এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > স্বয়ং প্রধামন্ত্রীর বিরুদ্ধে ‘মাকে’ বিক্রি করার বিস্ফোরক অভিযোগ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের!

স্বয়ং প্রধামন্ত্রীর বিরুদ্ধে ‘মাকে’ বিক্রি করার বিস্ফোরক অভিযোগ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের!



রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে কেন্দ্রের শাসক দল ভারতীয় জনতা পার্টির বৈরিতার কথা কারোরই অজানা নয়। বর্তমানে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে তৃণমূলের বিরোধীতা বিজেপির সঙ্গে তাদের শত্রুতাকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। বস্তুত, প্রায় প্রতি সময়ই নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে ভারতবর্ষের বিভাজন সৃষ্টির মত অভিযোগ আনতে দেখা যায় তৃণমূলের সাংসদদের। আর এবার তার থেকেও ভয়ানক অভিযোগ এনে সংসদে প্রধানমন্ত্রীকে বেনজির ভাষায় আক্রমণ করতে দেখা গেল তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

সূত্রের খবর, এদিন লোকসভার অধিবেশন উপস্থিত হয়ে বাজেট বিতর্কে অংশ নেন তৃণমূলের এই হেভিওয়েট সাংসদ। আর সেখানেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে ভারতমাকে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ আনেন তিনি। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “মুখে দেশপ্রেমের কথা বললেও বাস্তবে ভারত মাকে বিক্রি করে দিচ্ছেন। মেরুদন্ড থাকলে বিএসএনএল, রেল, এলআইসির মত সংস্থার বিক্রি বন্ধ করুন। মেক ইন ইন্ডিয়া, ফিট ইন্ডিয়া, খেলো ইন্ডিয়া, স্ট্যান্ড আপ ইন্ডিয়ার পর কি এবার বেচো ইন্ডিয়া?” আর এরপরই বিজেপির দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আপনারা নকল দেশপ্রেমী। তাই ভারতীয় সেনার কৃতিত্ব নিয়ে রাজনীতি করেন। দেশের প্রকৃত সমস্যা মেটানোর কোনো রাস্তা দেখাতে পারেন না।”


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিকে এদিন বেসরকারি সংস্থার সরকারি সম্পত্তি বিক্রি করে দেওয়া নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সরব হওয়ার পাশাপাশি, রেল প্রকল্পে বাংলার প্রতি বঞ্চনা হয়েছে বলেও সরব হন তৃণমূলের সেকেন্ড-ইন-কমান্ড। এদিন তিনি বলেন, “বাংলায় রেল প্রকল্পে মাত্র হাজার টাকা ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর থেকে বড় বঞ্চনার কি আছে! অর্থনীতি চাঙ্গা করার বদলে 3 বার তা খুন হয়েছে। নোট বন্দি, জিএসটি এবং দুই হাজার কুড়ি সালের বাজেট। তিনটিতে অর্থনীতি খুন হয়েছে। বাজেটে অ্যাসপিরেশনাল ইন্ডিয়ার কথা বলা হলেও, আদতে তা অটোক্রেসি ছাড়া কিছু নয়। এভাবে ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট আর কেয়ারিং ইন্ডিয়া আদতে আর্থিক সংকট এবং নৃশংসতার রুপ নিয়েছে।”

এদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন নীতি নিয়ে মন্তব্য করার পাশাপাশি, এদিন বাংলার রাজভবনকে বিজেপির রাজ্য নেতাদের আবাসস্থল বলেও কটাক্ষ করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “রাজভবন কি এখন বিজেপির অবসরপ্রাপ্ত নেতাদের আবাসস্থল হয়ে গিয়েছে!” সব শেষে একটি শ্লোগান দিয়ে সংসদের বিরোধী কণ্ঠস্বরকে তুলে ধরার চেষ্টা করেন তৃণমূলের ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ। তিনি বলেন, “সবকা সাথ, সবকা বিকাশ স্লোগান নয। দেশ কা ভুল, কমল কা ফুল।”

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এদিন সংসদে দাঁড়িয়ে বাজেট বিতর্কে অংশ নিয়ে বাংলার প্রতি বঞ্চনার কথা তুলে ধরে যেমন বিজেপিকে আক্রমণ করলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, ঠিক তেমনই ভারতমাকে বিক্রি করা হচ্ছে বলেও নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে মন্তব্য করতে দেখা গেল তাকে। সব মিলিয়ে ফের বিজেপির বিরুদ্ধে সংসদে ঝড় তুললেন ডায়মন্ডহারবারের তৃণমূল সাংসদ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!