এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > বিরোধী প্রার্থী জানিল না কি বা ‘জাদু’ ঘটিল, অজান্তেই প্রার্থীপদ প্রত্যাহার হইয়া গেল!!

বিরোধী প্রার্থী জানিল না কি বা ‘জাদু’ ঘটিল, অজান্তেই প্রার্থীপদ প্রত্যাহার হইয়া গেল!!



গত শুক্রবার দক্ষিণ ২৪ পরগণার বারুইপুর বিডিও অফিস চত্বরে এ যেন বিনা মেঘে বজ্রপাত হলো নির্দল প্রার্থী রেহেনা বিবির রাজনৈতিক জীবনে। নির্দল প্রার্থী হিসেবে নিজের জয় সুনিশ্চিত করতে তাঁর নির্বাচনী কেন্দ্রে দেওয়াল লিখন, ভোটদাতাদের বাড়ি বাড়ি ঘুরে প্রচার সবেতেই তিনি নিষ্ঠার সাথে করে চলেছেন, হঠাৎ এলাকাবাসীর থেকে জানতে পারলেন তাঁর প্রার্থীপদই নাকি প্রত্যাহার হয়ে গিয়েছে! শোনা মাত্রই তিনি বিডিও অফিসে গিয়ে উপস্থিত – এই মনোনয়ন প্রত্যাহার প্রসঙ্গে সরকারী আধিকারিকরা আশ্বাস দিলেন তাঁরা বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন। কিন্তু এসবের পরেও চুড়ান্ত পর্বে জানা গেলো তাঁর মনোনয়ন পত্রটি প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। একথা জানতে পেরে ক্ষুদ্ধ নির্দল প্রার্থী রেহেনা বিবি বিডিও অফিসের কর্তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও গাফিলতির অভিযোগ তুলে তাঁর প্রচার কর্মীদের সাথে সংঘবদ্ধ হয়ে বিডিও অফিসে বিক্ষোভ দেখান।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে স্বাভাবিক ভাবেই এলাকার সাধারণ মানুষজন প্রশ্ন তুলছেন এই মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের পিছনে দায়ী কে? এদিকে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বারুইপুর থানার অন্তর্গত শঙ্করপুর-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্দল প্রার্থী রেহেনা বিবি তাঁর অভিযোগে বলেন, মনোনয়ন জমা দেওয়ার পর থেকেই মনোনয়ন প্রত্যাহারের জন্য শাসকদল বিভিন্ন মাধ্যম থেকে চাপ দিচ্ছিল। তাতে কাজ না হওয়ায় ওরা বিডিও অফিসের একাংশ কর্মীর সাহায্যে আমার মনোনয়নই প্রত্যাহার করে দিল। তাঁর কথা অনুসারে, আমি বা আমার প্রস্তাবক কেউই নাম প্রত্যাহারের জন্য সরকারিভাবে আবেদন করিনি। আসলে নিজেদের জয় সুনিশ্চিত করতে শাসকদল এটা করল। এছাড়াও অভিযোগ উঠেছে এলাকার ব্লক অফিসারদের বিরুদ্ধে যাঁরা রেহেনা বিবির মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন জানিয়েও কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ না করে নির্বিকার থেকেছেন। অন্যদিকে বারুইপুরের বিডিও সৌম্য ঘোষের কাছে এই প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া চাওয়া হলে তিনি সংবাদমাধ্যমকে জানান, ব্যালট ছাপার কাজে ব্যাস্ত আছি, পরে কথা বলব! ‘রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা উন্নয়ন’ দেখানোর অভিযোগের পর বিরোধীদের অজান্তেই মনোনয়ন প্রত্যাহার হয়ে যাওয়ার এই ‘ভুতুড়ে’ নতুন অভিযোগে বিদ্ধ এখন শাসকদল!

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!