এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > নতুন ভূমিকায় চাণক্য? ক্ষুব্ধ রাহুল সিনহাকে বঙ্গ বিজেপির মুখ করে মাস্টারস্ট্রোক মুকুল রায়ের?

নতুন ভূমিকায় চাণক্য? ক্ষুব্ধ রাহুল সিনহাকে বঙ্গ বিজেপির মুখ করে মাস্টারস্ট্রোক মুকুল রায়ের?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সম্প্রতি বিজেপি দলের সর্বভারতীয় স্তরে বেশকিছু সাংগঠনিক রদবদল ঘটে গেল। এই রদবদলের ফলে সাংগঠনিক স্তরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদাধিকারীদের নামের নতুন তালিকা প্রকাশ করতে দেখা গেল কেন্দ্রীয় বিজেপিকে। এই তালিকায় দেখা গেল, বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি রূপে উঠে এসেছে মুকুল রায়ের নাম। কিন্তু বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে বাদ পড়েছেন রাজ্য বিজেপির প্রভাবশালী নেতা রাহুল সিনহা।

এই ঘটনায় তিনি যথেষ্ট ক্ষুব্ধ হয়েছেন দলের প্রতি। গতকাল শনিবার রাজ্য বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা জানিয়েছেন, “চল্লিশ বছর ধরে বিজেপির একজন সৈনিক হিসাবে দলের সেবা করে এসেছি। জন্মলগ্ন থেকে বিজেপির সেবা করার পুরস্কার এটাই যে একজন তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা আসছেন, তাই আমায় সরতে হবে। এর চেয়ে বড় দুর্ভাগ্যের কিছু হতে পারে না।” রাজ্য বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার এই মন্তব্যে দলের মধ্যে শুরু হয় গুঞ্জন।

রাহুল সিনহার এহেন মন্তব্য যে মুকুল রায় বা অনুপম হাজরার আঙুল তুলে তা নিয়ে কার্যত দ্বিমত নেই কারোর। ফলে জল্পনা তীব্র হয় রাহুল সিনহা কি এবার দল ছাড়ার কথা ভাবছেন। এই নিয়ে এর আগে মুখ খুলেছিলেন অনুপম হাজরা – তিনি জানিয়েছিলেন, এক কাপ চা নিয়ে বসে রাহুলবাবুর সঙ্গে সমস্যা সমাধান করে নেবেন। আর এবার এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন মুকুল রায়।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

গতকালের রাহুল সিনহার বক্তব্যের পর আজ রবিবার সকাল বেলায় বিজেপি দলের এক বিশেষ কর্মসূচি উপলক্ষে কলকাতা থেকে বাঁকুড়া হয়ে পুরুলিয়াতে যাচ্ছিলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। সদ্য সর্বভারতীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা মুকুল রায়কে ঘিরে আজ দলীয় কর্মীদের আবেগ-উচ্ছ্বাস ছিল একেবারে তুঙ্গে। কলকাতা থেকে সোজা কাঁকসার বাঁশকোপায় এসে তিনি কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে ছিলেন।

এখানে তাঁর বেশকিছু অনুগামীদের অনুরোধে তাঁকে চা পান করতেও দেখা যায়। এরপর গাড়ির মধ্যে বসেই বিজেপি দলের বেশ কিছু নেতা ও কর্মীর সঙ্গে দলের কিছু গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারে আলাপ-আলোচনা সেরে নেন মুকুল রায়। এরপরই বাঁশকোপায় মুকুল রায়কে বলতে শোনা গেল, “রাহুল সিনহা বাংলার মুখ। দীর্ঘদিন ধরে বিজেপি (BJP) করছেন। দু-একটা কথা যদি বলে থাকেন তা থেকে কোনও ধারণা করা উচিত হবে না।” তাঁর এই বক্তব্যের পরেই আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির জয়ের ব্যাপারে যথেষ্ট আশাবাদী হতে দেখা গেল তাঁকে।

এ প্রসঙ্গে তিনি জানালেন, “আগামী দিনে বাংলা ছাড়াও অনান্য যে সমস্ত রাজ্যে বিধানসভার ভোট রয়েছে সেখানে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে ভাল ফল করবে বিজেপি।” রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন – ২০২১-এর নির্বাচন গেরুয়া শিবিরের জন্য যথেষ্ট কঠিন হতে চলেছে। ইতিমধ্যেই বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের খবর বারবার শিরোনামে আসছে। আর তাই সর্বভারতীয় পদ পেয়েই – সেই দ্বন্দ্ব যাতে না বাড়ে তার জন্য কুশলী চাল দিলেন তিনি। কিন্তু এতে কি সত্যিই রাহুল সিনহার মানভঞ্জন হবে? উত্তরের অপেক্ষায় রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!