এখন পড়ছেন
হোম > আন্তর্জাতিক > প্লাস্টিকের অত্যাচার থেকে বাঁচতে চলেছে বিশ্ব? এসে গেল প্লাস্টিক ‘ খেকো ‘ ব্যাকটেরিয়া?

প্লাস্টিকের অত্যাচার থেকে বাঁচতে চলেছে বিশ্ব? এসে গেল প্লাস্টিক ‘ খেকো ‘ ব্যাকটেরিয়া?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – ‘ প্লাস্টিক ‘ শব্দটি এসেছে গ্রিক শব্দ ‘ প্লাস্টিকোস ‘ থেকে যার অর্থ অপরিবর্তিত থাকতে সক্ষম। ঊনবিংশ শতাব্দীতে শিল্প বিপ্লবের সময় বিকশিত শিল্প রসায়ন এর মাধ্যমে এর জন্ম বলে মনে করা হয়। প্লাস্টিক তৈরি হয় জৈব পলিমারের মাধ্যমে, যার মধ্যে কার্বন নাইট্রোজেন ও সালফারের অস্তিত্ব পাওয়া যায়।

বিভিন্নতার দিক থেকে প্লাস্টিক কে অনেক ভাবে ভাগ করা গেলেও সাধারণত স্ট্যান্ডার্ড প্লাস্টিক এবং ইঞ্জিনিয়ারিং প্লাস্টিক এই দুটো ভাগে ভাগ করা যায়। বর্তমানে প্লাস্টিকের বহুল ব্যবহারের জন্য যেভাবে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে তা নিয়ে পরিবেশবিদরা খুবই চিন্তিত।

চারিদিকে প্লাস্টিক বর্জনের নানা কর্মসূচি পালিত হচ্ছে, সঙ্গে সরকার থেকে প্লাস্টিক বর্জনের ক্ষেত্রেও নানা আইন কানুন সম্প্রতি প্রচলিত হয়েছে। প্লাস্টিক মাটিতে মেশে না, মাটির উর্বরতা নষ্ট করে, মাটিতে ফলনের মাত্রা কমিয়ে দেয়। তবে শুধু মাটিতেই নয় সমুদ্রের জলের দূষণ ঘটাতে এবং চিকিৎসাবর্জ্য হিসেবে বর্তমানে যথেচ্ছ প্লাস্টিকের ব্যবহারকে বন্ধ করার নানা কর্মসূচি দেখা যায়।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

কিভাবে কমানো যাবে এই প্লাস্টিক দূষণের মাত্রা সেই নিয়ে যখন চিন্তায় পরিবেশবিদরা, হঠাৎ পাওয়া গেল এমন এক প্রজাতির ব্যাক্টেরিয়ার সন্ধান যারা নাকি চোখের নিমেষেই ধ্বংস করে ফেলতে পারে প্লাস্টিকের অস্তিত্ব। সাধারণত প্লাস্টিক পলিথিনিন টেরেপথালেট ভেঙে দিতে কার্যকরী এই ব্যাকটেরিয়া পানীয়ের বোতল তৈরিতে ব্যবহার করা হয়। তবে কিভাবে তা আমাদের কাজে লাগবে?

জাপানের একদল বিজ্ঞানী দাবি করেছেন ইডেওনেলা এবং সাকায়েন্সিস নামের এই ব্যাকটেরিয়া দুটি নিজেদের শরীরের এনজাইম দিয়ে ভেঙে ফেলতে পারে প্লাস্টিকের গঠন। এর ফলে সহজেই নষ্ট হয়ে যাবে প্লাস্টিক। আন্তর্জাতিক বিশ্বের এই সমস্যা যদি সত্যিই এভাবে সমাধান করা সম্ভব হয় তবে পরিবেশকে অনেকটা বাঁচানো সম্ভব হবে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!