এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > নন্দীগ্রামে শুভেন্দুর পায়ের তলার মাটি কেড়ে নিতে নতুন ‘ভূমিকন্যা’ সেনাপতি পেয়ে গেলেন মমতা?

নন্দীগ্রামে শুভেন্দুর পায়ের তলার মাটি কেড়ে নিতে নতুন ‘ভূমিকন্যা’ সেনাপতি পেয়ে গেলেন মমতা?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – তৃণমূলের অন্দরে শুভেন্দু অধিকারীর প্রখর প্রভায় যে সমস্ত রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব দীর্ঘকাল ধরে নিষ্প্রভ হয়ে গিয়েছিলেন, তাঁরা হলেন অখিল গিরি, সৌমেন মহাপাত্র ও শিউলি সাহার মতো ব্যক্তিত্ব। শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল ছেড়ে দিতেই এই সমস্ত ব্যক্তিত্ব আলোকিত হতে শুরু করেছেন। শুভেন্দু অধিকারীর ঘোর বিরোধী রূপে পরিচিত অখিল গিরিকে মন্ত্রিসভায় এনেছেন মুখ্যমন্ত্রী, সেইসঙ্গে মন্ত্রিসভায় স্থান দিয়েছেন শিউলি সাহাকে। নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারী তথা অধিকারী পরিবারের প্রভাব দূর করতে এবার থেকে নন্দীগ্রামের ভূমিকন্যা শিউলি সাহাকে কাজে লাগাতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূলে থাকার সময় তাঁর সঙ্গে ঘোর বিরোধ ছিল তৃণমূল নেত্রী শিউলি সাহার। ২০১১ সালে হলদিয়া থেকে শিউলি সাহা বিধায়ক হয়েছিলেন। কিন্তু শুভেন্দু অধিকারীর আপত্তির কারণে পরবর্তীতে কেশপুর থেকে দাঁড়ান তিনি। শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে তাঁর প্রবল বিরোধ ছিল। সে সময় তিনি মুকুল রায়ের ঘনিষ্ঠ ছিলেন। শুভেন্দু অধিকারীর বিরোধিতার কারণে একাধিকবার বিধায়ক হলেও মন্ত্রী করা হয়নি শিউলি সাহাকে। কিন্তু, শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল ছেড়ে দিতেই এবার মন্ত্রিসভায় স্থান পেয়েছেন শিউলি সাহা।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিকে নন্দীগ্রাম থেকে নির্বাচনে জয়লাভ করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। তাই নন্দীগ্রামের বিধানসভা আসন তৃণমূলের হাতে নেই। নন্দীগ্রামের মানুষকে পঞ্চায়েতের মাধ্যমে সরকারি সুযোগ-সুবিধা ও পরিষেবা পৌঁছে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল। পঞ্চায়েত দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে শিউলি সাহাকে। এদিকে নন্দীগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান হলেন শিউলি সাহার মা বনশ্রী খাঁড়া। মা ও মেয়ে উভয়ের রাজনৈতিক প্রভাবকে কাজে লাগিয়ে নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীকে বড়োসড়ো ধাক্কা দিতে চায় রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল।

তবে, তৃণমূলের এই প্রচেষ্টা সম্পর্কে বিজেপি নেতা প্রলয় পাল জানিয়েছেন যে, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে হারিয়ে দিয়ে বিরোধী দলনেতা হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। এ কথা মনে রাখা প্রয়োজন। শিউলি সাহা কেশপুর থেকে জয়লাভ করেছেন, তিনি নন্দীগ্রামের মেয়ে হলেও নন্দীগ্রামের মানুষ শুভেন্দু অধিকারীকেই চান। মুখ্যমন্ত্রীর পরাজয়ের মধ্য দিয়ে তা স্পষ্ট হয়ে গেছে। তাই যাকেই দায়িত্ব দেয়া হোক না কেন, নন্দীগ্রামের মানুষের মন কিছুতেই পাবে না তৃণমূল।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা জানাচ্ছেন, শুভেন্দু অধিকারীর বিরোধীদের বড়োসড়ো ক্ষমতায় এনে নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর পায়ের তলার মাটি কেড়ে নেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল। এই পরিকল্পনা সফল করতেই নন্দীগ্রামের ভূমিকন্যাকে এবার ব্যবহার করতে চাইছে তৃণমূল। কারণ, মুখে স্বীকার না করলেও শুভেন্দু কাঁটা যথেষ্ট নাস্তানাবুদ করেছে তৃণমূলকে। তবে, এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী শিউলি সাহা জানিয়েছেন, দল তাঁকে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দিয়েছে। ভালোভাবে কাজ করার চেষ্টা করবেন তিনি। নন্দীগ্রাম হলো তাঁর বাপের বাড়ী, তাই অবশ্যই নন্দীগ্রামে যাবেন তিনি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!