এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > যে মই বেয়ে ওপরে ওঠেন, সেটাকেই ফেলে দেন! মমতার ঘুম উড়িয়ে বিস্ফোরক অভিযোগ হেভিওয়েট বিধায়কের!

যে মই বেয়ে ওপরে ওঠেন, সেটাকেই ফেলে দেন! মমতার ঘুম উড়িয়ে বিস্ফোরক অভিযোগ হেভিওয়েট বিধায়কের!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী আগামী দিনে কি রাজনৈতিক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে চলেছেন? তা নিয়ে নানা প্রশ্ন, নানা আশঙ্কা, নানা জল্পনা দানা বাঁধছে রাজ্যের রাজনীতিতে। অনেকেই বলে থাকেন যে, দলের কাছে উপযুক্ত মর্যাদা না পাওয়ার কারণে দলের বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। অনেক অভিযোগ করেছেন যে, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে দলে অতিরিক্ত প্রাধান্য দিতে গিয়েই, শুভেন্দু অধিকারীকে দলে কোণঠাসা করে দেওয়ার অপপ্রয়াস চলছে।

শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে একাধিক বিরোধী দল কটাক্ষ করতে ছাড়ছে না শাসক দল তৃণমূলকে। বিজেপি যেমন বহুবার কটাক্ষ করেছে, তেমনি গতকাল শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে ও সাম্প্রতিক নানা ঘটনা প্রবাহ ঘিরে মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল দলকে কটাক্ষ করলেন বামপন্থী নেতা সুজন চক্রবর্তী। বাম নেতা সুজন চক্রবর্তী জানালেন যে, মুখ্যমন্ত্রী যে মই বেয়ে ওঠেন, তার পর সেটাকেই ফেলে দেন।

গতকাল পূর্ব মেদিনীপুরের চণ্ডীপুর থেকে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিষেদাগার করলেন সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী। প্রসঙ্গত আগামী ২৬ সে নভেম্বর একাধিক দাবি নিয়ে দেশজুড়ে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে বিভিন্ন বাম সংগঠন। উক্ত ধর্মঘটের সমর্থনে গতকাল বৃহস্পতিবার পূর্ব মেদিনীপুরের চণ্ডীপুরের হাঁসচড়ায় সিপিএমের পক্ষ থেকে এক মিছিলের আয়োজন করা হয়েছিল। মিছিলে যোগ দিয়েছিলেন বামপন্থী নেতা সুজন চক্রবর্তী।

গতকাল পূর্ব মেদিনীপুরে এই মিছিল শেষ করে এক সাংবাদিক বৈঠকে যোগদান করলেন সুজন চক্রবর্তী। এই সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যের শাসকদলের প্রসঙ্গ নিয়ে বক্তব্য রাখলেন তিনি। সম্প্রতি শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে যে রাজনৈতিক টানাপোড়েনের সৃষ্টি হয়েছে, সে বিষয়ে তাঁকে বলতে শোনা গেল, ” এটা সবার কাছে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে, যে মই বেয়ে মুখ্যমন্ত্রী ওপরে ওঠেন তা ফেলে দেন। এটা শুধু শুভেন্দুর একার ক্ষেত্রে নয়, অনেকের ক্ষেত্রেই এমনটা হয়েছে। ”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

বামপন্থী দল নেতা সুজন চক্রবর্তী প্রশ্ন রেখেছেন যে, নন্দীগ্রাম ও সিঙ্গুরের জমি আন্দোলন যদি মুখ্যমন্ত্রীর হাত ধরেই সম্পন্ন হয়ে থাকে, তবে সিঙ্গুর ও নন্দীগ্রামের দুজন বিধায়ক সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রীর সম্পর্কে ভিন্ন কথা বলছেন কেন? এরপর মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীর জানালেন যে, মুখ্যমন্ত্রী ইতিপূর্বে যেগুলো প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, সেগুলো সমস্ত ভুয়ো প্রতিশ্রুতি ছিল। যা সকলেই বুঝতে পারছেন। রাজ্যের মানুষও বুঝে গেছেন এই বিষয়টি।

এদিকে সদ্য সমাপ্ত হল বিহারের বিধানসভা নির্বাচন। বিহারের বিধানসভা নির্বাচনে মহাজোটের অন্যতম অংশীদার হিসেবে আশানুরূপ ফল করতে পেরেছে বাম শিবির। বাম শিবিরের এই উল্লেখযোগ্য ফলাফল প্রসঙ্গে তিনি জানালেন যে, এ রাজ্যে একমাত্র বিকল্প হতে পারে বাম। এ প্রসঙ্গে তিনি জানান যে, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিহার মডেলকে বাংলায় প্রয়োগ করতে সচেষ্ট বাম। তিনি আরও জানালেন যে, বিজেপিকে রোধ করাই বামেদের মূল চ্যালেঞ্জ।

এ প্রসঙ্গে তাঁর দাবি, বাংলার মানুষের কাছে এটা স্পষ্ট হয়ে গেছে যে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল জয়লাভ করবে না। তবে, জনগণের প্রতি তাঁর অনুরোধ, তারা যেন কোনভাবেই বিজেপিকে সুযোগ করে না দেন। গতকাল সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীর মুখ্যমন্ত্রী প্রসঙ্গে এরূপ বক্তব্য শোরগোল ফেলে দিল রাজ্য রাজনীতিতে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!