এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > পার্টি অফিসে তালা, কালো কালিতে মুছে দেওয়া হল প্রতীক! বিজেপির অন্তর্দ্বন্দ্বে বাড়ছে অস্বস্তি

পার্টি অফিসে তালা, কালো কালিতে মুছে দেওয়া হল প্রতীক! বিজেপির অন্তর্দ্বন্দ্বে বাড়ছে অস্বস্তি



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপির যখন তৃণমূলের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই দেওয়ার কথা, তখন নিজেদের মধ্যে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব সামাল দিতেই ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে ভারতীয় জনতা পার্টিকে। বিভিন্ন জায়গায় পুরনো বনাম নতুন বিজেপি কর্মীদের মধ্যেকার অশান্তি এখন চিন্তা বাড়াচ্ছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহলে। বারবার এই দ্বন্দ্ব বন্ধ করতে বিজেপির তরফে বার্তা দেয়া হলেও সেই সমস্যার সমাধান হচ্ছে না কিছুতেই। এবার মন্ডল সভাপতি নিয়োগ নিয়ে ব্যাপক অশান্তিতে জড়িয়ে পড়ল ভারতীয় জনতা পার্টি। যার জেরে বিজেপির দলীয় কার্যালয় যেমন বন্ধ করে দেওয়া হল, ঠিক তেমনই সেই কার্যালয়ের বাইরে দেওয়ালে আঁকা পদ্মফুলের প্রতীক মুছে দেওয়া হল কালো কালির মাধ্যমে।

সূত্রের খবর, বুধবার সকালে দমদমে বিজেপির পার্টি অফিসে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। জানা যায়, দমদম ৩ মণ্ডল সভাপতির নাম নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই বিজেপির অন্দরমহলে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছিল। কে হবেন এখানকার মন্ডল সভাপতি, তা নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। অবশেষে মঙ্গলবার রাতে এখানকার মন্ডল সভাপতি পদে রাখি চক্রবর্তীর নাম ঘোষণা করেন কলকাতা উত্তরের বিজেপি সভাপতি কিশোর কর। আর তারপরেই ক্রমশ উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পুরনো নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে কেন সদ্য দলে আসা রাখিদেবীকে সভাপতি করা হল, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেন বিজেপির একাংশ। আর তারপরই বিজেপির বিক্ষুব্ধ কর্মী-সমর্থকরা পার্টি অফিসে তালা লাগিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি দলের প্রতীক মুছে দেয় বলে খবর। যার জেরে ব্যাপক অস্বস্তিতে পড়ে ভারতীয় জনতা পার্টি।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বিজেপির একাংশের বক্তব্য, দমদম 3 মন্ডলের সভাপতি করার কথা ছিল বাসুদেব মজুমদার অথবা তপন মুখোপাধ্যায়কে। কিন্তু তাদের কাউকেই সেই দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। উল্টে সদ্য বিজেপিতে নাম লেখানো একজনকে মন্ডল সভাপতি করা হয়েছে। আর এই ব্যাপারে শহর সভাপতির দিকেই আঙ্গুল তুলতে শুরু করেছেন বিজেপির কর্মী-সমর্থকরা। দেখা যায়, বুধবার সকালে বিজেপির কর্মীরা পার্টি অফিসে তালা দিয়ে একমাত্র তারা ছাড়া এই দরজা কেউ খুলতে পারবেন না বলে হুশিয়ারি দেন।

আর বিধানসভা নির্বাচনের মুখে যখন বিজেপির ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করার কথা, তখন বিদ্রোহী কর্মী-সমর্থকদের পার্টি অফিসে তালা ঝুলিয়ে দেওয়ার ঘটনায় জোর অস্বস্তিতে পড়ে ভারতীয় জনতা পার্টি। এখন থেকেই যদি বিজেপি দ্বন্দ্ব সামাল দিতে না পারে, তাহলে বিধানসভা নির্বাচনে তারা কি করে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করবে, এখন তা নিয়ে দলের অন্দরে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন।এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা বাসুদেব মজুমদার বলেন, “30 বছরের উপরে বিজেপিতে আছি। একাধিক পদে ছিলাম। পৌরভোটে প্রার্থী হয়েছি। কিন্তু মন্ডল সভাপতি পদে যাকে দায়িত্ব দেওয়া হল, তাকে মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। মন্ডল সভাপতি পদে যে নাম ঘোষণা করার কথা ছিল, রাতারাতি তা বদলে গেল কি করে!”

এদিকে এই মন্ডল সভাপতি পদে নতুন মুখ আনা নিয়ে বিজেপির বিক্ষুব্ধ কর্মীরা শহর মন্ডলের সভাপতির দিকে যে অভিযোগ করছেন, তা কতটা সত্যি? এদিন এই প্রসঙ্গে কলকাতা উত্তর শহরতলীর বিজেপি সভাপতি কিশোর কর বলেন, “দল নতুন মুখ সামনে আনছে। ফলে মন্ডল সভাপতি পদে যাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, তাকে সকলের গ্রহণ করা কর্তব্য। কার্যালয়ে তালা বা প্রতীক মুছে দেওয়াটা দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের মধ্যে পড়ে। বিষয়টি শীর্ষ নেতৃত্বকে জানানো হয়েছে।” তবে জেলা নেতৃত্বৈর পক্ষ থেকে কড়া বার্তা দেওয়া হলেও, যেভাবে মন্ডল সভাপতি পদ নিয়ে বিজেপির কর্মী সমর্থকদের বিদ্রোহ প্রকাশ্যে চলে এল এবং তার জেরে অস্বস্তিতে পড়ল ভারতীয় জনতা পার্টি, তাতে বিজেপির পক্ষ থেকে এই ব্যাপারে কি পদক্ষেপ নেওয়া হয়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!