এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্পেও এবার চূড়ান্ত দুর্নীতি প্রভাবশালী তৃণমূল নেতার! অভিযোগ দলেই

মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্পেও এবার চূড়ান্ত দুর্নীতি প্রভাবশালী তৃণমূল নেতার! অভিযোগ দলেই



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে নানা জায়গায় দুর্নীতির অভিযোগ তুলতে শুরু করেছে বিরোধীরা। ভয়াবহ দুর্যোগের টাকা আত্মসাৎ থেকে শুরু করে করোনাতে ত্রান বিলি, বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিরোধীরা শাসকদলের জনপ্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে। আর এবার মুখ্যমন্ত্রীর সাধের “সবুজমালা” প্রকল্পের সরঞ্জাম কেনার নাম করে কয়েক লক্ষ টাকার ভুয়ো বিল করার অভিযোগ উঠল তৃণমূল পরিচালিত গোঘাট 2 ব্লকের বদনগঞ্জ-ফলুই 1 নম্বর পঞ্চায়েতের কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। যে ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, তৃণমূল পরিচালিত এই পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে সরব হয়েছেন তৃণমূলেরই পঞ্চায়েত সদস্য এবং দলের একাংশ। যার ফলে শাসকদলের অস্বস্তি আরও বেড়েছে। এদিন এই প্রসঙ্গে অভিযোগকারী স্থানীয় তৃণমূল নেতা মুকুন্দ হাজরা বলেন, “এক বছর আগে কাজটা হয়েছে দেখিয়ে মোট 33 টি ভুয়ো বিল করা হয়েছে। বিলগুলোতে 12-13 জন উপভোক্তাকে গাছ লাগানোর জন্য সরঞ্জাম কিনে দেওয়ার খরচ ধরা হয়েছে 1 লক্ষ কুড়ি হাজার থেকে 1 লক্ষ 25 হাজার টাকা পর্যন্ত। আমাদের হিসেবে প্রায় 40 লক্ষ টাকার বেশি ভুয়ো বিল করে দুর্নীতির চেষ্টা হচ্ছে। বিষয়টা ব্লক প্রশাসনের জানিয়ে তদন্তের দাবি করা হয়েছে।”

তৃণমূলের একাংশ যেভাবে তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে সরব হলেন, তাতে তো শাসকদল ব্যাপক অস্বস্তিতে পড়ল। একাংশ বলেছেন, এতদিন বিরোধীরা তৃণমূলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছে‌। কিন্তু এবার তৃনমূলের একাংশ যেভাবে তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলল, তাতে তৃণমূল গোটা পরিস্থিতিতে কীভাবে মোকাবিলা করে, তা অবশ্যই লক্ষণীয় বিষয় রাজনৈতিক মহলের কাছে।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

যদিও বা দলীয় সদস্যের এই অভিযোগকে সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করেছেন পঞ্চায়েত প্রধান লক্ষ্মী মালিক। এদিন তিনি বলেন, “দুর্নীতি হওয়ার কথা নয়। বিষয়টা ব্লক প্রশাসন দেখছে। আমরা ওইসব বিলের টাকা পরিশোধ বন্ধ রেখেছি।” একই বক্তব্য এই কাজের ঠিকাদার শেখ মহসিনের। তবে গোটা পরিস্থিতিতে অভিযোগ পেয়ে তদন্তপ্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিডিও অভিজিৎ হালদার।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ঘটনা সত্যিই বেনজির। যখন তৃণমূল স্বচ্ছতা বজায় রাখতে নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে, তখন দলের একাংশ যেভাবে তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করলেন, তাতে বিরোধীরা তাদের হাতে নতুন অস্ত্র পেয়ে গেল। এখন গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, তদন্তে কি উঠে আসে, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!