এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > “নোটবন্দীর মত গৃহবন্দি চাইছি না” লকডাউন নিয়ে প্রতিক্রিয়া মমতার!

“নোটবন্দীর মত গৃহবন্দি চাইছি না” লকডাউন নিয়ে প্রতিক্রিয়া মমতার!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – লকডাউনের পরিস্থিতি দিনকে দিন জাঁকিয়ে বসতে শুরু করেছে গোটা রাজ্য জুড়ে। যেভাবে করোনা ভাইরাস বৃদ্ধি পাচ্ছে, তাতে পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে লকডাউন জারি করা হতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এমনকি জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন, যদি শেষ পর্যন্ত কিছু করার না থাকে, তাহলে সর্বশেষ উপায় হচ্ছে লকডাউন।

স্বাভাবিক ভাবেই এই পরিস্থিতিতে নির্বাচন চলার সময় কার্যত যখন হু হু করে করোনা ভাইরাস বাড়ছে, তখন আতঙ্ক ক্রমশ বাড়তে শুরু করেছে। তাহলে কি আবার এক বছর আগেকার স্মৃতি ফিরে আসবে গোটা বাংলা জুড়ে? ফের কি জারি করা হবে লকডাউন? তবে প্রথম থেকেই এই লকডাউনের ব্যাপারে সম্ভাবনাময় পরিস্থিতিকে খারিজ করে দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এবারও ফের লকডাউনের বিপক্ষে মত পোষণ করতে দেখা গেল তাকে।

সূত্রের খবর, আজ একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেখানেই তিনি বলেন, “লকডাউন করছি না। একবছর ধরে ব্যবসার হাল সঙ্গীন‌। হকার থেকে শুরু করে যারা দুমুঠো খান, তাদের সকলের অবস্থা খুব খারাপ। সবাই সাবধানে থাকুন। এটা বলব না, কাজকর্ম বন্ধ করে ঘরে বসে থাকুন। লকডাউন করে সবাইকে বন্দী করে রাখব না। নোটবন্দির মত গৃহবন্দি চাইছি না।”

অর্থাৎ করোনা ভাইরাস আটকাতে সরকারের পক্ষ থেকে সচেতনতা বার্তা জারি করে মানুষকে সুস্থ রাখার পক্ষেই এবার যে হাটা হবে, তা কার্যত বুঝিয়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এক্ষেত্রে এক বছর আগেকার মত লকডাউন করে মানুষের রুজি-রুটিরকে যে আর প্রশ্নের মুখে ফেলে দেওয়া হবে না, তা নিজের বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে তুলে ধরতে চাইলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

অনেকে বলছেন, এক বছর আগে এই লকডাউনের জন্য এখনও অনেক মানুষকে আফসোস করতে হচ্ছে। অনেকের রুজিরুটি প্রশ্নের মুখে পড়ে যাওয়ায় ফের করোনা ভাইরাস যখন ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে, তখন যাতে আর লকডাউন না হয়, তার জন্য প্রার্থনা করছেন সকলেই। কিন্তু তার মাঝেই যেহেতু ভাইরাস মাথাচাড়া দিয়েছে, তাই আবার লকডাউন হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে মানুষের আশঙ্কাকে দূরীভূত করে এবার আর লকডাউনের রাস্তায় যে রাজ্য সরকার হাঁটবে না, তা বুঝিয়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক্ষেত্রে মানুষের রুজি-রুটিকে সবথেকে বেশি প্রাধান্য দিয়ে নিজের বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার যেভাবে নোট বাতিলের নামে লাইনে দাঁড়িয়ে মানুষকে হেনস্থা করা হয়েছিল বলে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল, এক্ষেত্রে নোট বন্দির মত মানুষকে গৃহবন্দি করা হবে না বলে লকডাউনের বিপক্ষে সওয়াল করে কিছুটা হলেও বিজেপি সরকারের অস্বস্তি বাড়িয়ে দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বলে দাবি রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!