এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > নেপালের ধাঁচেই ভুটানের হাত ধরে ভারত দখলের স্বপ্ন চীনের! মোদীর এক প্যাঁচেই ভেস্তে গেল সব?

নেপালের ধাঁচেই ভুটানের হাত ধরে ভারত দখলের স্বপ্ন চীনের! মোদীর এক প্যাঁচেই ভেস্তে গেল সব?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – ভারতের অরুণাচল প্রদেশের উপরে অনেকদিন থেকেই চীনের নজর রয়েছে। তবে বারবার চেষ্টা করেও চীন এ ব্যাপারে খুব একটা সফলতা পায়নি। সম্প্রতি লাদাখ দখলের মতো অরুণাচল দখলের লক্ষ্যে ও চীন পা ফেলতে শুরু করেছে। ভারতের উত্তর-পূর্ব সীমান্ত অঞ্চলের দেশগুলিতে বারবার একাধিক অস্র পাঠিয়ে ভারতকে চাপে রাখার চেষ্টা করেছে চীন। ভুটান হয়ে অরুণাচল দখলের ছক কষছে চীন।

কিন্তু এই পরিস্থিতে একটি ঘটনা চীনের সমস্ত প্ল্যান চৌপাট করে দিলো। সম্প্রতি ভুটানের সাকতেং অভয়ারণ্যের জন্য আন্তর্জাতিক ভাবে বহু কোটি টাকার অর্থ বরাদ্দের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আর এই বরাদ্দের পর থেকেই চিন ভুটানের এই ভূখণ্ড নিজের বলে দাবি করতে শুরু করেছে। অরুণাচল প্রদেশ সংলগ্ন এই সাকতেং অভয়ারণ্যের দখল নিয়ে চিনা অরুনাচলের দিকে নিজের হাত বাড়াতে চাইছে, সেকথা সকলেই বোঝে।

কিন্তু ভুটান স্বভাবতই এই সাকতেং অভয়ারণ্য চীনকে ছেড়ে দিতে ইচ্ছুক নয়। যা নিয়ে সংঘাত মেঘ জমতে শুরু করেছে ভুটান ও চীনের মধ্যে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত, ১৯৮৪ সাল থেকে আজপর্যন্ত ভূখণ্ড নিয়ে ভারত ও ভুটানের মধ্যে ২৪ বার আলোচনা হয়েছে।শেষ আলোচনাটি হয়েছে ২০১৬ সালে। ২০১৭ সালে ভুটানের ডোকলাম নিয়ে ভারত ও চীনের মধ্যে শুরু হয় সংঘাত। এই অবস্থায় ভারত ও চীনের সঙ্গে মধ্যস্থতা বা ভারসাম্যের নীতি গ্রহণ করেছিল থিম্পু । কিন্তু চীনের ক্রমাগত একতরফা বিদেশনীতি ও সাম্রাজ্যবাদী নীতির ফলে বেজিং এর সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ হতে থাকে থিম্পুর ।

এদিকে থিম্পুর সঙ্গে বেজিং এর সম্পর্ক খারাপ হবার পর উত্তর পূর্ব ভারতে চীনের বাড়বাড়ন্ত লক্ষ্য করে উত্তরপূর্ব ভারতে নতুন রাস্তা নির্মাণের প্রকল্প নিয়েছে ভারত চীনকে চাপে রাখতে। অন্যদিকে, ভুটানের ডোকলাম, সিনচুলুং, ড্রামান ইত্যাদি এলাকা নিয়ে চীনের সঙ্গে সংঘাত শুরু হলে, দিল্লি ভুটানের কাছে এক নতুন প্রস্তাব এনেছে।

যা হলো, ভুটানের সাকতেং অভয়ারণ্যের ভেতর দিয়ে অরুণাচল ও গুয়াহাটির মধ্যে নতুন একটি সড়কপথ নির্মাণ। এই অবস্থায় ভারত না চীন, কাকে গুরুত্ব দেবে ভুটান, সেদিকে তাকিয়ে আছে এশিয়ার সব দেশ। তবে এটাও ঠিক যে, ভূখণ্ড নিয়ে ভুটানের দাবি-দাওয়াকে সমর্থন জানিয়ে ভারত সবসময় ভুটানের পশে থেকেছে।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!