এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > মুকুল রায়ের প্রত্যাবর্তনের পরই রাজ্যে দলত্যাগ বিরোধী আইন কার্যকরের হুঁশিয়ারি শুভেন্দু অধিকারীর

মুকুল রায়ের প্রত্যাবর্তনের পরই রাজ্যে দলত্যাগ বিরোধী আইন কার্যকরের হুঁশিয়ারি শুভেন্দু অধিকারীর



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – মুকুল রায়ের তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনের পর বিজেপির বেশকিছু হেভিওয়েট কটাক্ষ করলেও, এ ব্যাপারে নিশ্চুপ ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তবে, গতকাল নীরবতা ভাঙলেন তিনি। রাজ্যে দলত্যাগ বিরোধী আইন কার্যকর করার হুঁশিয়ারি দিলেন শুভেন্দু অধিকারী। গতকাল পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরায় দলের এক বৈঠকে উপস্থিত হয়ে গণমাধ্যমের সামনে শুভেন্দু অধিকারী জানালেন যে, সময় লাগতে পারে, তবে রাজ্য বিধানসভায় দলত্যাগ বিরোধী আইন কার্যকর করে দেখাবেনই তিনি। আর এই আইন মেনেই দলত্যাগ করতে হবে।

গতকাল বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী জানালেন যে, পশ্চিমবঙ্গে দলত্যাগ বিরোধী আইন কার্যকর করা হয়নি। বিরোধী দলনেতা হিসেবে তিনি দায়িত্ব নিয়ে বলতে চাইছেন যে, পশ্চিমবঙ্গে তিনি দলত্যাগ বিরোধী আইন কার্যকর করেই দেখাবেন। দু-তিন মাস সময় লাগতে পারে, কিন্তু এই আইন মেনেই দলত্যাগ করতে হবে। এর বাইরে অন্য কোন উপায়ে দলত্যাগ করা যাবে না।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এরপর, নিজের প্রসঙ্গে তিনি জানালেন, তিনি সমস্ত কিছু ছেড়ে দিয়ে এক জন সাধারণ ভোটার হিসেবে বিজেপির সদস্য পদ গ্রহণ করেছিলেন। যদি এটা কেউ অনুসরণ করতে চান, তাহলে তিনি তা করতে পারেন। বহুদলীয় গণতন্ত্রে নিয়ম মেনেই সমস্ত ব্যবস্থা রয়েছে। আবার, সরাসরি নাম না নিয়েও মুকুল রায়ের উদ্দেশ্যে তিনি জানান যে, ভারতীয় জনতা পার্টি কোন ব্যক্তি নির্ভর দল নয়। এই দল সংগঠনের উপর ভিত্তি করে দাঁড়িয়ে আছে। তাই কোন একজন চলে গেলে দলের কোনো ক্ষতি হবে না।

অন্যদিকে, মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলকে কটাক্ষ করে তিনি জানালেন যে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তৃণমূল কংগ্রেস বা পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা আইনের উর্ধে নয়, তা প্রতিষ্ঠিত করার দায়িত্ব বিরোধী দলনেতারও। মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে তিনি জানান, ২০১১ সালে রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর ২০১২ সাল থেকে দল ভাঙার খেলা খেলছেন তিনি। বিরোধী দলের একের পর এক নেতা, বিধায়ককে দলে টেনে নিজের রাজত্বে বিরোধী শক্তি শেষ করে দেওয়ার খেলায় মেতেছেন তিনি। এর আগে সিপিএম ও কংগ্রেসকে ভেঙেছেন, এখন ভাঙছেন বিজেপিকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!