এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > আমাকে ‘বেইমান’ বলেছিল, এবার দিদিমণি হাড়ে হাড়ে টের পাবেন আমার ‘ক্ষমতা’: মুকুল রায়

আমাকে ‘বেইমান’ বলেছিল, এবার দিদিমণি হাড়ে হাড়ে টের পাবেন আমার ‘ক্ষমতা’: মুকুল রায়



ত্রিপুরায় বিপুল ভোটে জয়লাভের কয়েক ঘন্টা কাটতে না কাটতেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে বাক্যবাণে বিঁধলেন একদা তৃণমূল প্রথম সারির নেতা মুকুল রায়। মুকুল বাবু এদিন জানালেন, বাংলার সবচেয়ে বড় ‘বেইমান’-‘বিশ্বাসঘাতকের’ নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সামনের পঞ্চায়েত নির্বাচনে ত্রিপুরার কায়দাতেই ওঁকে যোগ্য জবাব দেবে বঙ্গবাসী। এক প্রকার বিদ্রুপের সুরেই মুকুল রায় বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন-সিপিএম জিতলে তিনি খুশি হবেন। তাই সিপিএমের পরাজয়ের দায়ভারও নিতে হবে তাঁকে। এই ঘটনার অল্প সময়ের মধ্যেই তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় কড়া ভাষায় জানান, ত্রিপুরা নিয়ে যাঁরা বাংলার মাটিতে লাফালাফি করতে শুরু করেছেন, তাঁরা যত খুশি ঢাক, ঢোল, কীর্তন বাজান। বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলে এখানে শত চেষ্টা করেও ক্ষমতা দখল হবে না। যার জবাবে মুকুল রায়ও পাল্টা জানিয়েছেন, আমাকে বেইমান বলেছিল। এবার দিদিমণি হাড়ে হাড়ে টের পাবেন আমার ক্ষমতা। আপনারা শুধু পঞ্চায়েত অবধি অপেক্ষা করুন। এদিকে বিজেপি সূত্রের খবর অনুযায়ী, ত্রিপুরা বিজয়ের পর কার্যত মুকুল রায়ের মোবাইলে টেলিফোনের সুনামি, রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিতে চেয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ছোট-বড় নেতাদের ফোনের পর ফোন আসতে শুরু করেছে, যা নিয়ে পঞ্চায়েতের আগেই যথেষ্ট উজ্জীবিত বঙ্গ বিজেপির শীর্ষনেতৃত্ত্ব।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!