও 2020 র বিহার বিধানসভা নির্বাচনে কিন্তু হাড্ডাহাড্ডি লড়াই দেখা গিয়েছে। আর এই লড়াইতে খুব সম্ভাবনা ছিল বিহারের মহাজোটের বিজয়ী হবার। যদিও এই সম্ভাবনা শেষ পর্যন্ত আর সফল হয়নি। আর এবার পালা বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ গ্রহণ নীতীশ কুমারের। ভোটের আগে থেকেই ঠিক করা ছিল জেডিইউ-এর পক্ষ থেকে নীতিশ কুমারই বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর পদ অধিগ্রহণ করবেন। সেই অনুযায়ী এবারের নির্বাচনে জেডিইউ পিছিয়ে থেকেও মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসতে চলেছেন নীতিশ কুমার।

এই অনুযায়ী শুক্রবার বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে নীতিশ কুমার ইস্তফা দিয়েছেন। বিহারের রাজ্যপাল ফাগু চৌহানের সঙ্গে দেখা করে। তিনি রাজ্যপালকে বর্তমান বিধানসভা ভেঙে দেওয়ারও আবেদন করেন বলে জানা গেছে। রাজ্যপালের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেওয়া এবং বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার সুপারিশের ফলে এবার বিহারে নতুন সরকার গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হবে। তবে নতুন সরকার গঠন না হওয়া পর্যন্ত রাজ্যপালের নির্দেশে নীতিশ কুমার তত্ত্বাবধায়ক মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে কাজ চালিয়ে যাবেন বলে জানা গিয়েছে। দীপাবলীর পরে আগামী 15 ই নভেম্বর নবনির্বাচিত এনডিএ বিধায়কদের একটি সভা হতে চলেছে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর সেখানেই এনডিএর নবনির্বাচিত বিধায়কদের একটি সভা হবে। আর এই সভাতেই নতুন মুখ্যমন্ত্রীর নাম হিসেবে নীতিশ কুমারের নাম উত্থাপন হবে। প্রথম থেকেই ঠিক হয়ে আছে বিহারের বিধানসভা নির্বাচনে জিতলে এনডিএর পক্ষ থেকে নীতিশ কুমার বিহারের আসনে বসতে চলেছেন। এই নিয়ে চতুর্থবারের জন্য বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিতে চলেছেন নীতিশ কুমার। প্রসঙ্গত, 2000 সালে তিনি প্রথমবার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন। বিহার বিধানসভা নির্বাচনে এনডিএ জোটের পক্ষে এসেছে 125 টি আসন।

যার ফলস্বরূপ এনডিএর পক্ষ থেকেই সরকার গঠন হতে চলেছে। যদিও এই ভোটে নীতিশের জেডিইউকে বিজেপির থেকে অনেকাংশেই পিছিয়ে থাকতে দেখা গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে শোনা যাচ্ছে, বিজেপির অন্দর থেকে কিন্তু অনেকেই আওয়াজ তুলেছেন এবার বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদে বিজেপির তরফ থেকে যেকোন বিজয়ী প্রার্থীর বসা উচিত। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বুধবার সন্ধ্যায় বিজেপির সদর দপ্তর থেকে কর্মীদের স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদে বসতে চলেছেন নীতিশ কুমার।

নীতিশ কুমারের অধীনেই বিহারের এনডিএ সরকার গঠিত হবে। উল্লেখ্য, এই নীতীশ কুমারের বিরুদ্ধেই কিন্তু বিহার বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যবাসীর ক্ষোভ সামনে এসেছিল। আর সেই ক্ষোভকেই কাজে লাগিয়েছিল বিহারের বিরোধী মহাজোট। যদিও বিজেপি পাল্টা বিহারে মোদি ম্যাজিকের প্রচার চালায়। ফলস্বরূপ বিহারের বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল এনডিএ জোটের পক্ষে এসেছে বলে মনে করা হচ্ছে। আপাতত দেখার, নীতিশ কুমার চতুর্থবারের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর পদ পেয়ে রাজ্যবাসীর ক্ষোভ কি করে প্রশমন করেন!

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!