এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > নির্বাচনে ভরাডুবির পর দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

নির্বাচনে ভরাডুবির পর দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিধানসভা নির্বাচনে বাম শিবিরের শোচনীয় পরাজয় ঘটেছে। একটি আসনকেও লাল সালু দিয়ে মুড়তে পারেনি বাম শিবির। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে বাম ও কংগ্রেস দল একেবারে শূন্য হাতে ফিরেছে। স্বাধীনতার পর এই প্রথম বিধানসভায় কোনো প্রতিনিধি পাঠাতে পারেনি রাজ্যের এই দুই প্রবীণ দল। নির্বাচনে পরাজয়ের পর দলের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ প্রকাশ করলেন শিলিগুড়ির সিপিএম প্রার্থী অশোক ভট্টাচার্য।

বাম জমানায় এক দোর্দণ্ডপ্রতাপ ব্যক্তিত্ব ছিলেন অশোক ভট্টাচার্য। উত্তরবঙ্গের অঘোষিত মুখ্যমন্ত্রী বলা হতো তাঁকে। দীর্ঘ সময় ধরে মন্ত্রিসভায় গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ছিলেন তিনি, এখনও তাঁর প্রভাব অম্লান রয়েছে উত্তরবঙ্গের রাজনীতির অঙ্গনে। কিন্তু, এত কিছু সত্ত্বেও শিলিগুড়িতে শোচনীয় পরাজয় ঘটেছে অশোক ভট্টাচার্যের। এমনকি তাঁর একসময়ের শিষ্য বলে পরিচিত বিজেপি প্রার্থী শঙ্কর ঘোষের কাছে শোচনীয় পরাজয় ঘটেছে তাঁর। একেবারে তৃতীয় স্থানে এসে পড়েছেন তিনি। দলের পরাজয়ের পর দলের প্রতি একাধিক অভিযোগ করলেন অশোক ভট্টাচার্য।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

শিলিগুড়ির প্রাক্তন বিধায়ক অশোক ভট্টাচার্য জানালেন, তাঁদের জাত- কুল দুটিই গেছে। অনেকেই বলতে শুরু করেছেন যে, ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্টের সঙ্গে জোট করবার কারণে হিন্দু ভোট বামেদের পক্ষ থেকে সরে গেছে, শিলিগুড়িতেও যা হওয়া সম্ভব হয়েছে। কিন্তু কাছাকাছি কেন্দ্র চোপড়াতে সংখ্যালঘু ভোট সিপিএমের কাছে আসেনি, সমস্ত ভোট চলে গেছে তৃণমূলের হাতে।

অশোক ভট্টাচার্য প্রশ্ন করেছেন, কি দোষ ছিল তাঁর? তিনি কি নিজের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে সক্ষম হননি? যারা ভোট দেবেন বলেছিলেন, তাঁরা কেন ভোট দেননি? তিনি জানালেন, তিনি নিজের সেরাটাই দিয়েছেন, তবুও তিনি ও তাঁর দল পরাস্ত হয়েছে। তিনি জানালেন, তিনি এবার নির্বাচনে দাঁড়াতে চান নি। তাঁকে জোর করে দাঁড় করিয়েছিল দল।

অশোক ভট্টাচার্য সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, আর তিনি নির্বাচনে লড়াই করবেন না। তবে এখনই রাজনীতি থেকে অবসর নিচ্ছেন না তিনি। ভোটে না দাঁড়ালেও তিনি দলের হয়ে কাজ করবেন। দলে নতুন মুখ তুলে আনার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। তিনি আশা করছেন, শিলিগুড়ি থেকেই এ রাজ্যে আবার বামেদের ঘুরে দাঁড়ানোর পথ আগামী দিনে তৈরি হবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!