এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > পুরভোটের আগে তৃণমূলের অস্বস্তি দ্বিগুন করতে বড়সড় দায়িত্ব মুকুল রায়কে, শুরু রাজনৈতিক চর্চা

পুরভোটের আগে তৃণমূলের অস্বস্তি দ্বিগুন করতে বড়সড় দায়িত্ব মুকুল রায়কে, শুরু রাজনৈতিক চর্চা



গত লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের প্রাক্তন সেকেন্ড-ইন-কমান্ড মুকুল রায়ের কৌশলেই বিজেপি বাংলায় অত্যন্ত ভালো ফলাফল করেছিল। আর বাংলার চাণক্য হিসেবে পরিচিত মুকুল রায়ের বুদ্ধিমত্তায় বিজেপি লোকসভায় ভালো ফলাফল করার পর, তাদের টার্গেট ছিল 2021 এর বিধানসভা দখল। ইতিমধ্যেই সেই জন্য দলীয় স্তরে নানা প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেছে গেরুয়া শিবির।

তবে বিধানসভায় ভালো ফল করতে গেলে, তার আগে রাজ্যজুড়ে অনুষ্ঠিত পৌরসভা নির্বাচনে যে বিজেপিকে নজরকাড়া সাফল্য আনতেই হবে, তা উপলব্ধি করেছেন মরলীধর লেনের কর্তারা। আর তাইতো বর্তমানে পৌরসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে তৃণমূলের বিরুদ্ধে নানা জায়গায় প্রচার করতে শুরু করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

তবে যে মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপি লোকসভা নির্বাচনে সাফল্য পেল, সেই মুকুল রায় এতদিন বিজেপিতে কোনো পদ না পাওয়ায় তার অনুগামীদের মধ্যে কিছুটা হলেও হতাশা সৃষ্টি হয়েছিল। তবে এবার লোকসভায় দলকে সাফল্য এনে দেওয়া মুকুল রায় প্রতিভা দেখে তার ক্যারিশমাতেই পৌরসভা নির্বাচনে জয়লাভ করতে চাইছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

সূত্রের খবর, এবার বাংলায় পৌরসভা নির্বাচনের জন্য কমিটি গঠন করল গেরুয়া শিবির। যেখানে সেই কমিটির আহ্বায়ক করা হল বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে। অন্যদিকে সহ আহ্বায়ক করা হয়েছে, বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় সিংকে। তবে বিজেপি মুকুল রায়ের নেতৃত্বে পৌরসভা নির্বাচনে সাফল্য পেতে চাইলেও এবং তার কাঁধে দায়িত্ব দিলেও এক্ষেত্রে কিছুটা সর্তকতা অবলম্বন করতে চাইছে তারা।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

জানা যাচ্ছে, সবকটি পৌরসভা আলাদা করে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির তৈরি করা হবে। জেতার সম্ভাবনা রয়েছে, এমন প্রার্থীকেই টিকিট দেবে ভারতীয় জনতা পার্টি। শুধু তাই নয়, যে সমস্ত ব্যক্তিদের পৌরসভা নির্বাচনের জন্য টিকিট দেওয়া হবে, তারা যাতে জয়লাভ করেন, তার জন্য দায়িত্ব নেবেন দলের সাংসদ এবং বিধায়করা। এক্ষেত্রে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে পদ্ম শিবির।

বস্তুত, প্রায় প্রতি সময়েই তৃণমূলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, বিজেপি বাংলা দখলের স্বপ্ন দেখছে ঠিকই। কিন্তু তাদের প্রধান মুখ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হলেও, বিজেপির এমন কোনো মুখ নেই। তবে এবার বিজেপি চাইছে, কোনো নতুন মুখ না তৈরি করে সরাসরি নির্বাচনে ঝাঁপাতে। এক্ষেত্রে তৃণমূলের বিরুদ্ধে নানা বিষয়ে সরব হয়ে দলের প্রার্থীদের জেতানোই তাদের মূল লক্ষ্য হবে বলে মনে করছে একাংশ‌।

অনেকে বলছেন, লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি ভালো ফলাফল করার পর দলে অনেক নেতার মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়ে গিয়েছিল। তাই পৌরসভা নির্বাচনের সাফল্য পাওয়ার আগে তেমন ভাবে কাউকে মুখ হিসেবে ঘোষণা না করে সাফল্য পেয়ে সেই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে পদ্ম শিবিরের নেতৃত্বরা।

সব মিলিয়ে এবার পৌরসভা নির্বাচনের জন্য কমিটি গঠন করে তেমনভাবে কাউকে মুখ না করে লড়াইয়ে সাফল্য পাওয়াই প্রধান লক্ষ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে বিজেপির কাছে। তবে বিজেপি তৃণমূলের মত দোর্দন্ডপ্রতাপ শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করে পৌরসভা নির্বাচনে কতটা সাফল্য আনতে পারে! সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!