এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > পদ ছাড়ার পর এবার দলের সদস্য পদ ছাড়লেন এই হেভিওয়েট, জোর শোরগোল রাজ্যে

পদ ছাড়ার পর এবার দলের সদস্য পদ ছাড়লেন এই হেভিওয়েট, জোর শোরগোল রাজ্যে



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – গত বুধবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের খাদ্য কর্মাধক্ষ্যের পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তৃণমূল নেতা রতন ঘোষ। এ বিষয়ে তিনি তিনি জেলাশাসককে চিঠি দিয়েছিলেন সেদিন। সেদিন বনগাঁয় মুখ্যমন্ত্রীর সভাতেও অংশগ্রহণ করেননি তিনি। গতকাল দলের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকেও ইস্তফা দিলেন তিনি। পদত্যাগ করার পর তিনি মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সীকে চিঠি দিলেন। তিনি জানিয়েছেন যে, ইতিমধ্যেই এই চিঠি পৌঁছে গেছে তৃণমূল ভবনে। চিঠিতে দলের প্রাথমিক সদস্যপদ থেকে অব্যাহতির কথা লিখেছেন তিনি।

তৃণমূল নেতা রতন ঘোষ মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েছেন যে, দলের হয়ে তাঁকে কাজ করার সুযোগ দেয়ার জন্য তিনি কৃতজ্ঞ। তিনি সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করেছেন। তিনি অনুরোধ করেছেন যে, তাঁর ইস্তফাপত্র দ্রুত গ্রহণ করতে। দলের  সমস্ত পদ থেকে এমনকি দলের প্রাথমিক সদস্যপদ থেকে তিনি কেন ইস্তফা দিলেন? এ বিষয়ে কোনো বক্তব্য রাখেননি তিনি। শুধু এটুকুই তিনি জানিয়েছেন যে, এখনই তিনি অন্য কোন দলে যোগদান করছেন না। পরবর্তী সিদ্ধান্ত সময়মতো তিনি জানিয়ে দেবেন।

দলের এই হেভিওয়েট নেতা দলের সমস্ত পদ, এমনকি সদ্যপদ ছেড়ে দেওয়ায়, তা নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। তৃণমূল দলে রতন ঘোষ এর ঘনিষ্ঠ সূত্রের খবর, তিনি দলে গুরুত্ব পাচ্ছেন না বলে, বেশ কিছুদিন ধরেই তিনি দলের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। তিনি অভিযোগ করেছিলেন যে, উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি হলেও, তাঁকে পদের যোগ্য সম্মান দেয়া হয়নি। কয়েক মাস ধরে দলের বৈঠকের আমন্ত্রণও তিনি পাননি বলে অভিযোগ করেছিলেন।

আপনার মতামত জানান -

দল ছেড়ে দেবার পর দলের বেশ কিছু নেতা তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। কেন তিনি দল ছাড়লেন? তা তাঁরা জানতে চেয়েছেন। তবে, এই বিষয়ে তিনি তাদের কিছুই জানাননি। তিনি দল ছেড়ে দেওয়ার পর কেউ কেউ বলেছেন যে, তিনি যদি দল থেকে চলে যেতে চান, তাহলে চলে যেতে পারেন। এতে কোনো ক্ষতি হবে না দলের । তবে তৃণমূলের অপরাংশের বক্তব্য, তিনি যদি তৃণমূল ছেড়ে অন্য দলে চলে যান, তবে তৃণমূলের ক্ষতি হবে। কারণ তিনি একজন দক্ষ সংগঠক।

তৃণমূল নেতা রতন ঘোষের দলের প্রাথমিক সদস্যপদ ছেড়ে দেওয়া সম্পর্কে উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানালেন, ‘‘কেউ স্বেচ্ছায় দল ছাড়তে চাইলে কী বলার থাকতে পারে। তবে মদন মিত্রকে দিয়ে রতনের সঙ্গে কথা বলিয়ে সমস্যা মেটানোর চেষ্টা করছি।’’ সম্প্রতি রতন ঘোষের সঙ্গে মদন মিত্রের কথাবার্তা হয়েছে, বলে জানা যাচ্ছে। রতন ঘোষকে বিজেপিতে আমন্ত্রণ জানালেন বিজেপির বারাসত সাংগঠনিক জেলার সভাপতি শঙ্কর চট্টোপাধ্যায়। এ প্রসঙ্গে তিনি জানালেন যে, দুষ্কৃতী ও দাগি আসামি ছাড়া সকলের জন্য দরজা খোলা আছে বিজেপির। দলে সকলকে নিয়েই সোনার বাংলা গড়তে চায় বিজেপি।

তৃণমূলের একেবারে জন্মলগ্ন থেকে রতন ঘোষ তৃণমূলে ছিলেন। বনগাঁতে তাঁর প্রচেষ্টাতে শক্তিশালী হতে পেরেছিল শাসকদল তৃণমূল। দল ছেড়ে দেবার পর বনগাঁ শহরে তার নামে পোস্টার দেখা যাচ্ছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বনগাঁর ত্রিকোণ পার্ক, প্রতাপগড়, বাটার মোড় সহ বিভিন্ন স্থানে তাঁর ছবি দেওয়া পোস্টার পাওয়া গেছে। যেখানে লেখা আছে ,” আমরা দাদার অনুগামী, দাদা তোমার পথই আমাদের পথ ” । তাঁর নাম দেওয়া পোস্টার বিষয়ে রতন ঘোষকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানালেন, ‘‘সকালে আমি শুনেছি। যাঁরা আমার অনুগামী পরিচয় দিয়ে পোস্টার দিয়েছেন তাঁদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আগামী দিনের আমার রাজনৈতিক লড়াইয়ে আমি ওঁদের নিয়ে চলব।’’

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!