এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > এন আর সি নিয়ে লাগাতার আন্দোলন শুরু তৃণমূলের

এন আর সি নিয়ে লাগাতার আন্দোলন শুরু তৃণমূলের



লোকসভা ভোটের পর থেকে কেন্দ্রে বিজেপি নেতৃত্ব এনআরসি নিয়ে তৎপর হয়েছে। এনআরসি বা নাগরিক পঞ্জিকার প্রথম পর্ব শুরু হয় আসাম থেকে। এনআরসি হওয়ার পর দেখা যায় আসাম থেকে 19 লক্ষ মানুষের নাম বাদ পড়েছে। যার মধ্যে 11 লক্ষ হিন্দু বলে দাবি করা হচ্ছে। এই ঘটনায় সারাদেশে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়েছে।

আর এই বিতর্কের মাঝেই এনআরসি আতঙ্কে একের পর এক আত্মহত্যার ঘটনা ঘটছে পশ্চিমবঙ্গে। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের দাবি, সম্পূর্ণ গুজবে কান দিয়ে রাজ্যের সাধারণ মানুষ দিশেহারা হয়ে পড়ছে। যার ফলে একের পর এক আত্মহত্যার ঘটনা। এবার এনআরসির বিরুদ্ধে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা জুড়ে লাগাতার আন্দোলন শুরু হতে চলেছে।

যুব তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্বে এবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় এনআরসি ও বিজেপির বিরুদ্ধে জোরদার আন্দোলন শুরু হতে চলেছে। বৃহস্পতিবার জেলায় যুব তৃনমূলের পদাধিকারী ও কর্মীরা এবং সমর্থকদের নিয়ে বিদ্যাসাগর হলে বৈঠক হয়। সেখানে জেলার ব্লক স্তরের নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

আগামী দিনের দলীয় কর্মসূচি কি কি গ্রহণ করা হবে সে সম্পর্কে সিদ্ধান্ত হয় ওই বৈঠকে। জেলা যুব তৃনমূলের সভাপতি প্রসেনজিৎ চক্রবর্তী এদিন বলেন, একুশে অক্টোবর থেকে ব্লক জুড়ে এনআরসি বিরোধী অভিযান শুরু হবে। 30 শে নভেম্বর পর্যন্ত চলবে। 6 ডিসেম্বর মেদিনীপুর শহরে এনআরসি ও বিজেপি বিরোধী ইস্যুকে কেন্দ্র করে এক বিরাট পদযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে।

এদিন দলীয় সূত্রে জানা গেছে, একুশে অক্টোবর গরবেতা 1 ব্লকে যুব তৃনমূলের কর্মসূচি শুরু হবে। এরপর নভেম্বরে টানা জনসভা করে একের পর এক ব্লকে একই ইস্যুকে বারবার মানুষের সামনে তুলে ধরে বিজেপি বিরোধী জনমত তৈরি করা হবে। ব্লক নেতৃত্ব কে 30 শে নভেম্বর এর মধ্যে এই পুরো কর্মসূচি শেষ করতে বলা হয়েছে। 6 ডিসেম্বর মেদিনীপুর শহরে জেলার সব প্রান্তের তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের উপস্থিতিতে এক বিশাল পদযাত্রা হবে‌।

মূলত দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে সাধারণ মানুষের জনসংযোগ বাড়ানোর জন্যই এ ধরনের কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। তাছাড়া জেলার একাধিক ব্লকে বিজেপি মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। বিজেপির এই মাথাচাড়াকে সমূলে ধ্বংস করার জন‍্য লাগাতার আন্দোলনের কর্মসূচি নিয়েছে যুব তৃণমূল। যদিও বিজেপি নেতৃত্বের বক্তব্য, মানুষ এখন তৃণমূল থেকে মুখ সরিয়ে নিয়েছে। ফলে এনআরসি নিয়ে জনসভাই করুক আর পদযাত্রা করুক, আখেরে তৃণমূলের কোন লাভ হবে না।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে এনআরসি বিরোধিতায় বৃহস্পতিবার কাঁথিতে বাম কংগ্রেসের মিলিত মঞ্চ কাঁথি পিপলস ফোরাম এক পদযাত্রার আয়োজন করে, যাতে শতাধিক মানুষ সামিল হন। এই পদযাত্রা থেকে অভিযোগ তোলা হয়, কেন্দ্রীয় সরকার এনআরসি প্রয়োগের মাধ্যমে ধর্মীয় মেরুকরণের রাজনীতি শুরু করতে চলেছে। ওই পদযাত্রা থেকে জনসাধারণকে আহ্বান করা হয়েছে এনআরসি বিরোধিতায় আওয়াজ তোলার জন্য। এদিন বাম কংগ্রেস নেতৃত্ব থেকে বলা হয়, যে কোনো মূল্যে এনআরসিকে আটকাতে হবে। আর তার জন্য এ রাজ‍্যের সমস্ত দলকে এক হতে হবে।

এনআরসি নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব প্রথম থেকেই আওয়াজ তুলেছে। অনুপ্রবেশ যেখানে চিন্তার বড় কারণ, সেখানে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে একমাত্র এনআরসি হাতিয়ারই প্রয়োজন বলে বিজেপি সরকার দাবি করে এসেছে। অনুপ্রবেশের ফলে বিভিন্ন রাজ্যের প্রতিবেশী দেশ থেকে অনুপ্রবেশকারীরা ভারতে এসে সন্ত্রাসমূলক কার্যকলাপ চালাচ্ছে। অনুপ্রবেশ আটকাতে এনআরসি ছাড়া গতি নেই। আপাতত এনআরসি নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব কি সিদ্ধান্ত নেবে পরবর্তীকালে, সেদিকেই নজর রাখবেন রাজনৈতিক মহল ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!