এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > নন্দীগ্রামে পুনর্ণনার সম্ভাবনা আপাতত শেষ কমিশনের সিদ্ধান্তে, এবার কি তাহলে কোর্টের পথে তৃণমূল শিবির?

নন্দীগ্রামে পুনর্ণনার সম্ভাবনা আপাতত শেষ কমিশনের সিদ্ধান্তে, এবার কি তাহলে কোর্টের পথে তৃণমূল শিবির?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – এবারের বিধানসভা নির্বাচনে নন্দীগ্রাম অন্যতম হাইভোল্টেজ কেন্দ্র হিসাবে চিহ্নিত হয়েছিল। কারণ নন্দীগ্রাম থেকে একদিকে যেমন ছিলেন তৃণমূলের হয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লড়াইয়ের ময়দানে, ঠিক তেমনই অন্যদিকে প্রথমবার তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর শুভেন্দু অধিকারী ময়দানে নেমেছিলেন। খুব স্বাভাবিকভাবেই এই কেন্দ্র নিয়ে ছিল ব্যাপক উত্তেজনা। গত 2 রা মে নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণার পর যখন রাজ্যজুড়ে সবুজ ঝড়ের দাপট, তখন সবার নজর টিকে ছিল নন্দীগ্রামের ওপর। একের পর এক জয়ের খবর আসছে ঠিকই।

কিন্তু তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা কিছুতেই খুশি হতে পারছেন না নন্দীগ্রামের ফল না বেরোনোয়। হঠাৎ করেই দেখা যায় নন্দীগ্রামে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জয়ী হয়েছেন। খুব স্বাভাবিকভাবেই রাজ্য জুড়ে শুরু হয়ে যায় সবুজ উৎসব। কিন্তু তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আবার নতুন করে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। যেখানে বলা হয়, তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জ্জী শুভেন্দু অধিকারীর কাছে হেরে গিয়েছেন। স্বাভাবিকভাবেই এর ফলে ব্যাপক বিতর্ক সৃষ্টি হয়। প্রশ্ন ওঠে, যে ফলাফল একবার ঘোষণা হয়ে গেছে সেই ফলাফল দ্বিতীয়বার কি করে ঘোষণা হয় নতুন করে? এক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে বলা হয়, সার্ভার ডাউনের ফলেই যাবতীয় বিপর্যয় হয়েছে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু নির্বাচন কমিশন বিপর্যয়ের দিকে এই ঘটনাকে ঠেলে দিলেও তৃণমূলের পক্ষ থেকে কিন্তু এখনো হাল ছাড়া হয়নি। দাবি উঠেছে, পুনর্গণনার। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে পুনর্গণনার সম্ভাবনা পুরোপুরি উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে এই নিয়ে দিল্লির তরফ থেকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে মঙ্গলবার নন্দীগ্রামের রিটার্নিং অফিসারের একটি এসএমএস প্রকাশ পায়, যেখানে দেখা যায় তিনি কোন এক অজানা ব্যক্তির কাছে জানাচ্ছেন, তিনি কিছুতেই রিকাউন্টিং এর অর্ডার দিতে পারবেন না। কারণ, এক্ষেত্রে তাঁর প্রাণ সংশয় রয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই আরও বিতর্ক তুঙ্গে উঠেছে।

ইতিমধ্যেই নন্দীগ্রামের ওই রিটার্নিং অফিসারের বাড়িতে রাজ্যের ভারপ্রাপ্ত সরকার নিরাপত্তার জোরদার ব্যবস্থা করেছে বলে জানা গিয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জয়ী ঘোষণা করার পর বেশ কিছু সময় কেটে যাওয়ার পর নতুন করে ফল পরিবর্তন হাজার প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। অন্যদিকে এইভাবে নির্বাচন কমিশনের পুনর্গণনার প্রস্তাব ফিরিয়ে দেওয়ার ফলে আরো জোরালো হচ্ছে তৃণমূলের নন্দীগ্রামের ভোট নিয়ে কোর্টে যাওয়ার সম্ভাবনা। আপাতত নন্দীগ্রাম যে অন্যতম বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে রইল একুশের বিধানসভা নির্বাচনে, সে ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!