এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > নাম না করে শুভেন্দু-রাজীবকে কড়া বার্তা মমতার

নাম না করে শুভেন্দু-রাজীবকে কড়া বার্তা মমতার



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সম্প্রতি তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাথাব্যথার কারণ হয়ে উঠেছেন শুভেন্দু অধিকারী বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। শুভেন্দু তৃণমূলের সঙ্গে দূরত্ব বাড়িয়েছেন বেশ অনেকদিনই হল। সবরকম আলোচনা চালিয়েও শুভেন্দুর কাছ থেকে কিন্তু কোনোরকম ইতিবাচক ইঙ্গিত মেলেনি। পাশাপাশি তৃণমূল শিবির থেকে শুভেন্দু বা শুভেন্দু অনুগামীদের কড়া বার্তা দেওয়া শুরু হয়েছে। শুভেন্দু অধিকারীর সাথে সাথেই আবার নতুন করে দলের প্রতি বেসুরো গাইছেন বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এবার বিক্ষুব্ধদের প্রতি বনগাঁ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কড়া বার্তা দিলেন।

নাম না করেই শুভেন্দু অধিকারীসহ তৃণমূলের বিক্ষুব্ধদের উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রী স্পষ্ট বুঝিয়ে দিলেন, তৃণমূলে থাকতে গেলে কোন রকম দর কষাকষি চলবে না। সিদ্ধান্ত হবে শুধুমাত্র তৃণমূল নেত্রীর। এ প্রসঙ্গে তিনি গাছ এবং গরুর সঙ্গে তুলনা টানেন। তাঁর মতে, গাছ যখন বৃক্ষে পরিণত হয়, তখন গরু যদি সেই গাছ খেতে যায় তাহলে গরুর শিং ভাঙ্গে। এ প্রসঙ্গে নাম না করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুভেন্দু, রাজীবসহ অন্যান্যদের রাম, শ্যাম, গোবর্ধন বলে উল্লেখ করেছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে নিশানায় রেখেছেন শুভেন্দু অধিকারী বা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে, সে ব্যাপারে নিঃসন্দেহ রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী গেরুয়া শিবিরকেও ব্যাপক ভাবে আক্রমণ করেন এদিন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগের আঙুল তুলে রাজ্য বিজেপির পাশাপাশি কেন্দ্রীয় বিজেপিকেও কড়া আক্রমণ করেন। কেন্দ্রের কৃষি আইনের বিরুদ্ধেও তিনি প্রবল ক্ষোভ প্রকাশ করেন বলে জানা যায়। অন্যদিকে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের নিরিখে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে এদিন জানিয়েছেন, বাংলায় তৃণমূলকে কোনভাবেই ভাঙা যাবেনা। পাশাপাশি এই বাংলা থেকে তৃণমূলকে সরানো যাবে না মুখ্যমন্ত্রী হুঁশিয়ারি দেন। তিনি আরও দাবি করেন, বাংলার মানুষ তৃণমূলের সঙ্গেই আছে। তাই বাংলাতে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের মসনদ দখল করবে তৃণমূলই।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন বনগাঁয় বিরোধীদের আক্রমণ করতে গিয়ে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নতুন স্লোগান তোলেন, সিপিএম নানা, কংগ্রেস আর না, আর বিজেপি একেবারেই না। তিনি মানুষের উদ্দেশ্যে বলেন, সিপিএমকে মানুষ আর বিশ্বাস করেনা, কংগ্রেসকেও মানুষ ফিরিয়ে আনতে চায় না এবং বিজেপিকে বাংলার মানুষ কোনমতেই চায়না। তবে রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, তৃণমূল শিবিরের একের পর এক ভাঙন এই মুহূর্তে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের যথেষ্ট চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

অন্যদিকে দেখা যাচ্ছে, শুভেন্দু অধিকারী বা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় দুজনেই তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিক্ষুব্ধ মনোভাব পোষণ করলেও তাঁরা কেউই কিন্তু এখনো তৃণমূল শিবিরের সঙ্গে পুরোপুরি বিচ্ছেদ করেননি। শুভেন্দু মন্ত্রীত্ব ছেড়ে দিলেও দলের বিধায়ক পদ এবং প্রাথমিক সদস্যপদ কিন্তু ধরে রেখেছেন। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় তো এখনো মন্ত্রী পদেই রয়েছেন। যদিও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলে থাকা নিয়ে কোনো প্রসঙ্গ তোলেননি। কিন্তু তিনি দলে থাকতে গেলে কি কি নিয়ম মানতে হবে, সে প্রসঙ্গে বনগাঁর সভা থেকে কড়া বার্তা দিলেন বলে মনে করা হচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -

 

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!