এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > অসুস্থ হেভিওয়েট বিজেপি সাংসদ, সিআইডিকে দায়ী করে মমতার বিরম্বনা বাড়ালেন দিলীপ ঘোষ!

অসুস্থ হেভিওয়েট বিজেপি সাংসদ, সিআইডিকে দায়ী করে মমতার বিরম্বনা বাড়ালেন দিলীপ ঘোষ!



সম্প্রতি প্রয়াত হয়েছেন বিশিষ্ট অভিনেতা তথা প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ তাপস পাল। আর তাপস পালের মৃত্যুর পরেই তার মৃত্যুর জন্য পরোক্ষে কেন্দ্রীয় সরকার এবং কেন্দ্রীয় এজেন্সি সিবিআইকে কাঠগড়ায় তুলেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তৃণমূল নেত্রীর এহেন বক্তব্যকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে তৈরি হয়েছিল চরম বিতর্ক। অনেকেই প্রশ্ন করেছিলেন, মৃত্যুকালেও তাপস পালকে রাজনীতিতে জর্জরিত করে কলঙ্কিত করার চেষ্টা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পাশাপাশি কিভাবে তিনি এই ঘটনায় সিবিআইকে দায়ী করতে পারেন, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন একাংশ। তবে রাজনীতিতে একতরফা আক্রমণ হয় না। তাই তাপস পালের মৃত্যুর জন্য যখন সিবিআইকে দায়ী করে সরব হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ঠিক তার দুদিন পরেই এবার বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকারের অসুস্থতার জন্য রাজ্যের তদন্তকারী সংস্থা সিআইডিকে দায়ী করলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আর দুই দলের দুই হেভিওয়েট নেতা নেত্রীর দাবি, পাল্টা দাবিতেই এখন রীতিমত সরগরম রাজ্য রাজনীতি।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, শুক্রবার বিজেপি রাজ্য দপ্তরে সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, “কৃষ্ণগঞ্জের প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসের হত্যার ঘটনায় জগন্নাথ সরকারকে অন্যায়ভাবে জড়ানো হয়েছে। এর জন্য বিজেপি সাংসদ মানসিক যন্ত্রণায় ভুগছিলেন। তা থেকেই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।” দিলীপ ঘোষের আরও অভিযোগ, খুনের ঘটনায় তাদের সাংসদ জগন্নাথ সরকারের নাম বলপূর্বক ঢোকানো হয়েছে। যার পেছনে পুরোপুরি রাজনৈতিক অভিসন্ধি রয়েছে বলে দাবি বিজেপি রাজ্য সভাপতির। আর দিলীপ ঘোষের এই দাবিকে তৈরি কেন্দ্র করেই এখন তৈরি হয়েছে চরম বিতর্ক। অনেকে বলছেন, কিছুদিন আগেই তাপস পালের মৃত্যু নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিবিআইকে কাঠগড়ায় তুলেছেন‌।

আর এবার সুযোগ পেয়েই তাদের দলের সাংসদ জগন্নাথ সরকারকে সিআইডি জেরা করায় তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে তৃণমূলকে পাল্টা কাঠগড়ায় তুললেন দীলিপবাবু বলে মত একাংশের। অনেকে বলছেন, খেলা ভালই জমে উঠেছে। মৃত্যু থেকে অসুস্থতা, প্রায় প্রতিক্ষেত্রে যেভাবে রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে দায়ী করে সরব হচ্ছেন রাজনীতিবিদরা, তাতে এই দুই তদন্তকারী সংস্থার প্রতি সাধারণ মানুষের ভরসা দিনকে দিন উঠে যেতে শুরু করবে। যদি রাজনীতিবিদেরাই তদন্তকারী সংস্থার বিরুদ্ধে এভাবে সরব হতে থাকেন, তাহলে সাধারণ মানুষ কোথায় যাবে, কিভাবে বিচার পাবেন, তা নিয়ে প্রশ্নটা থেকেই যাচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!