এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > নেত্রীর বার্তাই সার, বিলাসবহুল চালচলন নেতাদের!

নেত্রীর বার্তাই সার, বিলাসবহুল চালচলন নেতাদের!



প্রায় প্রতিটি সভা থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বার্তা দিচ্ছেন, অহংকার ত্যাগ করুন। দলের নেতাদের উদ্দেশ্যেই যে তার এই বার্তা, নেতাজি ইন্ডোর সভা থেকেও তা স্পষ্ট হয়ে গেছে। কিন্তু সত্যিই কি অহংকার ত্যাগ করতে পারছেন তৃণমূলের নেতারা! চোখ মেললেই দেখা যাচ্ছে, ক্ষমতার প্রভাবে এখন অনেক জেলার তৃণমূল নেতাদের আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে গিয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা। গত লোকসভা নির্বাচনের পর অর্পিতা ঘোষকে সভাপতি করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই জেলার সংগঠনকে শক্তিশালী করার স্বপ্ন দেখেছিলেন। হয়ত বা অনেক ক্ষেত্রে তৃণমূল নেত্রীর সেই স্বপ্ন পূর্ণতা পেয়েছে।

কিন্তু জেলার 2, 1 জন তৃণমূল নেতা যেভাবে তাদের জীবনযাপন করছেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরাই। জানা গেছে, অর্পিতা ঘোষের দক্ষিণহস্ত এবং বামহস্ত বলে পরিচিত দুই তৃণমূল নেতার দাপট রীতিমতো অপছন্দের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে অনেকের কাছেই। একাংশের দাবি, বিলাসবহুল গাড়ি, নিরাপত্তারক্ষী নিয়ে ঘোরা এই সমস্ত নেতারা বুথ কর্মীদের সেভাবে পাত্তা দেন না। বারবার শীর্ষ নেতৃত্ব কড়া বার্তা দেওয়া সত্ত্বেও, সাধারণের সঙ্গে তাদের কোনো যোগাযোগ নেই। যার ফলে দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে জেলা নেতৃত্বের দূরত্ব ক্রমশ বাড়তে শুরু করেছে।

বস্তুত, এদিন নেতাজি ইনডোরের সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “কেউ দলের চেয়ে বড় নয়। শৃঙ্খলা না মানলে রাস্তা খোলা রয়েছে। অন্য দলে চলে যান। আমি কর্মী তৈরি করে নেব।” আর তৃণমূল নেত্রীর এই সতর্কবার্তার পরেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বেশকিছু তৃণমূল নেতার আচার আচরণ নিয়ে রীতিমতো প্রশ্ন তৈরি হয়েছে। এদিন এই প্রসঙ্গে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নেতা বলেন, “কয়েকজন নেতার জন্য দলের সুনাম নষ্ট হচ্ছে। দলনেত্রী বারবার হুঁশিয়ারি দিলেও তারা আচার-ব্যবহার বদলাচ্ছেন না। ফলে দলের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। নিচুতলায় ক্ষোভ জমছে।” জানা গেছে, অর্পিতা ঘোষের নেতৃত্বে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার সংগঠন শক্তিশালী হলেও, জেলা সভানেত্রীর সাথে থাকা দুই-একজন দাপুটে নেতার আচার, ব্যাবহারের জন্যই অর্পিতাদেবীর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে।

কিন্তু যেখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই সমস্ত নেতাদের সমঝে থাকার বার্তা দিচ্ছেন, সেখানে কেন অর্পিতাদেবী সকলের অপছন্দের তালিকায় থাকা সেই নেতাদের নিয়েই ঘুরছেন! এদিন এই প্রসঙ্গে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী অর্পিতা ঘোষ বলেন, “আগের চেয়ে সংগঠন অনেক মজবুত হয়েছে। আমরা বলেছি, দলের চেয়ে বেশি বড় নয়। দলের নিয়ম যারা মেনে চলবে না, তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” সব মিলিয়ে এখন নেতাজি ইন্ডোরের সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কড়া বার্তার পরে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল নেতাদের হুঁশ ফেরে কিনা, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!