এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে সংযুক্ত মোর্চার তরফে বামেদের সামনেই বামেদের বিরুদ্ধে মুখ খললেন কংগ্রেস হেভিওয়েট

নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে সংযুক্ত মোর্চার তরফে বামেদের সামনেই বামেদের বিরুদ্ধে মুখ খললেন কংগ্রেস হেভিওয়েট



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যে চলছে বাংলা দখলের লড়াই। 8 দফা নির্বাচনের তিনটি দফা আপাতত শেষ হয়েছে। বাংলা দখলের লক্ষ্যে তৃণমূল বিজেপির পাশাপাশি জোট বেঁধেছে বাম কংগ্রেস এবং আইএসএফ। এবারের নির্বাচনে বাম এবং কংগ্রেস বাধলেও জোট বাঁধলেও বিভিন্ন সময় অস্বস্তির মুখে পড়তে হচ্ছে জোট শিবিরকে। এতদিন পর্যন্ত আসন রফা নিয়ে চলছিল সমস্যা। সেই সমস্যা মিটতে না মিটতেই এবার নতুন অস্বস্তি সামনে এলো। প্রচারে গিয়ে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী এমন মন্তব্য করলেন, যাতে জোট শিবিরে ব্যাপক আঘাত বলে মনে করা হচ্ছে। প্রচারের মঞ্চে দাঁড়িয়ে এবার জোট সঙ্গী সিপিএমকেই এবার স্বৈরাচারী বলে ওভিহিত করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

উল্লেখ্য, কেরলেও ভোটের প্রচারে গিয়ে কয়েকদিন আগেই কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গান্ধীও জোট সঙ্গী সিপিএমের বিরুদ্ধে ব্যাপক আক্রমণ করেছিলেন। নির্বাচনী প্রচার করতে গিয়ে মঙ্গলবার আলিপুরদুয়ার নবীন ক্লাবে সভা ছিল সংযুক্ত মোর্চার। সভামঞ্চে সেইসময় হাজির হয়েছিলেন একদিকে যেমন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু, ত্রিপুরার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার, সেরকমই অন্যদিকে ছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। এই সভায় বক্তৃতা দিতে গিয়ে রাজ্যের তৃণমূল সরকার এবং কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ দাগতে থাকেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী। আর এই এরইমধ্যে তিনি হঠাৎ করে বলে বসেন স্বৈরাচারী সিপিএম।

যদিও মুহূর্তের মধ্যে সেই ভুল সংশোধন করে অধীররঞ্জন বিজেপিকে সাম্প্রদায়িক শক্তি এবং তৃণমূলকে স্বৈরাচারী বলে উল্লেখ করেন। তবে এক্ষেত্রে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ব্যাপারটিকে লঘু করে দেখা হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে জেলা কংগ্রেস সভাপতি মণিকুমার ডার্নাল জানিয়েছেন, মুখ ফসকে এ ধরনের মন্তব্য হয়েছে। এত গুরুত্ব দেওয়ার মতন কিছুই হয়নি। তবে অন্যদিকে বাংলায় বাম এবং কংগ্রেস জোট বাধলেও কেরালায় কিন্তু দুই শিবিরের যুদ্ধ বর্তমান। একে অপরের বিরুদ্ধে ক্রমাগত আক্রমণ করে চলেছে। রাহুল গান্ধীও সেখানে বামেদের সঙ্গে বিজেপির যোগ নিয়ে সরব হয়েছিলেন, যেমন এখানে তৃণমূল সুপ্রীমোও একই কথা বলে থাকেন। আর এ প্রসঙ্গে রাহুল গান্ধী মোদির বক্তব্যকে হাতিয়ার করেছেন।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

রাহুল গান্ধী ভোট প্রচারে কেরালায় বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী মোদির মুখে সবসময় শোনা যায় কংগ্রেসমুক্ত ভারত গড়ার কথা। কিন্তু কখনো সিপিএম মুক্ত ভারতের কথা বলা হয়না। সেক্ষেত্রে রাহুল গান্ধী বাম এবং বিজেপিকে একই আসনে বসিয়ে বলেছেন, দুই শিবির সমাজে বিভেদ সৃষ্টি করে এবং হিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাস করে। অর্থাৎ কেরালায় বামেদের বিরুদ্ধে তীব্র বিষোদগার করছে কংগ্রেস। আর এ রাজ্যে সেই বাম এবং কংগ্রেসকে দেখা যাচ্ছে হাত ধরাধরি করে চলতে। এক্ষেত্রে রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, মুখ ফসকে বললেও প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী কিন্তু রাহুল গান্ধীর বক্তব্যকেই মনেপ্রাণে মেনে চলেন।

যেভাবে বামেদের স্বৈরাচারী বলে তিনি অভিহিত করেছেন তা নিয়ে কিন্তু রাজনৈতিক মহলে চলছে ব্যাপক সমালোচনা। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, ভোটের মুখে যেভাবে অধীর রঞ্জন চৌধুরী বামেদের স্বৈরাচারী বলে যেভাবে অভিহিত করেছেন, তা কিন্তু যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। নির্বাচনেও যদি অধীরের বক্তব্যের কোনো ছাপ পড়ে তাহলে জোটের ভরাডুবি হতে পারে বলে দাবী ওয়াকিবহাল মহলের। বামেরা এখনো পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া দেয়নি।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!