এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আদালতেও রক্ষী পরিবেষ্টিত শোভন-বৈশাখী, চরম অসুবিধায় আইনজীবীরা – শুরু তীব্র বিতর্ক

আদালতেও রক্ষী পরিবেষ্টিত শোভন-বৈশাখী, চরম অসুবিধায় আইনজীবীরা – শুরু তীব্র বিতর্ক



গত মঙ্গলবার নিজের বিবাহবিচ্ছেদ সংক্রান্ত একটি মামলায় হাইকোর্টে হাজির হয়েছিলেন কলকাতার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর বান্ধবী বৈশাখি বন্দ্যোপাধ্যায়। এজলাসের মধ্যে তাঁদের ঘিরে রক্ষীদের এমন নিরাপত্তার বেষ্টনীতে এজলাসের ভেতরেই বিরক্ত এক আইনজীবী বিষয়টি নজরে আনেন বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্যের।

ভিড়ের মধ্যে বিচারপতি প্রথমে বুঝতেই পারেননি মেয়র বিচারপ্রার্থী হয়ে বসে বেঞ্চে। আর সেই অভিযোগ শুনেই এদিন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়কে সতর্ক করে আদালত। সূত্রের খবর, এদিন দুপুর দু’টো নাগাদ মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর বান্ধবী বৈশাখী ব্যানার্জী ওয়াই ক্যাটিগরির নিরাপত্তা নিয়ে হাইকোর্টে হাজির হয়ে সাত নম্বর এজলাসে আইনজীবীদের চেয়ারের পিছনে দেয়াল ঘেঁসে রাখা বেঞ্চে বসেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আর এরপরই তাঁদের ঘিরে থাকা রক্ষীর বারবারন্তে প্রবল সমস্যায় পড়েন কোর্টের আইনজীবী ও মক্কেলরা। যার পরিপ্রেক্ষিতে এক আইনজীবী বলেন, “কী করে এজলাসের মধ্যে মেয়রের সশস্ত্র রক্ষীরা ঢুকতে পারে! হাইকোর্টের নিজস্ব নিরাপত্তারক্ষী ছাড়া তো কারও অস্ত্র নিয়ে প্রবেশাধিকারই নেই”! আর এরপরই দুপুর সোওয়া তিনটে নাগাদ আইনজীবী রমাপ্রসাদ সরকার এজলাসের মধ্যে রক্ষীদের এমন আচরণ নজরে আনেন বিচারপতির।

সূত্রের খবর, তখনই বিচারপতি ভট্টাচার্য রক্ষীদের দ্বারা আইনজীবীদের যাতে সমস্যা না হয়, সে ব্যাপারে মেয়রকে সতর্ক করেন। আর সাথে সাথেই মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘অবশ্যই অবশ্যই, নজরে রাখছি’। আর এরই মধ্যে সেই রক্ষীরা বাইরে বেরিয়ে যান। স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের দায়ের করা মামলাটি এ দিন না ওঠায় শেষ পর্যন্ত সাড়ে তিনটেয় আদালত ছাড়েন শোভন। সব মিলিয়ে এদিন মেয়রের নিরাপত্তার কড়াকড়িতে চরম বিপাকে হাইকোর্টের বিভিন্ন মামলার মক্কেল থেকে আইনজীবিরা – যা নিয়ে শুরু তীব্র বিতর্ক।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!