এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > নির্বাচনী বিধিভঙ্গের অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে, কমিশনে যাচ্ছে বিজেপি!

নির্বাচনী বিধিভঙ্গের অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে, কমিশনে যাচ্ছে বিজেপি!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – নির্বাচনের নির্ঘণ্ট প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথেই রাজ্যে লাগু হয়ে গিয়েছে আদর্শ আচরণ বিধি। নিয়মমত এই আদর্শ আচরণবিধি লাগু হওয়ার পর কোনো সরকারি প্রকল্পের সুবিধা বা প্রতিশ্রুতি সাধারণ মানুষকে দেওয়া যায় না। কিন্তু বর্তমানে তৃণমূল হোক বা বিজেপি, একে অপরের বিরুদ্ধে সেই আদর্শ আচরণ বিধি অমান্য করার অভিযোগ তুলে সরব হতে শুরু করেছে। এবার রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আদর্শ আচরণ বিধিকে ভাঙ্গার অভিযোগ তুলে কমিশনে যাওয়ার পদক্ষেপ নিল ভারতীয় জনতা পার্টি।

অভিযোগ, নির্বাচনের দামামা বেজে গেলেও সমস্ত নিয়ম ভঙ্গ করে স্কুল পড়ুয়াদের সবুজসাথীর সাইকেল বিক্রি করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ নিয়মবিরুদ্ধ। স্বাভাবিক ভাবেই এই ঘটনাকে সামনে রেখে এখন তৃণমূলের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে গেরুয়া শিবির। জানা যায়, বুধবার বারাসাতের কিশলয় হোম প্রাঙ্গণ থেকে একটি স্কুলের পড়ুয়াদের ডেকে পৌরসভার কর্মীরা সবুজ সাথীর সাইকেল বিলি করছিলেন। যেখানে প্রচুর পড়ুয়া জমায়েত হয়েছিল।

স্বাভাবিকভাবেই নির্বাচনী আদর্শ আচরণ বিধি লাগু হওয়ার পরেও কেন এইরকম সরকারি প্রকল্পের সুবিধা দেওয়া হচ্ছে, তা নিয়ে রীতিমত চাঞ্চল্য তৈরি হয় এলাকা জুড়ে। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনা নিয়ে এখন প্রশ্ন তুলে ময়দানে নামতে শুরু করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। ক্রমাগত চাপ বাড়াতে শুরু করেছে পৌরসভা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। যার ফলে কিছুটা হলেও অস্বস্তিতে পড়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে বারাসত বিজেপি যুব মোর্চার জেলা সভাপতি কৌশিক মজুমদার বলেন, “এই ঘটনায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে আমরা নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হব। মানুষকে প্রতারণা করা হচ্ছে।” সত্যিই তো তাই! যেখানে কমিশনের পক্ষ থেকে আদর্শ আচরণবিধি লাগু করে দেওয়া হয়েছে, তার পরেও কেন এভাবে তা অমান্য করা হচ্ছে? কেন নিয়মের বাইরে গিয়ে সরকারি প্রকল্পের সুবিধা দেওয়া হচ্ছে উপভোক্তাদের? এদিন এদিন এই প্রসঙ্গে বারাসাত পৌরসভার প্রশাসক সুনীল মুখোপাধ্যায় বলেন, “এসডিওর আগে অর্ডার ছিল। সেই অর্ডারে অফিস থেকে সাইকেল দিতে আরম্ভ করা হয়েছিল। এটা নিঃসন্দেহে ভুল হয়েছে। বিষয়টি আমি জানতাম না। জানার সঙ্গে সঙ্গে সাইকেল দেওয়া বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ”

তবে প্রশাসকের পক্ষ থেকে এই ধরনের কথা বলা হলেও, গোটা বিষয়টি নিয়ে বিজেপি যে এবার রাজনৈতিক ময়দান কাঁপাতে শুরু করবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ভোটের মুহূর্তে এমনিতেই শাসক-বিরোধী তরজা হতে দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন এলাকা। আর তার মাঝখানে বিজেপির কাছে এই ধরনের ইস্যু চলে আসায় গেরুয়া শিবির যে তাকে কাজে লাগিয়ে তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়িয়ে দিতে উদ্যত হবে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত একাংশ। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!