এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > নবান্নে সাক্ষাত মুখ্যমন্ত্রী ও মেয়র বান্ধবীর, পুরভোটের প্রাক্কালে রাজনৈতিক সমীকরণ বদলের গুঞ্জন

নবান্নে সাক্ষাত মুখ্যমন্ত্রী ও মেয়র বান্ধবীর, পুরভোটের প্রাক্কালে রাজনৈতিক সমীকরণ বদলের গুঞ্জন



পুরভোটের মুখে তৃণমূলের টানটান নাটক বঙ্গ রাজনীতিতে। এই মুহূর্তে তৃণমূলের আভ্যন্তরীণ সমীকরণ নতুন করে তৈরি করার জন্য চলছে প্রস্তুতি। রাজনৈতিক মহলের একাংশের দাবি, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের শাসকদলে ফেরার আশা ক্রমশ ঘনীভূত হচ্ছে। মাত্র এক সপ্তাহ আগেই কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বেহালা পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রের দলের সাংগঠনিক দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছিল তাঁর স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের হাতে। কিন্তু শনিবার সন্ধ্যায় নাটকীয় ভঙ্গিতে বেহালা পূর্ব বিধানসভার তৃণমূল কংগ্রেসের দায়িত্ব ছাড়লেন রত্না চট্টোপাধ্যায়।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই রত্না চট্টোপাধ্যায় শোভন চট্টোপাধ্যায়কে ইঙ্গিত করে বেহালা পূর্বের দায়িত্ব নেওয়ার কথা বলেছিলেন। প্রাক্তন মেয়র পত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের এহেন সিদ্ধান্তে এই মুহূর্তে রাজনৈতিক মহলে তীব্র গুঞ্জন। তাহলে কি শোভন চট্টোপাধ্যায় কামব্যাক করছেন তৃণমূলে? রত্না চট্টোপাধ্যায় শনিবার বিধানসভা পূর্ব বেহালার দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ার পর থেকেই রাজনৈতিক মহলের জল্পনা আরও জোরদার হয়েছে। আর তার মাঝেই এবার নতুন করে জল্পনা উসকে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের দীর্ঘদিনের বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় জানালেন, প্রাক্তন মেয়র  শোভনবাবু যেখানেই যান না কেন তিনি যেন সম্মানের সঙ্গে কাজ করতে পারেন।

কিছুদিন আগেই বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় হাজির হয়েছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাতে। আর এবার সাক্ষাৎ পর্বে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় আনলেন নতুনত্ব। তিনি এবার সোজা পৌঁছালেন নবান্নে, মুখ্যমন্ত্রীর দরবারে। এই মুহূর্তে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কি আলোচনা হতে পারে তাই নিয়ে তুমুল চর্চা চলছে রাজ্য রাজনীতিতে। অন্যদিকে, বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় সঙ্গে বৈঠকের পরে রত্না চট্টোপাধ্যায় সাত দিনের মধ্যে তার পদ থেকে সরে গেলেন। অতএব শোভন চট্টোপাধ্যায়ের দলে ফেরা নিয়ে এই মুহূর্তে তুমুল জল্পনা।

অন্যদিকে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিকদের সামনে শোভন চট্টোপাধ্যায় সম্পর্কে বেশ কিছু ইতিবাচক মন্তব্য করেন এদিন। বৈশাখী দাবি করেছেন, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মতন কলকাতা পুরসভাকে আর কেউ চেনেন না। তাই পুরসভা নির্বাচনে প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় যদি আবার সক্রিয় হন তাহলে এর থেকে খুশির বিষয় আর কিছুই নেই। তবে সম্পূর্ণ সিদ্ধান্ত বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ওপর ছেড়েছেন। শোভন চট্টোপাধ্যায় কোন দলের হয়ে কাজ করবেন, তা তাঁর ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত বলে।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তবে এদিন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ প্রসঙ্গে জানান, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের তৃণমূলের ফেরা সংক্রান্ত কোন বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর আলোচনা হয়নি। অন্যদিকে রত্না চট্টোপাধ্যায় সাংগঠনিক দায়িত্ব ছাড়ার পর অবশ্য জানিয়েছেন, তৃণমূলে ফিরলেই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের যে চারিত্রিক পরিবর্তন হবে তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। বরং গত তিন বছর ধরে শোভন চট্টোপাধ্যায় বাংলার মানুষের কাছে যে রূপে এসেছেন বা যে কথা বলেছেন তা সহজে মুছে ফেলা সম্ভব নয়।

তাঁর এই বক্তব্যে রাজনৈতিক মহলের দাবি, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের দলে আসার ব্যাপারে স্পষ্ট ইঙ্গিত পাওয়া গেল রত্না চট্টোপাধ্যায়ের কথায়। উল্লেখ্য, রত্না চট্টোপাধ্যায় পৌরসভা নির্বাচনের আগে বেহালা পূর্বের দায়িত্ব নেওয়ার পরেই জানিয়েছিলেন, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ফিরে এলে তিনি দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়াবেন। তাই এবার প্রশ্ন উঠছে, তাহলে কি শোভন চট্টোপাধ্যায় ফিরে আসছেন? কারণ, ইতিমধ্যে রত্না চট্টোপাধ্যায় তাঁর কথা রেখেছেন।

প্রসঙ্গত বিজেপিতে যোগদানের পরেই গেরুয়া বাহিনীর সঙ্গে ক্রমশ মনোমালিন্যে জড়ান শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। দূরত্ব ক্রমশ বাড়তে থাকে। তাই সমস্ত ঘটনাবলী দীর্ঘদিন পর্যবেক্ষণ করে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, পুরভোটের মুখে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে যে চর্চা চলছে তারই পরিপ্রেক্ষিতে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের এদিন নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর মুখোমুখি হওয়ইয়র ঘটনা রাজনৈতিক দিক থেকে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে বিবেচিত হবে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!