এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > ” মাননীয়ার উস্কানিতেই আজকে আধা সামরিক বাহিনী আত্ম রক্ষার জন্য গুলি চালাতে বাধ্য হয়।”- বিস্ফোরক শুভেন্দু

” মাননীয়ার উস্কানিতেই আজকে আধা সামরিক বাহিনী আত্ম রক্ষার জন্য গুলি চালাতে বাধ্য হয়।”- বিস্ফোরক শুভেন্দু



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আজ কোচবিহার জেলার শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে চারজন মানুষের মৃত্যু তীব্র রাজনৈতিক তারজার সৃষ্টি করেছে রাজনীতি মহলে। কেন্দ্রীয় বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, আত্মরক্ষার কারণেই গুলি চালাতে বাধ্য হয়েছিলেন তাঁরা। অন্যদিকে এই ঘটনার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকেই দায়ী করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর উস্কানির কারণেই আধা সামরিক বাহিনী আত্মরক্ষার জন্য গুলি চালাতে বাধ্য হয়েছে।

আজ দমদমের বিজেপি প্রার্থী বিমল শঙ্কর নন্দের সমর্থনে রোডশোয়ে যোগদান করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। হুড খোলা গাড়িতে তাঁর রোডশো চলে। রোডশোর সময় রাস্তার উল্টোদিক থেকে তৃণমূল কর্মীদের জয় বাংলা স্লোগান দিতে দেখা যায়। বিজেপির পাল্টা শ্লোগান শোনা যায় জয় শ্রীরাম। রোডশো শেষে গণমাধ্যমের সামনে বক্তব্য রাখেন শুভেন্দু অধিকারী।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

শুভেন্দু অধিকারী জানান, শীতলকুচিতে রাজবংশী সমাজ থেকে আসা বিজেপির একজন কর্মী ও মাত্র ১৮ বছর বয়স্ক আনন্দ বর্মনকে তৃণমূল কংগ্রেসের গুন্ডারা হত্যা করেছে। যা অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা। শুভেন্দু অধিকারী জানালেন, মুখ্যমন্ত্রী শীতলকুচিতে গিয়ে বলেছিলেন, কেন্দ্রীয় আধাসামরিক বাহিনীকে ঘিরে ফেলতে ও অন্যদিকে ভোট করাতে। সকলেই দেখতে পেয়েছেন যে, কিভাবে আধাসামরিক বাহিনীকে ঘিরে ফেলা হয়। অস্ত্র কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়।

তিনি অভিযোগ করেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উস্কানির কারণেই আধাসামরিক বাহিনী আত্মরক্ষার জন্য গুলি চালাতে বাধ্য হয়। ৪ জনের মৃত্যু হয়। যেকোনো মৃত্যু দুঃখজনক। মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন, বলে জানালেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি জানালেন, মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর বন্ধুরা তাঁর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ করেছিলেন। তিনি তার উত্তর দিয়েছেন।

অন্যদিকে, শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলি চালানোর ঘটনায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের পদত্যাগ দাবি করেছে তৃণমূল। এই ঘটনাতে সিআইডি তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, নির্বাচন কমিশনের হাতে পুলিশ-প্রশাসন রয়েছে এখন। কিন্তু সিআইডি তদন্ত করবে, কারা গুলি চালিয়েছে? আত্মরক্ষার জন্য কেন গুলি চালানো হয়েছে? তিনি অভিযোগ করেছেন, বাংলা দখলে হিংসার রাজনীতি করছে বিজেপি। অন্যদিকে আজ বিকেল ৫ টা পর্যন্ত রাজ্যে ভোটদানের হার ৭৬.১৬ শতাংশ।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!