এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ‘অদ্ভুতভাবে’ পিএফ অ্যাকাউন্ট থেকে বেরিয়ে গেলো গেল ৮০ লক্ষ টাকা,দিশেহারা কলকাতা পুরসভা

‘অদ্ভুতভাবে’ পিএফ অ্যাকাউন্ট থেকে বেরিয়ে গেলো গেল ৮০ লক্ষ টাকা,দিশেহারা কলকাতা পুরসভা



এবার প্রভিডেন্ট ফান্ড বিভ্রাটের নয় নজির সামনে আসলো। এর জেরে রীতিমতো নাকানি চোবানি খেতে হচ্ছে পিএফ এবং পেনসান সংক্রান্ত বিষয়গুলোর দায়িত্বে থাকা অফিসারদের। পুরসভাকর্মীরা প্রভিডেন্ট ফান্ড থেকে অগ্রীম টাকা পাওয়া জন্য আবেদন করেছিলো কোলকাতা পুরসভায়। টাকা পাওয়া পর দেখা গেলো তাঁদের প্রাপ্য টাকার দ্বিগুন টাকা পুরসভার তরফ থেকে ঢুকেছে তাঁদের একাউন্টে। এমন ঘটনা একজন,দুজনের সঙ্গে নয়,বেশ অনেকজনের সঙ্গেই হয়েছে। হিসাব করে দেখা গেলো,পুরসভার প্রভিডেন্ট ফান্ড থেকে বেরিয়ে যাওয়া বাড়তি টাকার পরিমান প্রায় ৮০ লক্ষ টাকা। এই ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আসতেই শোরগোল পড়ে যায় পুরসভার আধিকারিকদের মধ্যে। আপাতত, বাড়তি টাকা কীভাবে তাঁরা পুরকর্মীদের অ্যাকাউন্ট থেকে ফেরত আনবেন তা নিয়ে রীতিমতো দিশেহারা তাঁরা।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

উল্লেখ্য,পুরসভার কর্মীদের পিএফ এবং পেনসন সংক্রান্ত বিষয়গুলো দেখভাল করার জন্য কোলকাতা পুরসভায় আলাদ আলাদ বিভাগ রয়েছে। এই বিভাগগুলোর তদারকের দায়িত্বে রয়েছেন একজন চিফ ম্যানেজার। আর গোটা বিভাগ তদারকের দায়িত্বে রয়েছেন কন্ট্রোলিং অফিসার স্পেশাল কমিশনার তাপস চৌধুরী। এ বিষয়ে তাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান যে, পুরসভার কর্মচারীদের আবেদনে কোনো ত্রুটি নেই। কিছু টেকনিক্যাল ফল্টের জন্যেই বাড়তি টাকা চলে গেছে পুরকর্মীদের অ্যাকাউন্টে। এটা নতুন ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থার কারিগরি ত্রুটি তাছাড়া আর কোনো গলদ নেই। তবে ইতিমধ্যেই নাকি বেশ কিছু পুরকর্মী বাড়তি টাকা ফেরত দেওয়া শুরু করে দিয়েছেন বলে জানান তিনি। বিভাগীয় কর্তা আধিকারিক রাও গলদের একই কারণ উল্লেখ করলেন এদিন। জানালেন মাস খানেক আগে নতুন ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা চালু করার জন্য ঠিকাদাররা টাকা পাচ্ছিলেন না ঠিক মতো। তার জেরেই পেনশন সংক্রান্ত সমস্যা হয়। এবং কারিগরি ত্রুটির জন্যলই কারো কারো অ্যাকাউন্টে বাড়তি টাকা চলে গেছে।

তবে ইতিমধ্যেই টাকা ফেরত নেওয়ার কর্মসূচি শুরু করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিভাগের উচ্চপদস্থ কর্তারা। কার কার একাউন্টে বাড়তি টাকা চলে গেছে,সে সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য নিখুঁতভাবে খতিয়ে দেখয় হচ্ছে। যে কজনের নাম পাওয়া গেছে তাঁদের কাছে চিঠি পাঠাতে শুরু করেছে পুরপ্রশাসন। বেশ কিছু জন ইতিমধ্যে বাড়তি টাকা ফেরত দিয়ে দিয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে বাকিরা কবে দেবে এ প্রসঙ্গে স্পেশাল কমিশনারকে প্রশ্ন করা হলে জবাবে তিনি জানান যে,বাকিদের কাছেও নোটিশ পাঠানো শুরু হয়ে গেছে। আশা করা হচ্ছে তাঁরাও অবিলম্বে টাকা ফেরত দিয়ে দেবেন। তবে এ ধরণের কেলেঙ্কারি যাতে আর না নয়, তার জন্য বিশেষভাবে সতর্ক করা হয়েছে বিভাগীয় অফিসারদের। পুরসভা একে কারিগরি ত্রুটি বলে ব্যাখা করলেও বিষয়টিকে ঠিক ভাবে নিচ্ছেন না পুরকর্তারা। বেরিয়ে যাওয়া গোটা টাকাটাই পিএফ এ ফির না আসা অব্দি স্বস্তি ফিরবে না পিএফ এ পেনশন সেলে,এমনটাই জানা যাচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!