এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পঞ্চায়েতে জয়ী বিজেপি প্রার্থীর অপহরণের ঘটনায় তুলকালাম, উদ্ধার সেনা ছাউনি থেকে

পঞ্চায়েতে জয়ী বিজেপি প্রার্থীর অপহরণের ঘটনায় তুলকালাম, উদ্ধার সেনা ছাউনি থেকে



বেশকিছুদিন আগেই রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচন সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে। তবুও এখনও সন্ত্রাসের ঘটনায় শাসকদল তৃনমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলে সরব বিজেপি। তবে ঠিক সন্ত্রাসও বলা যাবে না এই ঘটনাকে। এ যেন নির্বাচিত সদস্যকে অপহরনের ঘটনা। আর সেই ঘটনাকেই কেন্দ্র করে পুরুলিয়ার সাঁতুড়ি ব্লকের বৃন্দাবনপুর গ্রামে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সূত্রের খবর, এই গ্রামের বাসিন্দা 26 বছরের আইটিআই কলেজের ছাত্র সৌমেন মন্ডল এবারে সাঁতুড়ি পঞ্চায়েত সমিতি থেকে বিজেপির টিকিটে জয়ী হয়েছেন। ঘটনাক্রমে তিনি এই ব্লকের বিজেপির যুব মোর্চার সাধারন সম্পাদকও বটে। জানা যায়, গত বুধবার দুপুরে বাইকের মেরামতির কাজ সেরে বাড়ি ফেরার সময় হঠাৎই দুজন লোক তাঁকে দাড় করিয়ে একটি গাড়িতে তুলে নেয়। আর এরপর বুদবুদ এলাকায় গাড়িতে থাকা সকলে প্রস্রাব করার জন্য গাড়ি থেকে নামলে সেই সুযোগে পানাগড় সেনাছাউনিতে গিয়ে এই সৌমেন মন্ডল সেখানে সব জানালে সেনাবাহিনীরা তাঁকে সাহায্য করে।

এদিকে নিজেদের পরিবারের সদস্য এবং দলের সদস্যকে না পেয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েন সৌমেনবাবুর পরিবার ও বিজেপি নেতারা। এদিন সেনাবাহিনীর তরফ থেকে খবর পেয়েই নিঁখোজ বিজেপির সেই প্রার্থীকে নিতে পানাগড়ে যান পরিবারের লোক ও দলীয় সদস্যরা। সেখানেই সেনাদল অপহৃত এই সৌমেন মন্ডলকে তাঁর পরিবারের হাতে তুলে দেন। এদিন সৌমেন মন্ডল বলেন, “দুস্কৃতিরা আমাকে অপহরন করে তৃনমূল দলে যোগ দিতে বলে। কোনোরকমে সেনাছাউনিতে আশ্রয় নিয়ে বেঁচে যাই।”

 

একই ভাবে তৃনমৃলের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে পুরুলিয়ার বিজেপি সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী বলেন, “ভালো কর্মী হওয়ায় তাঁকে অপহরন করে এই পঞ্চায়েত সমিতি তৃনমূল নিজেদের দখলে রাখতে চাইলেও ওদের সব চেষ্টাই ব্যার্থ হয়েছে। আমরা আমাদের কর্মীকে ফিরে পাওয়ায় সেনাবাহিনীর কাছে কৃতজ্ঞ।”

 

 এদিকে এব্যাপারে বিজেপির করা সমস্ত অভিযোগ খন্ডন করে রঘুনাথপুরের তৃনমৃল বিধায়ক পূর্নচন্দ্র বাউড়ি বলেন, “ওদেরই ওখানে তিনটি গোষ্টী রয়েছে। তাঁরাই এই ঘটনা ঘটিয়েছে। তৃনমূলের এমন অবস্থা হয়নি যে কাউকে অপহরন করতে হবে।” রাজনৈতিক মহলের মতে, এবার জঙ্গলমহলের জেলাগুলিতে ভালো ফল করে শাসকদল তৃনমূলকে চাপে ফেলে দিয়েছে বিজেপি। এবার গেরুয়া শিবিরেরই এক জয়ী পঞ্চায়েত সদস্যকে তৃনমূলের বিরুদ্ধে অপহরনের আভিযোগ ওঠায় পুরুলিয়ায় যে শাসকদল আরও চাপে পড়ল তা এককথায় বলাই যায়।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!