এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > পঞ্চম দফার ভোটে তৃণমূল বিজেপির সংঘর্ষে উত্তাল সল্টলেক, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আসরে কেন্দ্রীয় বাহিনী

পঞ্চম দফার ভোটে তৃণমূল বিজেপির সংঘর্ষে উত্তাল সল্টলেক, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আসরে কেন্দ্রীয় বাহিনী



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সকাল থেকেই শুরু রাজ্যের পঞ্চম দফার ভোট। গত চার দফার মতো পঞ্চম দফাতেও লাগাতার রাজনৈতিক হিংসা, সংঘর্ষ সকাল থেকে। প্রত্যেকবারের মতো এবারেও তৃণমূল বিজেপির সংঘর্ষ। আর এই সংঘর্ষ মারাত্মক রূপ নিল সল্টলেকের শান্তিনগরে। দুই পক্ষের সংঘর্ষে রীতিমতো রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এলাকা। পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং পুলিশ ব্যাপকভাবে পথে নামে। এরপর কিছুটা শান্ত হয় এলাকা। পঞ্চম দফার শুরু থেকেই জেলায় জেলায় অশান্তি শুরু। বেলা দশটা নাগাদ হঠাৎ করেই সল্টলেক শান্তিনগর এলাকায় তৃণমূল এবং বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা তীব্র বচসায় জড়িয়ে পড়ে। ক্রমশ সেই বচসা হাতাহাতিতে পৌঁছায়।

ধুন্ধুমার পরিস্থিতি তৈরি হয় সল্টলেকের শান্তিনগর এলাকায়। দুই পক্ষই একে অপরের দিকে ব্যাপকভাবেই ইঁটবৃষ্টি করতে শুরু করে। গোটা রাস্তা ইঁটের টুকরোয় ভরে যায় বলে জানা গেছে। একইসাথে মহিলাদেরও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় জখম হয়েছে দু’পক্ষের অনেকেই। এই খবর পাওয়া মাত্রই এলাকায় পৌঁছায় বিশাল পুলিশবাহিনী এবং কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা। লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হলে মাইকিং করে জমায়েত সরানোর চেষ্টা চালানো হয়। ভোটারদের বুথে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়া হয় এবং বহিরাগত যারা তাঁদেরকে এলাকা থেকে বাইরে বার করে দেয় পুলিশ। অন্যদিকে তৃণমূলের অভিযোগ, বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতিরাই এই ঘটনার পেছনে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তৃণমূলের ওপর হামলা চালিয়েছে তাঁরা। একই সাথে বিজেপি আবার পাল্টা অভিযোগ করেছে তৃণমূলের তরফ থেকে তাঁদের আগেই দেখে নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে, মারধর করা হয়েছে। এই অশান্তির খবর পাওয়া মাত্রই এলাকায় পৌঁছান বিধাননগরের বিজেপি প্রার্থী সব্যসাচী দত্ত এবং তৃণমূল প্রার্থী সুজিত বসু। বিজেপি প্রার্থী সব্যসাচী দত্তর অভিযোগ, বিধাননগর দক্ষিণ থানার দিকে। তিনি জানিয়েছেন, বিধাননগর দক্ষিণ থানার এসআইএর পরিকল্পনামাফিক বিজেপি কর্মীদের মারধর করা হয়েছে। তবে সুজিত বসু সব্যসাচী দত্তকে পাল্টা দিয়েছেন। প্রসঙ্গত, পঞ্চম দফার ভোটে সকালে ভোট কেন্দ্রে ঢুকতে গিয়ে বাধার মুখে পড়েন যেমন সুজিত বসু, ঠিক সেভাবেই কামারহাটির তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্র।

ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয় সুজিত বসু এবং মদন মিত্র দুজনকেই। কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঙ্গে তুমুল বচসায় জড়িয়ে পড়েন তাঁরা বলে জানা গিয়েছে। অন্যদিকে এদিন সকাল থেকেই বুথ পরিদর্শনে বেরিয়েছেন বিজেপির প্রার্থী সব্যসাচী দত্ত। সব মিলিয়ে পঞ্চম দফার নির্বাচনে কিন্তু সকাল থেকেই তীব্র উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। যেখানে যেখানে আজকে ভোট হচ্ছে, সেই সব জায়গায় কড়া নজরদারি চলছে বলে খবর। কিন্তু তা সত্বেও অশান্তি এড়ানো যাচ্ছেনা। বেশ কিছু জায়গায় অশান্তি মাত্রাছাড়া হারে বেড়ে চলেছে। আপাতত এই পরিস্থিতি সামাল দিতে কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং পুলিশের পক্ষ থেকে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!