এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > ‘বিস্ফোরক’ আইনে গ্রেপ্তার মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ী, পঞ্চবাণে অতিষ্ঠ বিজেপি নেতা

‘বিস্ফোরক’ আইনে গ্রেপ্তার মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ ব্যবসায়ী, পঞ্চবাণে অতিষ্ঠ বিজেপি নেতা



কিছুদিন আগেই সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে জানা যাচ্ছে একেবারে ১৭ টি মামলায় মুকুল রায়কে ঘিরে ফেলার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে রাজ্য প্রশাসন, যার মধ্যে আছে প্রতারণা থেকে খুন – সব ধরনের অভিযোগই। কিন্তু তারও আগে জল্পনা বাড়িয়ে একে একে গ্রেপ্তার হচ্ছেন মুকুল রায়ের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিতরা। গতকাল রাতে ভিআইপি রোডের রেস্তোরাঁ থেকে বীজপুর থানার পুলিশ গ্রেফতার করেছে কাঁচড়াপাড়া এলাকার বাসিন্দা সুবোধ অধিকারীকে। কিছুদিন আগেই হালিশহরের একটি ফ্ল্যাট থেকে বোমার ‘বিস্ফোরক’ উদ্ধার করেছিল স্থানীয় পুলিশ, সেই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয় সুবোধবাবুকে বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে, তাঁর বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ মুকুলবাবু রেলমন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই নাকি এলাকায় তাঁর প্রতিপত্তি বাড়তে থাকে। এমনকি, কাঁচড়াপাড়ার রেল ওয়ার্কশপের টেন্ডার জোর করে দখলের অভিযোগও ওঠে সুবোধবাবুর বিরুদ্ধে। পুলিশ সূত্রে দাবি, সুবোধবাবু একজন ‘দাগি দুষ্কৃতী’, তাই বেশিরভাগ সময় দিল্লি ও ব্যাঙ্ককে কাটান। বিশেষ সূত্রে কবর পেয়ে গতকাল রাত্রে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রসঙ্গত এই নিয়ে পঞ্চম মুকুল রায় ঘনিষ্ঠকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। এর আগে গ্রেপ্তার হন –
১. প্রতারণা মামলায় দেবাশিস দাস
২. পুরনো একটি মামলায় পৃথ্বীশ দাশগুপ্ত
৩. মুকুল রায়ের ভাড়া নেওয়া অফিসের মালিক শরদ কুমার সিং (২০১১ সালে শেয়ারে বিনিয়োগে পরামর্শ দিয়ে একজনকে ঠকানোর অভিযোগে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে গ্রেপ্তার)
৪. শ্যালক সৃজন রায় – ২০১২ সালে মুকুল রায় রেলমন্ত্রী থাকাকালীন রেলে চাকরি দেবার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা
৫. সুবোধ অধিকারী – বাড়িতে বোমার মশলা রাখার অভিযোগে

এছাড়াও খোঁজ চলছে মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ ছাত্রনেতা সুজিত শ্যামের, যিনি মুকুল রায়ের দিল্লির বাড়ি থেকে কিছুদিন আগেই ‘রহস্যজনক ভাবে’ নিখোঁজ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!