এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > রেলে চাকরি মামলায় কি হলো মুকুল রায়ের, কি রায় দিলো আদালত

রেলে চাকরি মামলায় কি হলো মুকুল রায়ের, কি রায় দিলো আদালত



সোমবার কলকাতা হাইকোর্ট রেলে চাকরী দেওয়ার নাম করে আর্থিক লেন্দেন সংক্রান্ত প্রতারণা মামলার রায়দান স্থগিত করলো। এদিন  হাইকোর্টের বিচারপতি শিবকান্ত প্রসাদ এই নির্দেশ দেন। উল্লেখ্য রেলে চাকরী দেওয়া সংক্রান্ত প্রতারণার অভিযোগে এই পর্যন্ত মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে ১১টি এফআইআর দায়ের হয়েছিল। যার মধ্যে এদিন  ৯টি মামলার শুনানি শেষ হয়ে গেল । জানা যাচ্ছে পরদিন অবশিষ্ট দুটি মামলার শুনানি হবে। এদিন মামলার শুনানি শেষে বিচারপতি রায়দান স্থগিত রেখে এখনই মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে পুলিশ কোনো আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারবেনা জানিয়ে নির্দেশ দেয়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

প্রসঙ্গত ২০১২ সালে মুকুল রায় রেল রাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালীন সময়ে মুকুল রায়ের শ্যালক সৃজন রায়ের বিরুদ্ধে রেলে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগ ওঠে।  সম্প্রতি এই অভিযোগ দায়ের হলে সেই অভিযোগের ভিত্তিতে মুকুল রায়ের শ্যালক সৃজনকে গ্রেফতার করা হয়। এরপরেই ঘটনার সুবিচারের আশায় মুকুল বাবু আদালতের স্মরণাপন্ন হন। এদিন সেই মামলা শুনানি চলাকালীন বিচারক অভিযোগকারীর আইনজীবি শিলাদিত্য সান্যালের কাছে জানতে চান যে এই ঘটনার পর ৬ বছর সময় অতিক্রান্ত। তবে এখন কেনও এই বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করা হলো। একই সাথে বিচারপতি প্রশ্ন করলেন অভিযোগকারী সকলেই  বেকার ও দুঃস্থ পরিবারের। তাহলে তাঁরা কী করে রেলে চাকরী পাওয়ার বিনিময়ে এত টাকা উৎকোচ গ্রহণের শর্তে রাজী হলেন ? এক্ষেত্রে তাঁদের আয়ের উৎসই বা কী ? বিচারকের এইসব প্রশ্নের কোনো সঠক জবাব অভিযোগকারীর আইনজীবির পক্ষ থেকে দেওয়া সম্ভব হয়নি। অন্যদিকে রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত বলেন, কবে এফআইআর হল সেটা গুরুত্ব দিয়ে না দেখে অপরাধটাকেই বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখা উচিত আদালতের। আবার সরকারি কৌঁসুলি শ্বাশতগোপাল চট্টোপাধ্যায় আদালতে অভিযোগ করেন, মুকুল রায়ের নির্দেশে শ্যালক সৃজন রায় রেলের স্টাম্প, শীল জাল করেছেন। একইসাথে খোঁজ পাওয়া যাচ্ছেনা মেডিক্যাল ফিট সার্টিফিকেট দেওয়া চিকিৎসকের। আদালতে বাদী বিবাদী দুই পক্ষের সওয়াল জবাবের মধ্যে  রায়ের আইনজীবী পরমজিত্‍ সিং পাটুয়ালিয়া বললেন একজন জন প্রতিনিধির বিরুদ্ধে এফআইআর করার আগে এক দফা পুলিশি তদন্তের দরকার ছিলো। পুলিশ সেই দায়িত্ব পালন করেনি। সব মিলিয়ে এদিন হাইকোর্ট চত্বর নিঃসন্দেহেই বেশ সরগরম ছিলো ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!