এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার পার্থর সঙ্গে দেখা করে তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক শেষ করে দিলেন বৈশাখী?জোর জল্পনা

এবার পার্থর সঙ্গে দেখা করে তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক শেষ করে দিলেন বৈশাখী?জোর জল্পনা



স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিবাদের পরেই দীর্ঘদিনের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক ত্যাগ করে বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দেন কলকাতা পৌরসভার প্রাক্তন মেয়র তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়। তবে বিজেপিতে যোগ দিয়েও সেভাবে সক্রিয় হতে দেখা যায়নি শোভনবাবুকে। উল্টে বিজেপির বিভিন্ন নেতাদের শোভননবাবু এবং বৈশাখী দেবীর জুটি সম্পর্কে নানা কথা শোভন চট্টোপাধ্যায়কে চরম আঘাত করেছিল।

যার ফলে কার্যত ঘরে বসে থাকতে দেখা যায় কলকাতা পৌরসভার প্রাক্তন মেয়রকে। কিন্তু সম্প্রতি পরিস্থিতি বদলাতে শুরু করে। যে রত্না চট্টোপাধ্যায়ের জন্য শোভন চট্টোপাধ্যায় তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়লেন, সেই রত্না চট্টোপাধ্যায়কেই তৃণমূলের তরফে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ওয়ার্ড এবং বিধানসভা কেন্দ্রের দায়িত্ব দেওয়ায় রীতিমতো ক্ষিপ্ত শোভনবাবু।

তাই এবার পৌরসভা ভোটের মুখে সেই রত্না চট্টোপাধ্যায় এবং তৃণমূল কংগ্রেসকে বিপাকে ফেলতে বিজেপিতে সক্রিয় ভূমিকায় আসতে চলেছেন শোভন চট্টোপাধ্যায় বলে খবর। এতদিন বিজেপিতে থাকলেও, খুব একটা সক্রিয় ছিলেন না শোভনবাবু এবং তার বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। মাঝেমধ্যেই নিজের কলেজের সমস্যা নিয়ে তৃণমূল মহাসচিব তথা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করতে দেখা যেত বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু যখন রত্না চট্টোপাধ্যায়ের হাতে তৃণমূল বিশাল দায়িত্ব দিল, ঠিক তখনই আবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করে সম্পর্ক শেষ করে এলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলে মত একাংশের। জানা যায়, এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায় বাড়িতে গিয়ে দীর্ঘক্ষন তার সঙ্গে কথা বলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এতদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় নরমে কথা হলেও, এদিনের কথার মধ্যে বারে বারে তিক্ততার সুর উঠে এসেছে বলে মনে করা হচ্ছে। আর সেই তিক্ততার প্রধান কারণ রত্না চট্টোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসে উত্থান বলেই দাবি একাংশের।

এমনকি বাইরে বেরিয়ে এসে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে তার শেষ কথা হল বলেও জানিয়ে দিয়েছেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন তিনি বলেন, “অনেকদিনের সম্পর্ক তো, শেষ যদি হয়, তাহলে সেটাও ভালোভাবে হওয়া উচিত। তাই যা বলার দেখা করেই বলে গেলাম।” জানা গেছে, বৈঠকে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের দূত হিসেবে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন যে, শোভন চট্টোপাধ্যায় তৃণমূলের কাছ থেকে আর কিছু আশা করছেন না। আর তারপরই বাইরে বেরিয়ে এসে “শেষ কথা” শব্দটি উচ্চারণ করে বিজেপিতে যে এবার চরমভাবে সক্রিয় হচ্ছেন শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং তৃণমূলকে যে তিনি রত্না চট্টোপাধ্যায়ের উত্থানের জন্য প্রবলভাবে পৌরসভা ভোটের বিপাকে ফেলবে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত প্রায় প্রত্যেকেই।

এমনকি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে শোভন-বৈশাখী জুটি যে দূরত্ব বাড়াতে চলেছে, সেই ব্যাপারেও কার্যত একমত সকলেই। এদিন রত্না চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সরব হয়ে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিকল্প হিসেবে যারা রত্নাকে বেছে নিতে চান, সেই দল রাজনৈতিকভাবে কতটা দেউলিয়া, তা বলে দিতে হয় না। ওই দলের ভবিষ্যতের জন্য আমার শুভেচ্ছা রইল।” সব মিলিয়ে এবার রত্না চট্টোপাধ্যায়ের তৃণমূলে রত্নাদেবীর উত্থানের কারণে যে শোভন চট্টোপাধ্যায়, বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষুব্ধ, কার্যত তা স্পষ্ট প্রায় সকলের কাছেই। এখন শোভন-বৈশাখী জুটি বিজেপির হয়ে ব্যাটিং করে তৃণমূলকে কতটা বিপাকে ফেলে, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!